ভারতের মুখের উপর জবাব দিতে তুরস্ক থেকে পেঁয়াজ আনছে স’রকার

0
1915

ভারতে ইলিশের প্রথম চালান যাওয়ার দিনেই পূর্ব ঘোষণা ছাড়া বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলো দেশটি। এ ঘোষণায় কিছুটা স’মস্যা হলেও গতবারের মতো খা’রাপ পরিস্থিতি হবে না বলে মনে করছে বাণিজ্য ম’ন্ত্রণালয়।

গত বছরের তি’ক্ত অ’ভিজ্ঞতার কারণে বেশ আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে স’রকার। এরই ধারাবাহিকতায় তুরস্ক থেকে চলতি মাস শেষেই আসছে পেঁয়াজ। এমনকি পেঁয়াজের বাজার নি’য়ন্ত্রণে রাখতে ইতোমধ্যে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৩০ টাকায় বিক্রি শুরু করেছে টিসিবি।
এর আগে গত বছরও ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছিল। ফলে দেশে পেঁয়াজের দাম বাড়তে থাকে হু হু করে। সেসময় বাড়তে বাড়তে ৩০০ টাকায় ঠেকেছিল দাম।

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত। তবে এদিন বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইলিশ রপ্তানি হয়েছে ১২ মেট্রিক টন। পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করায় বেনাপোলের ওপারে পেট্রাপোলে আ’টকা পড়েছে পেঁয়াজভর্তি প্রায় ১৫০টি ট্রাক। একই অবস্থা অন্যান্য স্থলবন্দরেও।

ভারতের শুল্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সোমবার কিছু নীতিগত পরিবর্তন হওয়ার কারণে পেঁয়াজের রপ্তানি বন্ধ করা হয়েছে।

এদিকে পেঁয়াজের আম’দানি বন্ধের খবরে নড়েচড়ে বসেছে বেনাপোলসহ বিভিন্ন স্থানের পেঁয়াজের আম’দানিকারক ও ব্যবসায়ীরা। সন্ধ্যার পরপরই খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়ে বর্তমানে ৬৫ থেকে ৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। একমাস আগে দেশের বাজারে দেশি পেঁয়াজের কেজি ৪০ টাকার মধ্যে ছিল। আর ভারতীয় পেঁয়াজের কেজি ছিল ২৫ থেকে ৩০ টাকা।

বাণিজ্য ম’ন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, পেঁয়াজের দাম দ্রু’ত কমাতে জরুরি ভিত্তিতে তুরস্ক থেকে এক লাখ টন পেঁয়াজ আম’দানির সি’দ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়া জিটুজি বৈঠকের পর মিয়ানমার থেকে ফের পেঁয়াজ আম’দানি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। চট্টগ্রাম বন্দরের মাধ্যমে এই পেঁয়াজ জাহাজে করে দেশে আনবেন বেস’রকারি খাতের আম’দানিকারকরা। এছাড়া পেঁয়াজ আম’দানির ও’পর আরোপিত পাঁচ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআরকে) চিঠি দিয়েছে বাণিজ্য ম’ন্ত্রণালয়।

এ বি’ষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বাংলানিউজকে বলেন, ভারত বন্ধ করে দেওয়ায় একটু স’মস্যাতো হবে। তারাতো আজকেই বন্ধ করলো। আমরা বিকল্প মার্কেট হিসেবে অন্যান্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আম’দানির ব্যবস্থা করে ফে’লেছি। তারা আমাদের স’ঙ্গে কোনো ধরনের আলোচনা ছাড়াই হঠাৎ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে। আমরা তুরস্ক, চীন, মিয়ানমার, মিশর থেকে পেঁয়াজ আম’দানির জন্য যোগাযোগ করেছি।

তিনি বলেন, তুরস্ক থেকে আগামী চার পাঁচ মাসের মধ্যে টিসিবির মাধ্যমে এক লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আম’দানি করা হবে। এছাড়া টিসিবি ন্যায্য মূ’ল্যে ট্রাক সেল শুরু করে দিয়েছে। আমাদের কাছেও পর্যা’প্ত পেঁয়াজ আছে। তুরস্ক থেকে কিছু কিছু আসা শুরু হয়েছে। এই মাস শেষে তুরস্ক থেকে পেঁয়াজ চলে আসবে। ধাপে ধাপে ১০ দিন পর পর তিন চার হাজার টন করে আসবে।

আলোচনা ছাড়া ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলো কেন জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ভারতের স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে। এছাড়া ভো’ক্তাদের কথা চিন্তা করে ও বৃষ্টিতে কিছু ক্ষ’তি হয়েছে সম্ভবত সেই কারণেই তারা রপ্তানি বন্ধ করেছে।

স্থলবন্দরে আ’টকে থাকা পেঁয়াজের বি’ষয়ে তিনি বলেন, এ বি’ষয়ে তারা অবশ্যই সি’দ্ধান্ত দেবেন। যেহেতু এলসি করা হয়ে গেছে বর্ডারে শত শত ট্রাক পেঁয়াজ আ’টকে আছে। এই মাসের মধ্যেই সেগুলো আসার সম্ভাবনা আছে।

বাণিজ্য স’চিব ড. জাফর উদ্দীন বলেন, আমরা পেঁয়াজের মূ’ল্যবৃ’দ্ধির বি’ষয়ে যথেষ্ট সচেতন। এবার গতবারের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টির কোনো শঙ্কা নেই।

ক’রোনা ভাই’রাস (কো’ভিড-১৯) মহা’মারি ও বর্তমান বন্যা পরিস্থিতিতে ভোক্তাদের জন্য রোববার থেকে সারাদেশে পণ্য বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ। টিসিবির ট্রাক থেকে প্রতি কেজি পেঁয়াজ পাওয়া যাবে ৩০ টাকায়, যা একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ দুই কেজি কিনতে পারবেন।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলে সে সময় দেশের বাজারে হু হু করে দাম বাড়ে। পেঁয়াজের দাম কেজিতে রেকর্ড ৩০০ টাকা পর্যন্ত উঠে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here