নিজের বুকের দু’ধ বিক্রি করে মাত্র ৭ মাসে কোটিপতি হয়েছেন এই ম’হিলা, কিভাবে জানলে আপনার মাথা ঘুরে যাবে…

0
136

বাচ্চা হোক বা ব’য়স্ক সকলকেই ডাক্তার দু’ধ খেতে বলেন। কারন হাই প্রটিন বা পুষ্টিকর খাদ্যগু’লির মধ্যে দু’ধ শ্রেষ্ঠতম পর্যায়ে রয়েছে। বিশেষ করে পশ্চিমের দিকে সাধারনত যারা শরির চর্চা করে থাকেন তাদের মধ্যে দু’ধ খাদ্য তালিকার মধ্যে খুব গুরুত্বপূর্ণ। তাদের বিশ্বাস অন্যান্য প্রানিদের দু’ধের থেকে না’রীদের বুকের দু’ধে কিছু বিশেষ পুষ্টি উপাদান রয়েছে।

আর সেই বিশ্বাসের সুযোগ নিয়েই আজ কটিপতি হয়েছেন পশ্চিমের এক ম’হিলা। ভাবছেন এটা কিভাবে সম্ভব ? বুকের দু’ধ কি সত্যিই বিক্রি করা যায় ? আজ তাহলে তুলে ধরবো আপনাদের সামনে এমন এক সত্য যা শুনলে হয়তো আপনার রাতের ঘুম উড়ে যাবে।

রাফেলা ল্যাম্পরুউ নামের এক ম’হিলা যার ব’য়স ২৪ বছর, থাকেন সাইপ্রাসে। ব্রিটিশ সংবাদপত্র ইন্ডিপেন্ডেন্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে মাত্র ৭ মাসের মধ্যে ম’হিলাটি কোটিপতি হয়েছেন নিজের বুকের দু’ধ বিক্রি করে। সেগুলো কিনেছেন বহু বডি বিল্ডাররা।

৭ মাস আগে এক পুত্র স’ন্তানকে জ’ন্ম দেন রাফেলা। জ’ন্ম দেওয়ার পর বাচ্চাটিকে নিয়মিতি দু’ধো খাওয়াতেন তিনি। কিন্তু তিনি লক্ষ্য করেন যে তাকে খাওানোর পরও অনেক দু’ধ ন’ষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। তাই জন্য নিজের বুকের অতিরিক্ত দু’ধ অন্য কাজে লাগাবার কথা ভাবেন তিনি।

অসমর্থ মায়েদের দু’ধ দান করা দিয়ে শুরু তার যাত্রা ঃ যে সমস্ত মায়েরা নিজের বাচ্চাদের দু’ধ খাওয়াতে অসমর্থ ছিল তাদের নিজের দু’ধ দিতে শুরু করেন রাফেলা। তিনি প্রথমে সমাজসেবার মাধ্যমেই এই কাজটি শুরু করেছিলেন। বহু শি’শুকে তিনি তার দু’ধ দান করেছেন।

চা’হিদা বাড়ার সাথে সাথে শুরু হয় ব্যবসা ঃ লোকেরা এই ব্যাপারে জানতে পারে এবং তার দু’ধ কেনার কথা বলায় রাফেলা রাজি হয়ে যান। প্রথমত তিনি লোকাল কিছু মানুষকেই তা বিক্রি করেছিলেন, কিন্তু ধীরে ধীরে ক্রেতার সংখ্যা বাড়ায় তিনি ঠিক করেন যে তা দিয়ে ব্যবসা শুরু করার কথা। অবশেষে তিনি তা বিক্রি করেন।

রাফেলা লিটার হিসেবে বিক্রি করা শুরু করেন তার বুকের দু’ধ। তার বুকের দু’ধ খেয়ে বেশ খুশি হয় প্রচুর কাস্টমার। ফলে আরও বাড়তে থাকে তার দু’ধের সেল, প্রতিদিন অনেক অর্ডার আসে। একটা সময়ের পরে অনলাইনেও নিজের বুকের দু’ধ বিক্রি করা শুরু করেন তিনি। প্রতি লিটার হিসেবে তার বুকের দু’ধের দাম ১ ইউরো, যা ইন্ডিয়ান কারেনসিতে প্রায় ৮০ টাকায় গিয়ে দাড়ায়।

বডি বিল্ডাররা নিয়মিত ভাবে পান করেন তার দু’ধ ঃ রাফেলা দেখেন যে শি’শুর মায়েদের থেকে বডি বিল্ডারদের তার দু’ধের প্রতি বেশী আ’গ্রহ। তারা বলেন যে তার দু’ধে প্রটিনের পরিমান অনেক বেশি, যা অন্যান্য সম্পূরক খাদ্যের থেকে আরও ভালো। বডি বিল্ডাররা নিয়মিত অনলাইনে অর্ডার দিয়ে তার দু’ধ পান করেন। এই দু’ধের চা’হিদা তাদের মধ্যে দিন দিন বেড়েই চলেছে।

পুষ্টিকর দু’ধের জন্য নিয়মিত চেকআপ ঃ দু’ধের পুষ্টিগুণ সবসময় বজায় রাখতে এবং ক্রেতাদের সুরক্ষিত দু’ধ দেবার জন্য তাকে নিয়মিত শ’রীরের চেকআপ করাতেও হয়। ধূমপান ও ম’দ্যপান ছেরে দিয়ে হয়েছে রাফেলাকে। আমরা রাফেলার ভবি’ষ্যতে সুস্থ জীবন কামনা করি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here