Home Blog Page 287

স’রকারের সময়োচিত সাহসী চিন্তার ফসল বাজেট : কাদের

0

প্রস্তাবিত বাজেটকে জীবন-জীবিকার মধ্যে ভারসাম্য বজায় রেখে দেশকে এগিয়ে নিতে শেখ হাসিনা স’রকারের সময়োচিত সাহসী চিন্তার ফসল বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়ে ২০২০-২১ অর্থবছরে প্রস্তাবিত জাতীয় বাজেট নিয়ে আওয়ামী লীগ এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এ সময় শা’রীরিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক,

আব্দুর রহমান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, আ. ফ. ম বাহাউদ্দিন নাছিম, প্রচার সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। ক’রোনাভা’ইরাসেের কারণে কয়েক মাস ধরে বিপর্যয়ের পরও আমাদের বাজেটের আকার কমেনি বরং বেড়েছে।

জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত ১১ বছরে বাংলাদেশের অর্থনীতির ধারাবাহিক অগ্রগতির সুফল এই বাজেট। ক’রোনা মো’কাবিলার পাশাপাশি মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা নিশ্চিত করা,

মানুষ যেন ক’ষ্ট না পায় সেদিকে লক্ষ্য রেখেই সব প্রতিকূলতাকে জয় করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে জাতীয় সং’সদে আগামী অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করা হয়।

তিনি বলেন, এবারের বাজেট ভিন্ন বাস্তবতায়, ভিন্ন প্রেক্ষাপটে প্রণীত। এ বাজেট ক’রোনার বিদ্যমান সং’কটকে সম্ভাবনায় রূপ দেওয়ার বাস্তবসম্মত প্রত্যাশার দলিল। ক’রোনাভা’ইরাসেে সৃষ্ট সং’কটময় পরিস্থিতিকে সম্পূর্ণভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করে; সং’কটকালীন ও সং’কট পরবর্তী সম্ভাব্য অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার গতিপথ নির্ণয়ের লক্ষ্যকে সামনে রেখেই প্রণিত হয়েছে এবারের বাজেট।

যা জীবন-জীবিকার মধ্যে ভারসাম্য বজায় রেখে দেশকে এগিয়ে নিতে শেখ হাসিনা স’রকারের সময়োচিত সাহসী চিন্তার ফসল। গতানুগতিক ধারার সাথে ‘আউট অব বক্স’ চিন্তার সমন্বয় করে সং’কট জয়ের নবউদ্যোম সৃষ্টিতে এই বাজেট পেশ করা হয়েছে।

কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ক’রোনাভা’ইরাসেের প্রকো’পে বিদ্যমান সং’কটময় পরিস্থিতিতে ‘অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভবি’ষ্যৎ পথ পরিক্রমা’ শীর্ষক যুগোপযোগী ও জনকল্যাণমুখী বাজেট প্রণয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এমপি,

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল এমপিসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ধ’ন্যবাদ ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করছি।প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে ক’রোনা প্রার্দুভাবের পর ইতোমধ্যে যে অর্থনৈতিক প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন তাকে একটি অন্তবর্তীকালীন বাজেট বলা যেতে পারে।

তিনি বলেন, এই বাজেট প্রণয়নে দু’টি অনিশ্চয়তা ছিল, যা জয় করা ছিল দুরূহ। অনিশ্চয়তা দু’টি হচ্ছে- বাংলাদেশে ক’রোনা ম’হামা’রি চূড়ান্ত পর্যায়ে কী হবে, সে স’ম্পর্কে এখন পর্যন্ত কোনো স্বচ্ছ ধারণা না থাকা এবং ক’রোনা-উত্তর বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা পরিস্থিতি কী হবে,

তা সুনির্দিষ্ট করে এখনই বলতে না পারা। এই অনিশ্চয়তা জয় করে দু’র্যোগপ্রবণ বাংলাদেশে দু’র্যোগ মো’কাবিলার একমাত্র ত্রাণকর্তা সাহসী নেতৃত্ব বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত সফলভাবে বাজেট প্রণয়নের কাজ সম্পন্ন করেছেন।

তিনি আরও বলেন, নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন বলেছেন- ক’রোনা মো’কাবিলার পাশাপাশি খাদ্যের অভাবে যেন মানুষকে মরতে না হয়, সে ব্যবস্থা করতে হবে।

বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ কৌশিক বসু বলেছেন- ‘ক’রোনা মো’কাবিলা করতে গিয়ে অর্থনীতির বি’ষয়টি এড়িয়ে গেলে তার মাশুল গুনতে হবে, না হলে তার পরিণতি হবে ভ’য়ঙ্কর। অর্থনীতির বি’ষয়টি সকলকে মাথায় রাখতে হবে।

