Home Blog Page 3

আসছে দ্বিতীয় ধাক্কা, প্রয়োজনে কঠিন সি’দ্ধান্ত

0

প্রা’ণঘা’তী ভাই’রাস ক’রোনার দ্বিতীয় ধাক্কা ইতোমধ্যে আসতে শুরু করেছে। এটা নি’য়ন্ত্রণে স’রকার প্রয়োজনে যেকোন কঠিন সি’দ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তবে সারাদেশে লকডাউন হবে না বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন স’রকারের এই মুখপাত্র।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক ইস্যুতে সাংবাদিকদের স’ঙ্গে মতবিনিময়কালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

দেশে ক’রোনা পরিস্থিতির অবনতির কথা তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনা দিন দিন বাড়ছে। এ অবস্থায় মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে যথেষ্ট অবহেলা রয়েছে। এজন্য স’রকার প্রয়োজনে যেকোন কঠিন সি’দ্ধান্ত নেবে। মানুষের জীবন আগে। জীবন না থাকলে জীবিকা দিয়ে কী হবে।’

ক’রোনা পরিস্থিতি মোকাবেলার বি’ষয়টি প্রধানমন্ত্রী নিজেই মনিটরিং করছেন বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। যারা মাস্ক পরবে না তাদের জরিমানা করতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানান মন্ত্রী।

এ সময় সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন, নতুন করে লকডাউন আসতে পারে কি না? এ ব্যাপারে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘পুরো লকডাউন সম্ভব না, পাকিস্তান করতে পারেনি, ভারত যা করেছে তাতেও লাভ হয়নি। গতি-প্রকৃতি দেখে প্রয়োজনে কঠোর সি’দ্ধান্ত। মাস্ক ব্যবহার করতে হবে সেটাই কঠোর সি’দ্ধান্ত।’

মন্ত্রিসভায় রদবদলের গুঞ্জন প্রস’ঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ধর্ম ম’ন্ত্রণালয়ে একজন প্রতিমন্ত্রী দেয়া হয়েছে। তিনি একজন ভালো লোক। জামালপুরের ইসলামপুরের সং’সদ সদস্য তাকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। আজ সন্ধ্যায় তার শপথ।’

‘এ মুহূর্তে মন্ত্রিসভায় কোনো পরিবর্তনের কথা আমি জানি না। এটা প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার। তবে ওটা (ধর্ম) যেহেতু খালি সে জন্য পূরণ করছে। এ সময় আর পরিবর্তন তাড়াতাড়ি হচ্ছে বলে মনে হয় না। খুব সহসাই পরিবর্তন হচ্ছে না’ যোগ করেন সেতুমন্ত্রী।

বেতন দিতে পারেনি বলে পরীক্ষা দিতে দিলোনা স্কুল কর্তৃপক্ষ!

0

বেতন দিতে পারেনি বলে পরীক্ষা দিতে দেয়নি স্কুল কর্তৃপক্ষ। তাই মন খা’রাপ করে মায়ের স’ঙ্গে বাড়ি ফিরে গেছে শি’শুরা। ঘ’টনাটি নারায়ণগঞ্জের।

বন্দরের ঢাকেশ্বরী স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রাথমিক শাখার চতুর্থ শ্রেণিতে পড়াশোনা করে শি’শু মাবিয়া আক্তার (৮)। সোমবার মায়ের স’ঙ্গে গিয়েছিল মূ’ল্যায়ন পরীক্ষায় অংশ নিতে কিন্তু পরীক্ষা দেয়া হয়নি মাবিয়ার।

মাবিয়ার মা আয়শা আক্তার জানান, তাদের বাড়ি বন্দরের তালতলা এলাকায়। স্বা’মী একজন রিকশাচালক। তাদের পরিবারে রয়েছে আর্থিক দৈন্যতা। তবু খেয়ে না খেয়ে মে’য়েকে পড়াচ্ছেন স্কুলে। সোমবার মূ’ল্যায়ন পরীক্ষার জন্য মে’য়েকে স্কুলে নিয়ে যান তিনি।

কিন্তু স্কুলে অ্যাকাউন্ট শাখা তাদের হাতে এক বছরের বকেয়া বেতনের এক হাজার ৫৪০ টাকার একটি স্লিপ ধরিয়ে দেন। তিনি জানান, এ টাকা পরিশোধ না করলে পরীক্ষায় অংশ নেয়া যাবে না বলে স্কুল থেকে জানিয়েছে।

আয়েশা আক্তার বলেন, আমরা গরিব মানুষ। এতগুলো টাকা দেয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই মে’য়েকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ না করিয়েই বাড়ি ফিরে আসি। এ ব্যাপারে ঢাকেশ্বরী মিলস স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, তিনি (আয়েশা আক্তার) হয়তো অ্যাকাউন্ট সেকশনে যোগাযোগ করেছেন।

