সালমানকে কেন ‘মা’নসিক রো’গী’বলেছিলেন হৃত্বিক রোশন, সামনে এলো আসল কারন

0
198

সুশান্ত সিং রাজপুত এর মৃ’ত্যুর পর থেকে বলিউড মাফিয়া গ্যাঙের বি’রুদ্ধে কথা বলছেন অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও। এই মাফিয়া গ্যাং এর মধ্যে সবার আগে নাম উঠে আসে সালমান খানের। বিগত কয়েক দশক থেকেই তার নামে একাধিক অভিযোগ উঠে এসেছে।

কিন্তু হৃত্বিক রোশন এবং সালমান খান এর মধ্যে যে সম্প’র্ক তি’ক্ত হয়েছিল একসময় তা কি জানেন! সালমানের ভি’কটিম সিনড্রোম আছে বলে দাবি করেছিলেন হৃত্বিক।

2000 সালে কহনা পেয়ার হে ছবির পর সালমান খানের সাথে ভালো সম্প’র্ক গড়ে ওঠে তার। কিন্তু গোলমাল শুরু হয় 2010 সালে। ওই বছরই মুক্তি পায় ঐশ্বর্যা এবং ঋত্বিক রোশনের অভিনীত ছবি গুজারিশ। অসাধারণ অভিনয়, বিপুল প্রশংসিত হলেও বক্সঅফিসে ছবিটি মুখ থুবড়ে পড়ে।

বিনোদন :সুশান্তের স্মৃ’তি বাঁচিয়ে রাখতে এই কাজটি করলেন স্বস্তিকা, দেখেনিন সেই ভিডিওসুশান্তের স্মৃ’তি বাঁচিয়ে রাখতে, এ কি করলেন স্বস্তিকা! মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল ভিডিওঅমিতাভ বচ্চনের দুটি বাংলো সিল করে দিলো মুম্বাইয়ের মিউনিসিপাল কর্পোরেশন!বাদ গেল না ছোট আরাধ্যা, মারণ রো’গের প্রকো’পে ঘুম উড়েছে বচ্চন পরিবারেরসুশান্তের মৃ’ত্যু র’হস্য নিয়ে বলিউডের তিন খানের ও’পর চাঞ্চল্যকর প্রশ্ন তুললেন স্বা’মী‘অর্থের লোভেই বিয়ে করেছে বিদেশিকে’, মোনালি ঠাকুরকে নিয়ে নোং’রা মন্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায়
কি করে একটি ছবিতে ই’চ্ছা মৃ’ত্যুকে এত বড় করে দেখানো হলো তা নিয়ে উঠেছিল সমালোচকদের ঝড়।

কিন্তু তার মধ্যে সালমান খান গ্রিসের বক্সঅফিসে খা’রাপ রোজকার দেখে বলেছিলেন “আরে হলে তো মাছি উড়ছিল, কোনো মশাও ছবিটি দেখতে যাইনি।” শুধু এই টুকুই বললে হয়তো সম্প’র্কটা তি’ক্ত হতো না।

কিন্তু এর স’ঙ্গে তিনি বলেছিলেন আরে “কই কুত্তা ভি দেখনে নেহি গায়া।” কোনো সিনেমা খা’রাপ হতেই পারে কিন্তু একজন অভিনেতা হয়ে কিভাবে সালমান এরকম বললেন তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অনেকেই।

এই বি’ষয়ে প্রথমে হৃত্বিক রোশন কিছু বলেননি। এরপর যখন বিখ্যাত টিভি শো কফি উইথ করণ-এ তিনি আসেন তখন তাকে প্রশ্ন করা হয় রিয়েল লাইফে যদি আপনি সুপার হিরো হয়ে যান তাহলে সালমান খানের কোন খা’রাপ গুণটি সরিয়ে দিতে চাইবেন? উত্তরে হৃত্বিক রোশন বলেছিলেন সালমান খানের মধ্যে ভি’কটিম সিনড্রোম কাজ করে।

যার ফলে উনি ভাবেন তাকে কেউ ভালবাসে না। একজন সফল অভিনেতা হয়ে কখনো অন্য অভিনেতার বক্স অফিস কালেকশন নিয়ে কুৎসিত মন্তব্য করা উচিত নয়। কারণ যখন কেউ সাফল্যের শিখরে পৌঁছায় তখন দায়িত্ব আরো বেড়ে যায়। যদিও সময়ের সাথে সেই তি’ক্ততা অনেকটাই ফিকে হয়েছে দুজনের মধ্যে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here