সেই কথা মাথায় রেখেই স’রকার ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেছে।

তিনি বলেন, গত অর্থবছরে আমাদের জি’ডিপি প্রবৃ’দ্ধির ইপ্সিত লক্ষ্যমাত্রাটি ছিল শতকরা ৮.২ ভাগ থেকে ৮.৩ ভাগ।

কোভিড পরবর্তী উত্তরণের বি’ষয়টি বিবেচনায় নিয়ে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার সাথে সামঞ্জস্য রেখে এবারের বাজেটে জি’ডিপি প্রবৃ’দ্ধির হার ধরা হয়েছে- ৮.২ শতাংশ।

অনেকে এটাকে উচ্চাভিলাষী মনে করতে পারেন। তবে, আওয়ামী লীগের কাছে মানুষের প্রত্যাশা বেশি। এই প্রত্যাশা পূরণে যত ঝুঁ’কি নিতে হয় জননেত্রী শেখ হাসিনা তা নেবেন।

গত এপ্রিলে ক’রোনা ম’হামা’রি সৃষ্টির আগের ৮ মাসের হিসাব ধরে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) আগামী অর্থবছরে প্রবৃ’দ্ধির হার ৯.৫ শতাংশ হবে বলে ভবি’ষ্যদ্বাণী করেছিল। ক’রোনা ম’হামা’রির সময়ে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের মতে ২০২০ সালে বৈশ্বিক অর্থনীতি ৩.০ শতাংশ সংকুচিত হবে এবং বিশ্বব্যাংক দক্ষিণ এশিয়ার জি’ডিপি প্রবৃ’দ্ধি ১.৮ থেকে ২.৮ শতাংশ হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে। এমতাবস্থায়, অর্থনৈতিক মন্দা কাটিয়ে আগের উন্নয়নের ধারাবাহিকতার কাঙ্ক্ষিত ভীত রচনাই এবারের বাজেটের লক্ষ্য।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ক’রোনার কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রাজস্ব আয় হ্রাস পেয়েছে।

ফলে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে গত অর্থবছরে ধার্যকৃত লক্ষ্যমাত্রা ৩ লক্ষ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা থেকে ২৯ হাজার ৪৪৬ কোটি টাকা হ্রাস করে ৩ লক্ষ ৪৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে সুনির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়, আমাদের জাতীয় আয়-ব্যয় নির্দিষ্ট থাকবে কী না। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এটা পরিবর্তন হতে পারে। সে কারণে এটিকে একটি ফ্লেক্সিবল ডকুমেন্ট হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। আগামী অর্থবছর অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার প্রথম বছর।

সুতরাং এই বাজেটে তা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে অধিকতর গুরুত্ব পাবে।এবারের বাজেটে শিক্ষাখাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ রাখা হয়েছে। তবে স্বাস্থ্যখাতকে সর্বাধিক অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে এবং ক’রোনা ভাই’রাস নিয়’ন্ত্রণে এ খাতে অতিরিক্ত বরাদ্দ, প্রণোদনা ও ক্ষ’তিপূরণ ইত্যাদির ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, আগামী অর্থবছরে স্বাস্থ্যখাতে মোট বরাদ্দ ৪১ হাজার ২৭ কোটি টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে। যা জি’ডিপি’র ১.৩ শতাংশ এবং মোট বাজেটের ৭.২ শতাংশ। গত অর্থবছরের তুলনায় স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দের হার বৃ’দ্ধি পেয়েছে ২৩.০৪। পাশাপাশি বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) থেকে স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নে ১৩ হাজার ৩৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ক’রোনা মো’কাবিলায় বিভিন্ন বিভাগের দায়িত্বপালনকারী কর্মকর্তাদের ক্ষ’তিপূরণ প্রদান এবং চিকিৎসায় নিয়োজিত ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ সম্মুখযোদ্ধাদের সম্মানীবাবদ ৮৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এবারের বাজেটে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় যে কোন জরুরি চাহিদা মেটানোর জন্য ১০ হাজার কোটি টাকার থোক বরাদ্দ প্রস্তাব করা হয়েছে। ক’রোনা প্রভাব বেড়ে গেলে জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতাল নির্মাণসহ আইসিইউ, ভেন্টিলেশন সাপোর্ট, কেয়ার সরঞ্জাম, ক’রোনাভা’ইরাসে পরীক্ষার কীটসহ নানা যন্ত্রপাতি আম’দানি এবং উৎপাদন ও ব্যবসায়ী পর্যায়ে মূসক অব্যাহতি প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ক’রোনাভা’ইরাসে প্রতিরোধে ভ্যাকসিন আবি’ষ্কারের জন্য পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নানা ধরনের গ’বেষ’ণা চলছে। ভ্যাকসিন আবি’ষ্কৃত হলে তা দ্রুততম সময়ের মধ্যে দেশে আনার পরিকল্পনাও বাজেট প্রস্তাবনায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আমাদের অন্তর্ভুক্তিমূলক স্বাস্থ্যনীতি বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে আমরা তৃণমূল পর্যায়ে সেবার পরিধি বৃ’দ্ধি করেছি। জে’লা, উপজে’লা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের কমিউনিটি ক্লিনিক পর্যন্ত অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। ইউনিয়ন পর্যায়ে চিকিৎসাপ্রা’প্তির সুযোগ আরও সম্প্রসারণ করা হবে। পাশাপাশি টেলিমেডিসিন সেবাকে আরও গতিশীল করা হবে।