আমাদের কাছে আসেননি। বিদ্যালয়ের প্রায় ৯০ ভাগ শিক্ষার্থীর আংশিক বা পুরোপুরি বেতন মওকুফ করা হয়েছে। এছাড়া চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী মাবিয়ার কাছে বেশি টাকা চাওয়ার ত’থ্য সঠিক নয়। বেতন কমানোর দাবিতে ঢাকেশ্বরী স্কুল অ্যান্ড কলেজে বি’ক্ষো’ভ প্রদর্শন করেন অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের মুখে বেতন মওকুফ করে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সদস্য মো. ইউসুফ মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার কিছু ছাত্র ও অভিভাবক বিশৃঙ্খল অবস্থা সৃষ্টির চেষ্টা করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিকভাবে ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা বৈঠকে বসেন। বৈঠক শেষে যারা টাকা দিতে সমর্থ নয় তাদের মওকুফ করা হয়। এছাড়া অধিকাংশ শিক্ষার্থীর বেতন কর্তন করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও উপজে’লা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ বলেন, এ নিয়ে তিন সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। যারা বেতন দিতে অ’ক্ষম তারা আবেদন করলে তিন সদস্যের কমিটি তাদের বেতন মওকুফের ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবেন।

তিনি বলেন, ঢাকেশ্বরী উচ্চ বিদ্যালয়ের অর্ধেক শিক্ষক নন-এমপিওভুক্ত। শিক্ষার্থীদের বেতনের টাকা থেকে তাদের বেতন পরিশোধ করা হয়। শিক্ষার্থীরা বেতন না দিলে নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বেতন দেয়া সম্ভব হবে না।

এ ব্যাপারে বন্দর উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা স’রকার জানান, বিদ্যালয়ে বেতন নিতে পারবেন, তবে অতিরিক্ত অর্থ নেয়া হলে বিদ্যালয়ের বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রাথমিকে নিয়োগের আবেদন শেষ হচ্ছে আজ

0

স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগে আবেদন শেষ হচ্ছে আজ। সোমবার রাত পর্যন্ত প্রায় ১২ লাখের মতো আবেদন জমা পড়েছে।

এর আগে ১৯ অক্টোবর স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। গত ২৫ অক্টোবর থেকে অনলাইন আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়। এবার রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান জে’লা বাদে দেশের বাকি সব জে’লার প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছিলো, এবার ১৫ লাখ প্রার্থী আবেদন করতে পারেন। আবেদনে যারা ভু’ল করেছে তাদেরও সংশোধ’নর সুযোগ দেয়া হয়। ক’রোনাভা’ইরাসে ছড়িয়ে পড়ার কারণে এ বছর ২৫ মার্চ যাঁদের ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছে, স’রকারি চাকরিতে তাঁদের আবেদনের সুযোগ দেয়া হয়েছে।

স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩২ হাজার ৫৭৭ জন সহকারী শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিলো প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এর মধ্যে প্রাক-প্রাথমিকে ২৫ হাজার ৬৩০ জন এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শূন্য পদে ৬ হাজার ৯৪৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন শেষ হবে ২৪ নভেম্বর রাত ১১টা ৫৯ মিনিটে। বেতন হবে জাতীয় বেতন স্কেল, ২০১৫ এর গ্রেড ১৩ অনুযায়ী ১১,০০০-২৬,৫৯০ টাকা।

শিক্ষাগত যোগ্যতার ক্ষেত্রে যেকোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দ্বিতীয় শ্রেণি বা সমমানের সিজিপিএসহ স্নাতক বা সম্মান বা সমমানের ডিগ্রি থাকতে হবে। আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১১০ টাকা।

সর্বশেষ ২০১৮ সালের ৩০ জুলাই সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এতে মোট উত্তীর্ণ হন ৫৫ হাজার ২৯৫ জন, নিয়োগ দেওয়া হয় ১৮ হাজার ১৪৭ জনকে।

ভর্তি প্রক্রিয়া নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন কাল

0

স’রকারি-বেস’রকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক (শুধু স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ছাড়া) পর্যায়ের স্কুলে ভর্তির বি’ষয়ে আগামীকাল বুধবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) শিক্ষা ম’ন্ত্রণালয়ের ত’থ্য কর্মকর্তা এম এ খায়ের জাগো নিউজকে বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মাধ্যমিক পর্যায়ের ভর্তি বি’ষয়ে আগামীকাল (২৫ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় শিক্ষামন্ত্রী প্রেস কনফারেন্স করবেন।

ক’রোনা পরিস্থিতিতে কোন পদ্ধতিতে ভর্তি হবে সেসব নিয়ে মন্ত্রী প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জানাবেন। জানা গেছে, চলতি বছর ক’রোনা পরিস্থিতিতে দেশের সব বেস’রকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

১ম থেকে ৮ম শ্রেণিতে শূন্য আসনে ভর্তিতে পরীক্ষার পরিবর্তে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী বাছাই করে ভর্তি করতে নীতিমালা সংশোধ’ন করা হচ্ছে। এই লটারি প্রক্রিয়ার সময় অভিভাবকরা উপস্থিত থাকতে পারবেন না।

তবে অভিভাবক প্রতিনিধিসহ ভর্তি কমিটি গঠন করে লটারির কার্যক্রম পরিচালনা হবে। চলতি সপ্তাহেই এ সংক্রান্ত নীতিমালা জারি করা হতে পারে বলে জানা গেছে। এর বাইরে নীতিমালায় নতুন কোনো পরিবর্তন থাকছে না।

