৩০ জনের বি’ছানায় যেতে বা’ধ্য করেছেন বাবা

0
246

৩০ জনের বি’ছানায় যেতে বা’ধ্য করেছেন বাবা
কাঠের দরজায় লেখা ‘সরি আম্মা’। হাতের লেখাটা ১২ বছরের এক কন্যাশি’শুর। উ’দ্ধারকারীরা তাকে সেফ হোমে নিয়ে যেতে এলে তাড়াহুড়ো করে এতটুকু সে লিখে যেতে পেরেছিল।

গত দুই বছর ধরে দিনের পর দিন যৌ’ন নি’র্যা’তনের শি’কা’র হয়েছে ওই শি’শু। দুই বছরে অন্তত
৩০ জনের বিছানায় যেতে তাকে বা’ধ্য করেছিল তার বাবা। ম’র্মা’ন্তিক এ ঘ’টনা ঘটেছে ভারতের কেরালার মলপ্পুরমে।

তার ও’পর নি’র্যা’তন শুরু হয়েছিল, যখন ব’য়স মাত্র ১০ বছর। বেকার বাবার উপার্জনের সহজ রাস্তা ছিল স্ত্রী ও ১২ বছরের মে’য়েকে যৌ’ন ব্যবসায় নামিয়ে দেয়া। দিনের পর দিন নি’র্যা’ত’নের শি’কা’র হতো স্ত্রী-মে’য়ে, আর কাঁচা টাকায় হাত ভরাত বাবা।

এভাবেই চলছিল।সম্প্রতি জানাজানি হয়ে যাওয়ায় ওই নাবালিকাকে উ’দ্ধার করেছে পু’লিশ। গ্রে’ফ’তার করা হয়েছে মে’য়েটির বাবা এবং বাবার দুই বন্ধুকে। দুই কামরায় ছোট কাঠের ঘরের একটা কামরায় মে’য়ে থাকত। পাশের ঘরে তার বাবা-মা।

যখনই টাকায় টান পড়ত কাউকে না কাউকে মে’য়ের ঘরে ঢুকিয়ে দিত বাবা। বিনিময়ে মিলত কাঁচা টাকা। এ ভাবেই দুই বছর ধরে নি’র্যা’তন চলছিল তার ও’পর। গত শনিবার এই ঘ’টনা সামনে আসে।

শনিবার তাকে ঘর থেকে হোমে নিয়ে যায় চাইল্ডলাইন।বাবা হয়ত মে’য়ের কথা ভাবেনি, মে’য়েকে পণ্য হিসাবে ব্যবহার করেছে, মাও মে’য়ের পাশে দাঁড়ায়নি, কিন্তু সে চলে গেলে পরিবারের উপার্জনের রাস্তা যে একেবারেই বন্ধ হয়ে যাবে, উ’দ্ধারের সময়ও সেটাই সবচেয়ে বেশি ভাবিয়েছে ওই নাবালিকাকে। বাড়ি ছাড়ার আগে তাই ছোট হাত কাঠের দরজায় লিখে দিয়েছে, ‘সরি আম্মা’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here