তিনি বলেন, দীর্ঘ সাধারণ ছুটি ও লকডাউন জনিত কারণে সৃষ্ট দরিদ্র্য কর্মজীবী মানুষের ক’ষ্ট লাঘবে সামাজিক নিরাপত্তার আওতা সম্প্রসারণ করে এই খাতকে তৃতীয় অগ্রাধিকার খাত হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে। সব দিক বিবেচনায় নিয়ে ক’রোনার কবল থেকে ‘অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের’ এক ভারসাম্যপূর্ণ বাজেট হচ্ছে এবারের বাজেট। এটি একটি জনবান্ধব ও জীবনঘনিষ্ঠ অর্থনৈতিক পরিকল্পনা। যার মাধ্যমে দেশের উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীরা বিনিয়োগ বৃ’দ্ধি ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য উৎসাহ পাবে। কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে স’রকার বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এডি’বি’র সাময়িকীর হিসাবে আ’শঙ্কা করা হয়েছে- ক’রোনা পরিস্থিতির কারণে ১৪ লাখ মানুষ কর্মসংস্থান হারাতে পারে। ফলে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে স’রকার বাজেটে বিনিয়োগ বৃ’দ্ধির সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক, কর্মসংস্থান ব্যাংক এবং পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ)-এর মাধ্যমে মোট ২ হাজার কোটি টাকা বিতরণ করা হবে। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে স’রকার এ লক্ষ্যে ৫০০ কোটি টাকা মূলধ’ন প্রদান করবে। আশাব্যাঞ্জক বি’ষয় হলো- কর্মসংস্থানের ধারাবাহিকতার সামঞ্জস্য রাখা এবং ভবি’ষ্যত অর্থনৈতিক গতিশীলতা ধরে রাখতে মেগাপ্রকল্পসমূহ চলমান রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক অঞ্চলসমূহেও ২০.২৫ মা’র্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাব রাখা হয়েছে।ক’রোনা সং’কটের মধ্যেও স’রকার তার নির্বাচনী ইশতেহারে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে বদ্ধপরিকর। বাজেটে স্থানীয় স’রকার ও পল্লী উন্নয়নে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষিত ‘আমার গ্রাম, আমার শহর’ বাস্তবায়ন এবং ‘সুনীল অর্থনীতির সম্ভাবনা’ কাজে লাগানোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। মেগাপ্রকল্পসহ এসব প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে বাংলাদেশের অর্থনীতির গতিশীলতা ভবি’ষ্যতে আরও বৃ’দ্ধি পাবে।ক’রোনায় সৃষ্ট সং’কট বিবেচনায় ব্যক্তিশ্রেণি ও কর্পোরেট লেভেলে করমুক্ত আয়ের সীমা বৃ’দ্ধি করা হয়েছে এ বাজেটে।

মাত্র একশ টাকার জন্য ছোট ভাইকে খু’ন

0

মাত্র একশ টাকার জন্য বড় ভাইয়ের হাতে খু’ন হয়েছে ছোট ভাই। হ’ত্যার ঘ’টনায় মা’দকাসক্ত বড় ভাইকে আ’টক করেছে থানা পু’লিশ।

শুক্রবার (১২ জুন) সকালে ফরিদপুরের মধুখালী উপজে’লার বাগাট ইউনিয়নের দক্ষিণ চরবাগাট গ্রামে এ ঘ’টনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, বাগাট উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র তানজিদ মোল্যাকে (১৪) একশ টাকা দেন তার মা। ওই টাকা তানজিদের কাছে চায় তার বড় ভাই নাজমুল মোল্যা (২৪)। কিন্তু তানজিদ টাকা না দেয়ায় ক্ষি’প্ত হয়ে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে তাকে বাড়ির পার্শ্ববর্তী মাঠে ডেকে নিয়ে যায় নাজমুল।