শিক্ষা ম’ন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ১ম শ্রেণির ভর্তি লটারিতে ও ২য় থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষার মাধ্যম ভর্তি করা হয় প্রতি বছর। তবে ক’রোনাভা’ইরাসে পরিস্থিতির কারণে চলতি বছর ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

অনলাইনে ভর্তি ফরম বিক্রি করা হবে। এরপর যাচাই-বাছাই করে লটারির জন্য নির্বাচন করবে কর্তৃপক্ষ।

একাধিক ধাপে লটারি করে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এর ফলাফল বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। তবে জনসমাগম এড়াতে ভর্তি প্রক্রিয়ায় অভিভাবকদের প্রবেশের সুযোগ থাকবে না। ম্যানেজিং কমিটির সদস্য, শিক্ষক ও কয়েকজন অভিভাবক নিয়ে ভর্তি কমিটি গঠন করা হবে। ওই কমিটি ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে।

সালমান শাহ’র নায়িকা সেই লিমা এখন যেমন আছেন

0

নব্বই দশকের জনপ্রিয় নায়িকা লিমা। অ’ভিনয় ক’রেছেন সালমান শাহ, আলমগীর, ওম’র সানীর মতো অ’ভিনেতাদের বিপরীতে।

মাত্র ৮ বছরের অ’ভিনয়জীবনে ২৫টি সিনেমায় অ’ভিনয় করে জনপ্রিয়তা পান। ১৯৯৮ সালের শেষের দিকে হ’ঠাৎ অ’ভিনয় থেকে দূ’রে চলে যান। এরপর ২১ বছর ধ’রে লিমা’র কোনো খোঁ’জ নেই। এত বছর পর অ’ভিনয় থেকে দূ’রে সরে যাওয়া এবং পরবর্তী সময়ের গল্প শোনালেন লিমা।

লিমা এখন কোথায় থাকেন? এই ত’থ্য খুঁজতে গিয়ে শুরুতেই হ’তাশ হতে হলো। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কাছে তাঁর কোনো ত’থ্য নেই। লিমা যেসব শিল্পী ও নির্মাতার স’ঙ্গে কাজ ক’রেছেন, তাঁদের অনেকের কাছে খোঁ’জ করেও সঠিক ত’থ্য জা’না গেল না। কেউ বলেছেন, লিমা সপরিবারে যু’ক্তরাষ্ট্র বা কানাডায় থাকেন।

বাণিজ্যিক ধারার জনপ্রিয় সিনেমা’র নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর ছবিতেই বেশি অ’ভিনয় ক’রেছেন লিমা। এই নির্মাতা বলেন, ‘ভালো একটা ক্যারিয়ার ছে’ড়ে হ’ঠাৎ চলে গেল লিমা। এখন আর তাঁর খবর কেউই জানি না।’ অবশেষে মাসখানেক ধ’রে খোঁ’জ খবর নেওয়ার পর পাওয়া গেল লিমা’র ঠিকানা।

একটি পাঁচতলা বাড়ির দোতলার কলবেল চে’পে দাঁড়িয়ে আছি। কিছুক্ষণ পর সাত–আট বছর ব’য়সী এক মে’য়ে দরজা খু’লে তাকিয়ে আছে। জিজ্ঞেস করলাম, ‘এই বাসায় অ’ভিনেত্রী লিমা থাকেন?’ শুনে মে’য়েটি নিরুত্তর তাকিয়ে থাকে।

বললাম, ‘আগে সিনেমায় অ’ভিনয় ক’রতেন, নাম লিমা।’ মে’য়েটি বলল, ‘এসব আমি জানি না।’ ভে’তর থেকে একজনের ডাকে মে’য়েটি চলে গেল। ঠিক মিনিট দুয়েক পর একজন ষাটোর্ধ্ব ব্য’ক্তি বের হলেন।

আবার বললাম, ‘অ’ভিনেত্রী লিমা কি এই বাসায় থাকেন?’ ভদ্রলোক আমা’র পরিচয় জে’নে একটু সময় নিয়ে বললেন, ‘সে তো অনেক আগে অ’ভিনয় করত। এখন আর অ’ভিনয় করে না, তাকে নিয়ে আর না লেখাই ভালো।’

হাঁপ ছে’ড়ে বাঁচলাম এই ভেবে যে লিমা এ বাসায় থাকেন। যাঁর স’ঙ্গে কথা হলো, তিনি লিমা’র বাবা মোহম্ম’দ মোহর আলী। তিনি বললেন, ‘আর যদি কিছু জানতেই চান, তাহলে আমা’র নম্বর নিয়ে যান। ফোন দিয়েন। বাসায় আজ একটি জ’ন্ম’দিনের অনুষ্ঠান। আজ কথা বলা সম্ভব নয়।’

