মি’লনের তীব্রতম চূড়ান্ত মুহুর্তে খাট ভে’ঙে বিপর্যয়, আ’ঘাতপ্রা’প্ত ম’হিলা আ’দালতে তুললেন খাট কোম্পানিকে…

0
155

এক নব বিবা’হিত দম্পতির মি’লনের সময়ে শেষ মহুর্তে অর্থাৎ মি’লনের চূড়ান্ত মুহুর্তে হঠাত খাট ভে’ঙে পরে। তখন তাদের স’ঙ্গ’মের সব থেকেও ভালো মুহুর্ত ছিল। সেই সময়ে খাট ভে’ঙে পড়ায় সব ন’ষ্ট হয়ে যায়। খাট ভে’ঙে রীতিমতো আ’ঘাত পায় দুজনেই। ম’হিলাটি মাথায় আর তার স’ঙ্গী কোম’রে আ’ঘাত পায়। শেষ পর্যন্ত তাদের ডাক্তারের কাছে যাওয়া ছাড়া কোন উপায় থাকে না।

কিন্তু এসবের পরে দমে থাকার মানুষ নন সেই ম’হিলা। নিজেকে একটু সামলে নিয়েই পৌঁছে যান আ’দালতে। সেখানে গিয়ে খাট কোম্পানির বি’রুদ্ধে মা’মলা দা’য়ের করেন, তার স’ঙ্গে ক্ষ’তি পূরণ দাবি করেন। অনেক দাম দিয়েই সেই খাট কেনা, কিন্তু প্রথম রাতেই খাটেই এই অবস্থা হবে সেটা তারা কখনোই ভাবেননি।

তারা আ’দালতের কাছে বলেন কিছুদিন আগে তারা ওই খাট কোম্পানিতে যান। কোম্পানির লোকেরা খুব ভালো ব্যবহার করে আর ওই খাটটি তাদের বিক্রি করে। সেদিনই তারা প্রথম সেই খাটে শুয়েছিলেন, আর সেদিনই ঘটে যায় সেই বিশ্রি ঘ’টনা।

ইংল্যান্ডের বার্কশায়ার অঞ্চলের বাসিন্দা ৪৬ বছর বয়েসি ক্ল্যারি বাসবি তার এলাকার একটি আসবাবের কোম্পানির নামে অভিযোগ আনেন। তার খাট সেইখান থেকেই কেনা। কেনার সময় তারা অনেক ভালো ভালো কথা বলে খাট বিক্রি করেছিলেন। কিন্তু প্রথম দিনেই এই অবস্থা।

সেই দম্পতি রাতে স’ঙ্গ’মে লি’প্ত ছিল। স’ঙ্গ’মের চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে হঠাত খাটের এক দিক ভেঙ্গে পড়ে। তারা দুজনেই ওই অবস্থায় নিজেদের ভারসাম্য বজায় রাখতে পারেননি, ফলে দুজনেই আ’ঘাতপ্রা’প্ত হন। তারা বলেন খাটটি প্রথম থেকেই ঠিকঠাক ছিলনা। খাটের দুটি ডিভান ঠিক ভাবে জোড়া ছিলনা বলে দাবি করেন সেই দম্পতি।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম থেকে জানা গেছে যে বাসবি ওই খাট কোম্পানি থেকে প্রায় সাত অঙ্কের মো’টা টাকা ক্ষ’তিপূরণ হিসাবে দাবি করেন। তাদের খাটের দাম ও তাদের নিজেদের শা’রীরিক যা যা ক্ষ’তি হয়েছে তার ক্ষ’তি পূরণ হিসাবে তিনি ওই টাকা দাবি করেছেন। লন্ডন হাইকোর্টের বিচারক এই ঘ’টনাকে অত্যন্ত দুঃখজনক বলেছেন।

বিচারক বিচার করার সময় সেই দম্পতির কাছে জানতে চায় তারা এমন কোন অদ্ভুত পজিশনে স’ঙ্গ’ম করছিলেন যার জন্য এই দূর্ঘ’টনা ঘটে। তারা জানান তাদের পজিশন অদ্ভুত কিছুই ছিলনা। তাদের কথা বিচারকের যুক্তিগ্রাহ্য মনে হয়।

বার্কশায়ার বেড কোম্পানি নামে সেই আসবাব সংস্থার ডিরেক্টর দুঃখ প্রকাশ করেন, তারা ক্ষমাপ্রার্থী। তাদের থেকে দাবি করা সমস্ত ক্ষ’তিপূরণ তারা দিয়ে দেন এবং তাদের সুস্থ ও সুরক্ষিত ভবি’ষ্যৎ জীবনের জন্য কামনা প্রকাশ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here