সেখানে ছোট ভাই তানজিদকে গ’লাটি’পে হ’ত্যা করে সে। ছোট ভাইকে হ’ত্যা করে নিজেই বাড়িতে এসে বি’ষয়টি জানায়। পরে বাড়ির লোকজন তানজিদকে উ’দ্ধার করে মধুখালী উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন।

মধুখালী উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. কবির সরদার জানান, মৃ’ত অবস্থায় তানজিদকে হাসপাতালে আনা হয়।

তাকে শ্বা’সরো’ধ করে হ’ত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

মধুখালী থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আমিনুল ইসলাম ঘ’টনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, বড় ভাই নাজমুল মা’দকসেবী।

মা’দক কেনার জন্য ছোট ভাইয়ের কাছে টাকা চায় সে। কিন্তু ছোট ভাই টাকা না দেয়ায় তাকে গ’লা টি’পে হ’ত্যা করেছে নাজমুল। নাজমুলকে আ’টক করা হয়েছে। এ ঘ’টনায় মা’মলা প্রক্রিয়াধীন।

দুঃ’সংবাদ: প্রা’ণঘা’তী আরেক ভা’ইরাস ছড়াচ্ছে যু’ক্তরাষ্ট্রে

0

যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ক’রোনাভা’ইরাসে আ’ক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ২০ লাখ ৮৯ হাজার আটশ ২৫ জন এবং মা’রা গেছে এক লাখ ১৬ হাজার ৩৫ জন। ক’রোনা সং’ক্র’মণের দিক থেকে সারাবিশ্বে শীর্ষস্থানে রয়েছে দেশটি।

এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে প্রা’ণঘা’তী আরেক ভাই’রাস ছড়িয়ে যাচ্ছে।

খবরটি জানার পর খা’রাপ লাগলেও, আশার খবর এই যে, সহজে এটি সং’ক্র’মণ ঘটছে না। ভাই’রাসটির নাম ইস্টার্ন ইকুইন ইনসেফালিটিস (ইইই)।

সাধারণত মস্তিষ্কে সং’ক্র’মণ তৈরি করে এই ভাই’রাস। মশার কা’মড়ের মাধ্যমে এটি ছড়িয়ে যায়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ভাই’রাস থেকে সবচেয়ে নি’রাপদে থাকা দরকার ঘোড়ার। যদিও এই রো’গের জন্য ঘোড়ার চি’কিৎসার ও’ষুধ রয়েছে। তবে মা’নুষের জন্য কোনো ও’ষুধ নেই।

চি’কিৎসকরা জানিয়েছেন, ইইই ভাই’রাস মা’নুষের শ’রীরে সেভাবে সং’ক্র’মণ ঘটায় না।

১৯৩৮ সালের পর এটি খুবই কম সংখ্যক ধ’রা প’ড়েছে। ওয়ান জিরো এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, যু’ক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত একশ জনেরও কম মানুষ এই ভাই’রাসে আ’ক্রান্ত হয়েছে।

২০১৯ সালে ইইই ভাই’রাসে যুক্তরাষ্ট্রে ৩৮ জন আ’ক্রান্ত হয়েছিলেন। তাদের মধ্যে ১৫ জন মা’রা গেলেও অন্যরা সেরে উঠেছেন।

তবে আ’শঙ্কার বি’ষয় হলো, ইইই ভাই’রাসে আ’ক্রান্ত হলে মৃ’ত্যুর হার ৩৩ শতাংশ। যারা সেরে ওঠেন, তাদেরও মস্তিষ্কে কিছু সমস্যা থেকেই যায়।

দুই বোনকে যৌ’ন হ’য়রানি, ছাত্রলীগ নেতা গ্রে’ফতার

0

বরিশালের গৌরনদী উপজে’লা সদরে দুই বোনকে যৌ’ন হ’য়রানি ও হা’মলার অ’ভিযোগে করা মা’মলায় ছাত্রলীগ নেতা আরিফ মিয়াকে বৃহস্পতিবার (১১ জুন) গ্রে’ফতার করেছে পু’লিশ।

আরিফ গৌরনদী কলেজ ছাত্র সং’সদের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক ও গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য। মা’মলার বা’দী জানান, তার ছোট বোন বরিশাল নগরীর স’রকারি হাতেম আলী কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্রী।

সে বাড়ি থেকে বের হলে রাস্তায় আরিফ ও তার সহযোগী ব’খাটেদের নিয়ে পথরোধ করে উত্যক্ত করে এবং অ’শ্লীল কথাবার্তা বলে। ছোট বোন বি’ষয়টি পরিবারকে অবহিত করলে আরিফকে তার অভিভাবক ধমক দেন।