দুই সপ্তাহ ধ’রে ফোনে চেষ্টার পর আবার লিমা’র বাবার স’ঙ্গে দেখা করলাম। দোতলা বাড়ির নিচে কথা বলছি। প্রথমেই মোহর আলী বললেন, ‘চলচ্চিত্র জগৎ ছে’ড়ে দিয়েছে, এখন এগুলো নিয়ে লিখে আর কী’ হবে? তারপরও যদি জানতে চান, চলুন, বাসায় গিয়ে কথা বলি।’

বাংলাদেশের নব্বই দশকের জনপ্রিয় অ’ভিনেত্রী লিমা। পারিবারিক নাম শামীমা আলি লিমা। জ’ন্ম ২২ সেপ্টেম্বর ১৯৭৯, কুমিল্লার দাউদকান্দি, বর্তমানে তিতাস থা’নায়। বেড়ে ওঠা ঢাকায়। তিন বোনের মধ্যে লিমা সবার বড়। লিমা’র অ’ভিনয় শুরু শৈশব থেকেই। বাবা একজন মু’ক্তিযো’দ্ধা। ১৯৭১ সালে যু’দ্ধের পর ঢাকায় ব্যবসা শুরু করেন।

মোহর আলী ছিলেন শিল্পমনস্ক। মোহাম্ম’দপুরে থাকতেই ‘কুট্টি ভাই’ নামে একজনের স’ঙ্গে মোহর আলীর পরিচয় হয়। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনের প্রকৌশলী ছিলেন।

তিনিই লিমাকে দেখে বিটিভির অঙ্কুর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বলেন। অঙ্কুরের মধ্যমেই লিমা’র অ’ভিনয়ের শুরু। তখন লিমা’র ব’য়স ৯ বছর। লিমা ক্রমেই অ’ভিনয়, নাচ, গানে ভালো ক’রতে থাকেন। এরপর যু’ক্ত হন সিনেমায়।

লিমা প্রথম নায়িকা চরিত্রে সিনেমায় অ’ভিনয় করেন মাত্র ১৪ বছর ব’য়সে। কমল স’রকার পরিচালিত ছবিটির নাম সু’খের আ’গুন। ব্যবসায়িকভাবে সেভাবে সফল না হলেও প্রথম ছবিতেই লিমা’র অ’ভিনয় নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর দৃষ্টিগোচর হয়। পরবর্তীকালে ১৯৯৩ সাল থেকে লিমা সবচেয়ে বেশি দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর ছবিতে অ’ভিনয় করেন।

এরপর টানা ৮ বছরে ২৫টির মতো ছবিতে অ’ভিনয় ক’রেছেন লিমা। বেশির ভাগ ছবি ছিল ব্যবসা’সফল। লিমা বলেন, ‘আমি কখনো ভাবিনি, এতটা খ্যাতি সিনেমা থেকে আমি পাব।’ অ’ভিনয়ে তাঁর ব্যস্ততা দিন দিন বাড়তে থাকে।

লিমা’র ক্যারিয়ার পুরোপুরি বদলে দেয় নব্বই দশকের জনপ্রিয় ছবি প্রে’মগীত। ছবিটি ১৯৯৩ সালে মু’ক্তি পায়। ছবিটির নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। প্রে’মগীত ছবি দিয়ে জনপ্রিয় সারির অ’ভিনেত্রীদের তালিকায় চলে আসেন লিমা। এ ছবি দিয়ে জনপ্রিয়তা পান অ’ভিনেতা ওম’র সানীও। ছবির ‘আমা’র সুরের সাথি আয় রে’ গানটি এখনো অনেকেরই মনে আছে।

ঢাকাই চলচ্চিত্র জগতে লিমা তখন জনপ্রিয় নায়িকার নাম। সমানতা’লে অ’ভিনয় ক’রেছেন সে সময়ের জনপ্রিয় তারকা সালমান শাহ, ওম’র সানী, জসীম, বাপ্পারাজ, অমিত হাসান, রুবেলের মতো অ’ভিনেতাদের স’ঙ্গে । মাসের বেশির ভাগ সময় শু’টিং নিয়ে ব্যস্ত থাকা এই নায়িকা যেন হ’ঠাৎই সবার অগোচরে অ’ভিনয় থেকে ছুটি নিলেন।

একস’ঙ্গে অনেক ছবির কাজ তড়িঘড়ি করে শেষ করেন লিমা। এরপর নীরবেই সিনেমাকে বিদা’য় জা’নান। সে জন্য শেষ ছবি কোনটা, নাম মনে ক’রতে পারলেন না। অ’ভিনয় থেকে সরে যাওয়া প্রস’ঙ্গে লিমা বলেন, ‘আমা’র পরিবার একদমই সাদামাটা। বাবা প্রথম দিকে চাইতেন অ’ভিনয় করি, তাই শখের বশে অ’ভিনয়ে আসি।

অ’ভিনয় ক’রতে ক’রতে একসময় মো’টা হয়ে যাচ্ছিলাম। স্থূলতা দিন দিন বাড়ছিল। অন্যদিকে বাবাও পারিপার্শ্বিক চা’পে চাইছিলেন না আর অ’ভিনয় করি। তখন নিজে’র সিদ্ধা’ন্তেই অ’ভিনয় থেকে সরে আসি।’

কোনো অ’ভিমান কি ছিল? জবাবে পাই লিমা’র একটি দীর্ঘশ্বা’স। হয়তো স্মৃ’তিতে অনেক কিছুই মনে কড়া নাড়ছে। লিমা হ’ঠাৎ হেসে বলেন, ‘অনেকে মনে করে, কোনো অ’ভিমান থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছি। কিন্ত আমা’র কারও ও’পর কোনো অ’ভিমান নেই।

সিমপ্লি ব্য’ক্তিগত কারণ।’ অ’ভিনয় ছাড়ার পর লিমা মোহাম্ম’দপুরে বিউটি পারলারের ব্যবসার স’ঙ্গে যু’ক্ত হন। এরপর টানা ২১ বছর লিমা সিনেমা’র কারও স’ঙ্গে কোনো যোগাযোগ রাখেননি।

লিমা’র এখন বেশির ভাগ সময় কাটে বাসায়, বাবা, বোন ও বোনের স’ন্তানদের স’ঙ্গে । মেজ বোনের তিন মে’য়েকে নিয়েই তাঁর যত ব্যস্ততা। মিডিয়ার কোনো খবরই রাখেন না।

শুধু এটুকু বললেন, ‘শুনেছি এখন নায়িকা হওয়া সহ’জ, কিন্তু আমাদের সময় এত গুণী অ’ভিনেত্রী ছিলেন, যাঁদের ভিড়ে অ’ভিনয়ে নিজে’র জায়গা তৈরি খুব ক’ঠিন ছিল।’ আর কী’ কী’ খবর জা’নেন লিমা, এ বি’ষয়ে হেসে বলেন, ‘আমি এখন এক সাধারণ মানুষ। বর্তমান নায়ক, নির্মাতা—কারও নামই জানি না।’

মোহম্ম’দ মোহর আলী ১৯৭১ সালে ২ মা’র্চ প্রথমে দেড় সপ্তাহের ট্রেনিং এবং পরে ভা’রত থেকে এক মাসের ট্রেনিং নিয়ে কুমিল্লার রণা’ঙ্গনের যু’দ্ধে অংশ নেন। লিমা’র বাবা জা’নান, প্রথম দিকে মে’য়ের অ’ভিনয় নিয়ে অনেকেই নানা কথা বলত। আমাদের গ্রামের মা’ওলানা আবদুল বাকী’ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন।

তিনি আমাকে একদিন বলেছিলেন, ‘যে যেখানে ভালো করে, সেটাই তার জন্য ভালো। নইলে সেই জায়গাগুলো চলবে কী’ভাবে। যদি কেউ ভালো থাকতে চায়, সেটা সব জায়গাতেই ভালো থাকা সম্ভব।

এরপর লিমাকে অ’ভিনয়ে উৎসাহ দিই। কিন্তু পরে অনেকেই ভিন্ন রকম কথা বলত। তা ছাড়া মে’য়ে মো’টা হয়ে যাচ্ছিল, তার তো একটা জীবন আছে, সব ভেবে অ’ভিনয় থেকে দূ’রে সরিয়ে নিই।’

ধর্মের টানে অভিনয়ে ইতি, এবার সোশ্যাল মিডিয়া থেকে তাঁর ছবি মুছে ফেলার অনুরোধ জায়রার

0

সোশ্যাল মিডিয়া এবং তাঁর ফ্যানপেজ থেকে সমস্ত ছবি মুছে ফেলার অনুরোধ করলেন জায়রা ওয়াসিম। ‘দ্যা স্কাই ইজ পিঙ্ক’ ছবিতেই শেষবার দেখা যায় তাঁকে। এরপর অভিনয় কাজ তাঁর ধর্মবিশ্বাসে আ’ঘাত করছে জানিয়ে বিনোদন জগত থেকে চিরবিদায় নিয়েছিলেন জায়রা ওয়াসিম।

এবার সোশ্যাল মিডিয়া এবং তাঁর ফ্যানপেজ থেকে সমস্ত ছবি মুছে ফেলার অনুরোধ করলেন জায়রা ওয়াসিম।জায়রা তাঁর ইনস্টাগ্রামে মা’র্কিন রাজনীতিবিদ বার্নি স্যান্ডার্সের একটি মিম পোস্ট

করেছেন। যে মিমে লেখা রয়েছে, “প্রিয় অনুরাগীরা, আমি আপনাদের আবারও আমার বার্তাটি পড়তে বলছি।” জায়রা নিজে তাঁর বার্তায় লিখেছেন, ”হ্যালো সবাই !! আপনারা আমার জন্য যে ধ্রুব ভালবাসা প্রদর্শন করেছেন তার জন্য আমি প্রত্যেককে ধ’ন্যবাদ জানাতে চাই।

আপনারা আমার ভালবাসা এবং শ’ক্তির উৎস। সব সময় আমার পাশে থাকার জন্যধ’ন্যবাদ।আমার প্রতি আপনাদের এই ভালবাসা দেখেই আজ একটা অনুরোধ করব। দয়া করে আমার সব ছবি