এতে আরিফ ক্ষি’প্ত হয়ে বুধবার (১০ জুন) বিকাল ৪টায় ছোট বোনকে নিয়ে সে পৌর সদরের দক্ষিণ বিজয়পুর মৎস্য খামারের সামনে গেলে আরিফ তিন সহযোগীকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ কথা বলে ছোট বোনকে লা’ঞ্ছিত করে।

প্র’তিবাদ করলে আরিফ সহযোগীদের নিয়ে হা’মলা চা’লিয়ে ওড়না টানাটানি করে। কলেজ ছাত্রীর মা অ’ভিযোগ করেন, ব’খাটে আরিফকে সাশিয়ে দেওয়ায় সে বাড়িতে এসে প্রায়ই তার মে’য়েদের ক্ষ’তি করার হু’মকি দিতো।

গৌরনদী মডেল থানার ওসি গোলাম ছরোয়ার বলেন, দুই বোনকে যৌ’ন হ’য়রানি ও হা’মলার ঘ’টনায় ছাত্রলীগ নেতা আরিফ মিয়াকে প্রধান আ’সামি করে তিন সহযোগীসহ ৪ জনের বি’রুদ্ধে মা’মলা হয়েছে।

আরিফকে গ্রে’ফতার করে আ’দালতের মাধ্যমে বরিশাল কেন্দ্রীয় কা’রাগারে পাঠানো হয়। আরিফ এর আগেও একাধিক স্কুল ছাত্রীকে উত্যক্ত ও গৌরনদী গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী তুলে নিয়ে যায় পরে রাজনৈতিক চা’পে ফেরত দেয়।

বড়দের কাছ থেকে বে’য়াদবি শিখেছি : নোবেল

0

বিতর্ক আর নোবেল যেন একে অপরের পরিপূরক। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই বি’তর্কি’ত সব মন্তব্য করে নিজেকে সমালোচিত করেছেন তিনি। কখনো দেশের সিনিয়র শিল্পীদের তুচ্ছতাচ্ছিল্য করা,

কখনো ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে বি’তর্কি’ত মন্তব্য আবার কখনো নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বি’তর্কি’ত পোস্ট।

নেটদুনিয়ায় নানা কীর্তিকলাপের জেরে বারবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছেন বাংলাদেশের সংগীত শিল্পী মঈনুল আহসান নোবেল।

তবে তাতে সাবধান হননি তিনি। পরিবর্তে আবারও বি’তর্কি’ত মন্তব্য করে বসলেন গায়ক। এবার তার দাবি, বেয়াদবি বড়দের কাছ থেকে শিখেছেন তিনি।

সম্প্রতি ‘তামাশা’ নামে সোলো মিউজিক অ্যালবাম রিলিজ করে তার। তবে সেই গানে সাড়া পড়েনি একদম।

প্রশংসার চেয়ে সমালোচনাই হয়েছে বেশি। ভিডিওর নিচে নোবেলকে ‘বেয়াদব’ বলেও কটাক্ষ করেন নেটিজেনরা।

সেই ঘ’টনার পরই দিনকয়েক আগে বাংলাদেশের এক বেস’রকারি চ্যানেলে একান্ত সাক্ষাৎকার দেন নোবেল। প্রশ্নোত্তর পর্ব চলাকালীন নেটিজনদের ‘বেয়াদব’ কটাক্ষ নিয়ে প্রশ্ন করা হয় তাকে। কথা বলতে গিয়ে ‘মাইলস’ ব্যান্ডের শিল্পী শাফিন আহমেদ ও ফুয়াদ আল মুক্তাদিরকে আ’ক্রমণ করে বসেন।

তিনি বলেন, ‘আমি আর কি বেয়াদবি করেছি? শাফিন ভাই তার গান প্রকাশের আগে ফুয়াদ ভাইসহ অনেককেই গালিগালাজ করেছিলেন।

আমি কিন্তু তাদের থেকে অনেক বেশি প্রচারের আলোয় এসেছি। কিন্তু আমার চেয়ে বেয়াদবি বেশি করছে ওনারা। আমি ভাই বেয়াদবি বড়দের কাছ থেকে শিখছি। আমাকে কিছু বলে লাভ নেই।’

জনপ্রিয় বাংলা টেলিভিশন চ্যানেলের রিয়ালিটি শো ‘সারেগামাপা’র মঞ্চ থেকেই খ্যাতির শিখরে উঠতে শুরু করেছিলেন মঈনুল আহসান নোবেল।

তবে শো পরবর্তী সময়ে গানের থেকে বেশি বিতর্কেই জড়িয়েছেন। কিংবদন্তিদের বি’রুদ্ধে অশালীন মন্তব্য থেকে ধ’র্ষণের অ’ভিযোগে বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি।

নরেন্দ্র মোদিকে ‘চাওয়ালা’ বলে সম্বোধ’ন করে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন বাংলাদেশের এই জনপ্রিয় গায়ক। তা নিয়ে ওঠে সমালোচনার ঝড়। তার এমন কার্যকলাপ নজরে আসে র‍্যা’বের। ব়্যাব ২ কার্যালয়ে ডেকে জেরাও করা হয় তাকে।

ধ’র্ষণ বা’ড়ছে, প’র্নহাব ব’ন্ধ করার দা’বি

0

শি’শু যৌ’নতা, না’বালক-না’বালিকা ধ’র্ষণ। আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে না’রী পা’চারের একের পর এক ভিডিয়ো।

ল’কডাউন কালে ন্য’ক্কারজনক ভাবে ফুলে ফেঁ’পে ওঠার জন্য এই দুই বি’ষয়কেই ঢাল করেছে জনপ্রিয় প’র্ন ওয়েবসাইট ‘প’র্নহাব’ (P’ornhub)। আর তা নিয়ে বিগত কিছু দিন ধরেই প’র্নহাবের বি’রুদ্ধে অ’ভিযোগ জানাচ্ছেন নানামহলের মানুষজন। এ বার সরব হলেন না’রীপা’চার বি’রোধী এ’ক্সপার্ট লায়লা মি’কেলওয়েট।

খুব সম্প্রতি জনপ্রিয় এই ওয়েবসাইট চি’রতরে নি’ষিদ্ধ করতে একটি পি’টিশনের মাধ্যমে প’র্নহাব বি’রোধী মানুষজনের সই সংগ্রহ করা শুরু করেছেন লায়লা। সেই পি’টিশনে এক মিলিয়নেরও বেশি মানুষ সমর্থন করেছেন ।

পি’টিশনে বলা হচ্ছে, “বিশ্বের সর্ববৃহৎ এবং সবথেকে জনপ্রিয় প’র্ন সাইট প’র্নহাব, দিনের পর দিন শি’শু ধ’র্ষণ, না’রী পা’চার এবং শি’শু ও না’রীদের অ’পরাধমূলক একাধিক ভিডিয়ো প্রকাশ করার মধ্যে দিয়ে স’স্তার ব্যবসা শুরু করেছে।

আমরা এই প’র্নহাব চিরকালের মতো বন্ধ করে দেওয়া উদ্যোগ নিয়েছি। পাশাপাশিই এই অ’পরাধের জন্য যাঁরা দায়ী, তাঁদেরও উচিত শিক্ষা দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।”

পি’টিশনে আদপে ‘প’র্নহাব’-এর অসৎ উদ্দেশ্যের সবরকম কা’রিকুরি ফাঁ’স করে দেওয়া হয়েছে। যৌ’ন পা’চারের স’ঙ্গে জ’ড়িত থাকার অ’ভিযোগ, এক অ’পহৃত না’বালিকাকে যৌ’ন নি’র্যাতনের শি’কার হওয়ার ভিডিয়ো পোস্ট-সহ একাধিক উদাহরণ উদ্ধৃত করা হয়েছে লায়লা মি’কেলওয়েটের ওই পি’টিশনে।

“১৫ বছরের একটি মে’য়ে বহু দিন ধ’রে নি’খোঁজ থাকার পর তাঁর মা তাকে খুঁ’জে পান, প’র্নহাব-এরই একটি ভিডিয়োর মাধ্যমে। এমনই কমপক্ষে ৫৮টি ধ’র্ষণ এবং শা’রীরিক হে’নস্থার ভিডিও দেখানো হয়েছে প’র্নহাব-এ।

পা’চারকা’রীকেই দেখা যাচ্ছে ১৫ বছরের মে’য়েটিকে ধ’র্ষণ করতে। একটি ন’জরদারির ভিডিয়ো ফু’টেজের মা’রফত এই ত’থ্য আমাদের কাছে এসে পৌঁ’ছয়। গু’রুতর অ’ভিযোগ করা হয়েছে তার বি’রুদ্ধে”, প্র’মাণ স’পক্ষে পি’টিশনে তু’লে ধ’রা হয়েছে এমনই সব চা’ঞ্চল্যকর ত’থ্য।

জ’ঘন্য প’লিসির জ’নক ‘পর্নহাব’-কে নি’ন্দা করে পি’টিশনে আরও বলা হচ্ছে, “মি’লিয়নের পর মি’লিয়ন বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অর্থ রোজগার করছে এই প’র্নসাইট। এই সাইট কমপক্ষে ৪২ বিলিয়ন মানুষ ভিজিট করেন।