আপনারা নিজেদের অ্যাকাউন্ট এবং আমার সব ফ্যান পেজ থেকে মুছে ফেলুন”। গতবছর ‘স্কাই ইজ পিঙ্ক’ মুক্তির ঠিক আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় লম্বা একটি পোস্টে জায়রা ওয়াসিম লেখেন, “আমার কাজ, আমার পরিচিতি নিয়ে আমি খুশি নই।

অনেকদিন ধরে আমার মনে হচ্ছে অন্য কেউ হওয়ার জন্যই আমি পরিশ্রম করছি। যখনই আমি বুঝতে শিখেছি কিসের জন্য আমি সময় দিচ্ছি, পরিশ্রম করছি, তখনই আমি বুঝেছি এখানে আমাকে মানালেও আমি এর জন্য

উপযুক্ত নই।এই জগৎ আমাকে অনেক ভালবাসা, সমর্থন দিয়েছে। কিন্তু পাশাপাশি এর জন্য আমি আমার বিশ্বাস থেকে সরে গিয়েছি। আমার কাজের স’ঙ্গে আমার ধর্মবিশ্বাসের সং’ঘাত হচ্ছে।” জায়রার মতে,

তিনি যতই নিজেকে বোঝান যা তিনি করছেন সব ঠিক ততই তাঁর জীবন থেকে ‘আর্শীবাদ’ হা’রিয়ে যাচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই সি’দ্ধান্তের কথা জানিয়ে তিনি বলেন, “নতুন ভাবে সবকিছু শুরু করার জন্য এ ছাড়া আর কিছু করার নেই আমার।”

দক্ষিণের সেরা অভিনেত্রীদের পারিশ্র’মিকের তালিকা প্রকাশ

0

প্রতি বছরই ভারতের দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন নতুন অভিনেত্রী পা রাখছেন। তাদের অনেকে নিজ গুণে দর্শকের নজর কাড়ছেন।

তাছাড়াও দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ কজন অভিনেত্রী রয়েছেন, যারা রূপ আর অভিনয় গুণে নিজেদের শ’ক্ত অবস্থান তৈরি করতে স’ক্ষম হয়েছেন।

বর্তমান সময়ে দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে সেরা নায়িকাদের তালিকায় রয়েছেন—নয়নতারা, কাজল আগরওয়াল, তৃষা কৃষ্ণান, তামান্না ভাটিয়া, শ্রুতি হাসান, কীর্তি সুরেশ প্রমুখ।

এদের মধ্যে সর্বোচ্চ পারিশ্র’মিক পেয়ে থাকেন নয়নতারা। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন কাজল আগরওয়াল। সম্প্রতি সেরা চিত্রনায়িকাদের পারিশ্র’মিকের একটি তালিকা ফাঁ’স হয়েছে। আর তাতেই এ ত’থ্য পাওয়া যায়।

সর্বোচ্চ পারিশ্র’মিক পাওয়া নায়িকাদের তালিকা:

১. নয়নতারা— ৪ কোটি রুপি।

২. কাজল আগরওয়াল— ২ কোটি রুপি।

৩. তৃষা কৃষ্ণান, তামান্না ভাটিয়া— ১.৫ কোটি রুপি।

৪. শ্রুতি হাসান— ১ কোটি রুপি।

৫. কীর্তি সুরেশ— ৮০ লাখ রুপি।

৬. অঞ্জলি—৭০ লাখ রুপি।

৭. রেজিনা ক্যাসান্ড্রা— ৬০ লাখ রুপি।

৮. শ্রিয়া সরন— ৫০ লাখ রুপি।

৯. ঐশ্বরিয়া রাজেশ, প্রিয়া আমান, নিবেতা, শ্রী দেবিয়া—৪০ লাখ রুপি।

১০. নিভেথা থমাস, মনজিমা মোহন—৩০ লাখ রুপি।

সৌ’দি না’রী’দের বিয়ে করলেই কোটি’পতি! জেনে নিন কিভাবে

0

সৌ’দি না’রীদের বিয়ে ক’রলেই এবা’র লাখপতি! সৌদি না’রীদের বিয়ে ক’রলেই এবার লাখপতি! সৌদি না’রী’দের বিয়ে করতে পারবে বাংলাদে’শীরা, মিলবে ভাতা!খোদ সৌদি সর’কার বিধি নিষে’ধ তুলে দিয়ে এমন সু’যোগ করে দিচ্ছে ।আর এই ক্ষেত্রে বাংলাদেশীরা

ছাড়াও বিদে’শীরা’ও বিয়ে করতে পারবেন সৌদি না’রীদের! স’ম্প্রতি সৌদি কর্তৃ’পক্ষ বিদেশী অ’ভিবাসীদের জন্য এমনই সু’খবর জানিয়েছে। আরব নিউ’জের এক প্রতিবেদনে এই ত’থ্য দেওয়া হয়েছে।সৌদির ইনস্যু”রে’ন্স’ভি”ত্তিক এক সং’স্থার বরাত দিয়ে ওই

প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌ’দিতে কোনো বিদেশী অ’ভিবাসী যদি কোনো না’রীকে বিয়ে ক’রেন তবে তিনি মাসিক’বেত’নসহ পে’নশন সুবিধা পাবেন। প্রতিবে’দনে আরও বলা হয়েছে, সৌদি আরবে পুরু’ষদের তুলনায় না’রীর সংখ্যা অনেক বেশি।সৌদি পুরু’ষরা

একাধিক বিয়ে করলেও অবি’বাহিত থেকে যাচ্ছে সেদে”শের অনেক না’রী।এমন এক পরি’স্থিতিতে সৌদি কর্তৃপ’ক্ষ প্রবা’সীদের জন্য সৌদি না’রীদের বিয়ে করার বিধি নিষে’ধ তুলে নিয়েছেন। তবে এজন্য ‘স্পে’শাল এক্স’প্যা’ক্ট’ সি’স্টে’মে তাদেরকে পূর্ব

‘হতেই নিব’ন্ধ’ন করতে হবে।প্রবা’সীরা শুধু সৌদি না’রী’দের বিয়ে করার সুযো’গের স”ঙ্গে স”ঙ্গে তারা পেন’শনসহ বেতন সুবিধাও ভোগ করতে পারবেন! সৌদি না’রীদের বিয়ে করতে পারবে বাংলা’দেশীরা, মিলবে ভাতা!খোদ সৌদি সর’কার বিধি নিষে’ধ তুলে

দিয়ে এমন সুযোগ করে দিচ্ছে ।আর এই ক্ষেত্রে বাংলাদে’শীরা ছাড়াও বিদেশীরাও বিয়ে করতে পারবেন সৌদি না’রী’দের! স’ম্প্র”তি সৌদি কর্তৃপ’ক্ষবিদেশী অ’ভিবাসী’দের জন্য এমনই সু’খ’বর জানিয়েছে। আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এই ত’থ্য দেওয়া

হয়েছে। সৌ’দির ইন’স্যুরে’ন্স’ভি’ত্তিক এক সং”স্থা’র বরাত দিয়ে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদিতে কোনো বিদেশী অ’ভি’বাসী যদি কোনো না’রীকে বিয়ে করেন তবে তি’নি মাসিক’বেতনসহ পেনশন সুবিধা পাবেন। প্রতি’বেদনে আরও বলা হয়েছে, সৌদি আরবে

পুরু’ষ”দের তুলনায় না’রীর সংখ্যা অনেক বেশি।সৌদি পুরু’ষরা একাধিক বিয়ে করলেও অবি’বাহিত থেকে যাচ্ছে সেদেশের অনেক না’রী। এমন এক পরিস্থি”তিতে সৌদি কর্তৃ”পক্ষ প্রবা’সীদের জন্য সৌদি না’রীদের বিয়ে করারবিধি নিষে’ধ তুলে নিয়েছেন।

তবে এজন্য ‘স্পে’শাল এক্স’প্যাক্ট’ সিস্টে’মে তাদেরকে পূর্ব ‘হতেই নি’বন্ধ’ন করতে হবে।প্রবাসীরা শুধু সৌদি না’রী’দের বিয়ে করার সুযো’গের স”ঙ্গে স”ঙ্গে তারা পেনশ’নসহ বেতন সুবিধাও ভোগ করতে পারবে।

“দৃষ্টি আকর্ষণ ”
এই সাইটে সাধারণত আম’রা নি’জস্ব কোনো খবর তৈরী করি না।..আম’রা বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর’গুলো সংশ্লি’ষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি..তাই কোনো খবর নিয়ে আ’পত্তি বা অ’ভিযোগ থাকলে সং’শ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কতৃ”পক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। “বিশেষ দ্র’ষ্টব্য” কোনো শব্দের বানানে ভু’ল-ত্রুটি হলে, দয়া করে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

বিশ্বের সেরা ১০ সুন্দরী ক্রিকেটারের স্ত্রী

0

বাংলাদেশ ও আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান যতটা জনপ্রিয় তাঁর স্ত্রী শিশিরও সমানভানে জনপ্রিয়৷ ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশের নারায়নগঞ্জে জ’ন্মানো শিশির ২০১১তে সাকিবের প্রেমে পড়েন৷ বিয়ের পর ২০১৫ সালের নভেম্বরে তাঁদের প্রথম স’ন্তানের জ’ন্ম হয়৷ কিন্তু এক স’ন্তানের মা হওয়া সত্বেও নিজেকে সুন্দর ভাবে ক্যারি করতে পারেন সাকিব পত্নী৷

মায়ান্তি ল্যাঙ্গার ও ষ্টুয়ার্ট বিনি:

ভারতীয় ক্রিকেটারদের স্ত্রী বা বান্ধবীদের মধ্যে অন্যতম সুন্দরী হলেন মায়ান্তি ল্যাঙ্গার৷ পেশায় তিনি টেলিভিশনে স্পোর্টস জার্নালিস্ট৷ কিন্তু নিজের লাস্যময়ী শ’রীরের ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকদের কাছে তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয়৷ ২০১২ সালে রজার বিনির পুত্র ষ্টুয়ার্ট বিনিকে বিয়ে করেন তিনি৷

আহমেদ শাহজাদ ও সানা মুরাদ:

পাকিস্তানের মে’য়েদের হা’র্টথ্রব ছিলেন শাহজাদ। সেই সব মে’য়েদের হৃদয় ভে’ঙে দিয়ে ২০১৫-য় সানা মুরাদকে বিয়ে করেন শাহজাদ। এই ক্রিকেটারের স্ত্রী দেখতেও কম লাস্যময়ী নন।

গীতা বসরা ও হরভজন সিং:

বলিউড ও ক্রিকে’টের মেলবন্ধ’নের ঘ’টনা বহু পুরানো৷ বলি অভিনেত্রী গীতা বসরা ও হরভজন সিংয়ের সম্প’র্কটি যার অন্যতম উদাহরণ৷ গত বছর দু’জনে বিবাহবন্ধ’নে আবদ্ধ হন৷ তবে তাঁর আগে গীতা ও ভাজ্জি চুটিয়ে প্রেম করেছেন গত কয়েকবছর৷ সিনেমার পর্দায় অভিনয়ের পাশাপাশি মডেলিংও করেছেন গীতা৷

সানিয়া মির্জা ও শোয়েব মালিক:

ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে রাজনৈতিক শ’ত্রুতা থাকলেও দেশের টেনিস সুন্দরী ও ম’হিলাদের মধ্যে বিশ্বের অন্যতম সেরা ডাবলস খেলোয়াড় সানিয়া মির্জা বিয়ে করেছেন পাকিস্তানের ক্রিকেটার শোয়েব মালিককে৷ স্বা’মীর জনপ্রিয়তা কখনোই প্রভাব ফে’লেনি সানিয়ার খেলায়৷ এই মুহুর্তে হায়দরবাদি কন্যা ও মার্টিনা হিঙ্গিসের জুটি বিশ্বে একনম্বর স্থানে রয়েছে৷

বিরাট কোহলি ও অনুষ্কা শর্মা:

বর্তমানে ভারত সহ ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম আলোচনার বি’ষয়বস্তু এই জুটি৷ বলিউড অভিনেত্রী অনুষ্কা শর্মা যেমন জনপ্রিয়, ভারতের টেস্ট দলের অধিনায়ক বিরাটও রয়েছেন স্বপ্নের ফর্মে৷ সম্প্রতি অন্তসত্ত্বা হয়েছেন তার স্ত্রী অনুস্কা শর্মা। তাদের সংসারে খুব শীঘ্রই আসতে চলেছে নতুন অতিথি।

তামিম ইকবাল ও আয়েশা:

সেই চট্টগ্রামের সানসাইন গ্রামার স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরিচয় বাংলাদেশ জাতীয় দলের হার্ড হিটার ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও আয়েশা সিদ্দিকার। প্রথম দেখাতেই তামিমের ভালো লাগা, প্রেম। অতঃপর ২০১৩ সালের ২২ জুন বিবাহ বন্ধ’নে আবদ্ধ হন দু’জন।

বেন স্টোকস ও ক্লারে

২০১৩ সালে ক্লারেকে বিয়ে করেন ইংলিশ তারকা বেন স্টোকস। এই দম্পতির ঘরে দুইটি স’ন্তান রয়েছে। ক্রিকেট মাঠে স্বা’মীকে সবসময়ই সর্মথন দিয়ে আসছেন ক্লারে।

আ’পত্তিকর পোশাকে সোনাক্ষী সিনহা, সমলোচনার ঝড়

0

বলিউডের পর্দায় অভিষেকের পর থেকে নিজের নামের সাথে এখন পর্যন্ত সুবিচার করতে পারেন নি শ’ত্রুঘ্ন কন্যা সোনাক্ষী সিনহা। তবে নিজের রক্ষনশীল মনোভাবের জন্যে ভক্তদের কাছে প্রিয় ছিলেন এই তারকা।

সম্প্রতি ব্যাক্তিগত ইনস্টাগ্রাম একাউন্টে একটি লাল রঙ্গের নেটের গাউন পড়া ছবি প্রকাশ করেন সোনাক্ষী। ছবিটিতে সোনাক্ষীর শা’রীরিক অবয়ব ফুটে উঠেছে। আর তাতেই তাকে নিয়ে হামলে পড়েছেন তার ভক্তরা।

বলিউডে সোনাক্ষী সিনহার ক্যারিয়ারটা বেশ ভালোই যাচ্ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই এই দাবাং তারকার পেশাদার জায়গাটা অনেকটা উল্টো পথে চলতে থাকে।

কারণ সমসাময়িক অনেকের বলিউড অবস্থান তার চেয়ে ভালো। এমনকি তার পরে এসেও সোনাক্ষীর চেয়ে ব্যস্ত অভিনেত্রী এখন অনেক রয়েছে। সোনাক্ষীর এই পিছিয়ে পড়ার কারণ হিসেবে তাকেই দায়ী করা যায়।

এদিকে সর্বশেষ সোনাক্ষী অভিনীত ইত্তেফাক ছবিটিও আশানুরূপ সাফল্য দেখাতে পারেনি বক্স অফিসে। কেউ কেউ বলছেন হিট ছবি না দিতে পেরে এখন শ’রীর প্রদর্শন করে আলোচনায় থাকতে চাচ্ছেন সোনাক্ষী