প্রতি বছর কমপক্ষে ৬ মিলিয়ন ভিডিয়ো এই প’র্নসাইটে আপলোড করা হয়। কিন্তু এত কিছু করার পরেও বয়সের মাপকাঠি ধার্য করার কোনও সিস্টেম নেই পর্নহাবে। কারও অনুমতি ছাড়াই এই ধরনের নিম্নরুচির, জঘন্য এবং ন্যক্কারজনক ভিডিয়ো দিনের পর দিন আপলোড করেই চলেছে পর্নহাব।” এইসময়

জীবন-মৃ’ত্যুর সন্ধিক্ষণে নাসিম, দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছে পরিবার

0

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্ম’দ নাসিম হাসপাতালে টানা আট দিন লাইফ সাপোর্টে রয়েছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ‘জীবন-মৃ’ত্যুর সন্ধিক্ষণে’ রয়েছেন তিনি। এ অবস্থায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছে তার পরিবার।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপা’চার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া গণমধ্যিমকে বলেন, ‘উনার অবস্থা এখনো সং’কটাপন্ন, অবস্থার তেমন উন্নতি হয়নি, বরং অবনতির দিকে।’

এদিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরিবার মোহাম্ম’দ নাসিমকে সিঙ্গাপুরে নিতে চাইলেও তাঁর বর্তমান শা’রীরিক অবস্থায় সেটা সম্ভব নয় বলে মেডিকেল বোর্ডের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সদস্য জানিয়েছেন।

ওই চিকিৎসক আজ শুক্রবার দুপুরে বলেন, ‘উনার অবস্থা সং’কটাপন্ন, আগের চেয়ে খা’রাপের দিকে।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নাসিম নয় দিন ধরে রাজধানীর শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জ্বর ও কাশির মতো উপসর্গ নিয়ে গত ১ জুন ওই হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর পরীক্ষায় মোহাম্ম’দ নাসিমের দেহে করোনাভাই’রাসের সং’ক্র’মণ ধরা পড়ে।

হাসপাতালে থাকা অবস্থায় গত ৫ জুন সকালে তাঁর ‘ব্রেইন স্ট্রোক’ হলে সেখানেই তাঁর মস্তিষ্কে অ’স্ত্রোপচার করা হয়।

অ’স্ত্রোপচারের পর নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকা মোহাম্ম’দ নাসিমের শা’রীরিক অবস্থা অবনতির দিকে গেলে ১৩ সদস্যের এই মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

নাসিমকে নেওয়া হয় লাইফ সাপোর্টে। এরপর দুই দফা তাঁর করোনাভাই’রাসের নমুনা পরীক্ষায় ফল নেগেটিভ এলেও লাইফ সাপোর্ট থেকে আর তাঁকে বের করা সম্ভব হয়নি।

তিনটি ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ ঘোষণা

0

ক’রোনার হটস্পট গাজীপুরে সং’ক্র’মণ মো’কাবিলায় কালীগঞ্জ পৌরসভার তিনটি ওয়ার্ডকে রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে জে’লা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম।

জে’লা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, সং’ক্র’মণের হার বিবেচনায় এনে জে’লার কালীগঞ্জ পৌরসভার ৪, ৫ এবং ৬ নং ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এছাড়া কাপাসিয়া উপজে’লার রায়েদ ইউনিয়নের ৭টি গ্রামকে ‘গ্রিন জোন’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ‘

রেড জোন’ এলাকায় স’রকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে আজ শুক্রবার (১২ জুন) রাত ১২টা থেকে ব্যবস্থা নেয়া বলে জানিয়েছেন জে’লা প্রশাসক।

সিভিল সার্জন অফিসের হিসাব মতে, জে’লায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৬ জন ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়েছেন।

মোট আ’ক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ১৪৩ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৪৯ জন। সর্বশেষ ত’থ্যানুযায়ী জে’লায় ২০ জন কোভিড-১৯ এ আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা গেছেন।

কাছে আসেননি স্বজনেরা, লা’শ দাফন করল কাশিয়ানী থানা পু’লিশ

0

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজে’লার বলুগ্রামে ক’রোনা উপসর্গ নিয়ে মা’রা যাওয়া আফরোজা বেগম (৪০) নামে এক না’রীর লা’শের কাছে আসেনি আত্মীয়-স্বজনেরা। লা’শ দাফনেও বাঁ’ধা দেয় এলাকাবাসী।

আফরোজা বেগম উপজে’লার বলুগ্রামের মৃ’ত খলিলুর রহমানের মে’য়ে। তার স্বা’মীর বাড়ি সাতক্ষীরা জে’লায়। কিন্তু কেউ লা’শ দাফনে এগিয়ে না এলেও খবর পেয়ে এগিয়ে যান কাশিয়ানী থানা পু’লিশ।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) সন্ধ্যা পৌনে ৭ টার দিকে কাশিয়ানী থানার ওসি মোঃ আজিজুর রহমানের নির্দেশে এএসআই আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে পু’লিশের একটি টিম ছুঁটে যান ওই গ্রামে।

এলাকাবাসীকে বুঝিয়ে কবর খনন শুরু করেন। পরে স্থানীয় মসজিদের এক ইমামকে ডেকে জানাজার নামাজ পড়িয়ে স্থানীয় কবরস্থানে ওই না’রীর লা’শ দাফন করেন তারা। এ ঘ’টনায় এক অন্যন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো কাশিয়ানী থানা পু’লিশ।

কাশিয়ানী থানার এএসআই আসাদুজ্জামান বলেন, ‘মা’রা যাওয়া ওই না’রী দীর্ঘদিন ধরে স্বা’মীর বাড়ি সাতক্ষীরায় কিডনী জনিত রো’গে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে বলুগ্রামে বাবার বাড়িতে নিয়ে আসা হলে বিকালে তিনি মা’রা যান।

ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা গেছে এমন স’ন্দেহে নি’হতের আত্মীয়-স্বজনরা তার কাছে আসেনি এবং গ্রামবাসী লা’শ দাফনে বাঁ’ধা দেন।

খবর পেয়ে আমরা পু’লিশের একটি টিম ওই গ্রামে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে তাদেরকে বুঝিয়ে আমরা নিজেরা কবর খুঁড়ে লা’শের দাফন-কাফন সম্পন্ন করি।’

কাশিয়ানী থানার ওসি মোঃ আজিজুর রহমান ঘ’টনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘আমার যে সব পু’লিশ সদস্যরা ক’রোনা ভ’য়কে উপেক্ষা করে লা’শ দাফনে ছুটে গিয়েছিলেন তাঁদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা জানাই।

পু’লিশ যে জনগণের বন্ধু এটাই তার দৃষ্টান্ত।’ তিনি বলেন আমরা সব সময় মানুষের পাশে আছি, থাকবো।

৫০ হাজার টাকার লোভে চাচিকে খু’ন!

0

জমি বিক্রির টাকার লু’ট করতে খু’ন করা হয় মেহেরপুর জে’লার গাংনী উপজে’লার বামুন্দী এলাকার সুন্দরী বেগম।

সুন্দরী বেগমের একটি জমি আছে যে জমি ২ লাখ ৫০ হাজার টাকায় বিক্রির প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। সুন্দরী ক্রেতার নিকট থেকে ৫০ হাজার টাকা অগ্রিম নিয়েছিলেন।

সেই টাকা ছি’নতাই করতে একজন সহযোগীকে নিয়ে সুন্দরীকে হ’ত্যা করে ভাসুরের ছেলে জামিরুল ইসলাম। শুক্রবার সকালে মেহেরপুর পু’লিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ ত’থ্য তুলে ধরেন পু’লিশ সুপার এস এম মুরাদ আলী।

পু’লিশ সুপার বলেন, জে’লা গো’য়েন্দা শাখার ভারপ্রা’প্ত ওসি জুলফিকার আলীর ত’দন্ত শুরু করেন।

পু’লিশের আধুনিক ত’থ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে ডি’বির একটি চৌকস টিমের সহযোগীতায় হ’ত্যার সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত আ’সামি জামিরুল ইসলামকে (৩৩) আ’টক করা হয়।

জামিরুল ইসলাম কুষ্টিয়া জে’লার দৌলতপুর থানার শিতলাইপাড়ার আবু আফফান এর ছেলে। তবে তার সহযোগী প’লাতক রয়েছে।

তিনি আরো জানান, আ’সামি আ’টকের পর ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় হ’ত্যার সাথে জ’ড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং জমি বিক্রি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টার কথাও স্বীকার করে।

টাকা দিতে না চাইলে জামিরুল তার সহযোগীকে নিয়ে এ হ’ত্যাকান্ডের ঘ’টনা ঘটায়। সুন্দরী বেগমের গ’লায় শাড়ি জড়িয়ে তাকে হ’ত্যা করে।

এ সময় রুস্তুম আলী বাঁ’ধা দিলে হাত কুড়াল দিয়ে তার উপরও হা’মলা চা’লায় আ’সামিরা। দুজনই মা’রা গেছে ভেবে আ’সামিরা সেখান থেকে পা’লিয়ে যায়। তবে এ হ’ত্যাকান্ডের সাথে আরো কেউ জ’ড়িত আছে কিনা সে বি’ষয়ে ত’দন্ত অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মে গাংনীর বামুন্দীতে একটি পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে সুন্দরী বেগম নামের এক ম’হিলার লা’শ উ’দ্ধার করে পু’লিশ। একই ঘরের চৌকির উপর থেকে সুন্দরীর স্বা’মী রুস্তম আলীকে আ’হত অবস্থায় উ’দ্ধার করা হয়।