শান্তিতে ঘুমাতে চাইলে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করবেন না, মা’র্কিন প্রশাসনকে কিমের বোন

0
263

উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের বোন যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র যেন দুর্গন্ধ সৃষ্টি না করে। কোরিয়া নিয়ে নীতি নির্ধারণের ব্যাপারে মা’র্কিন প্রে’সিডেন্ট জো বাইডেনের প্রস্তুতিকে কেন্দ্র করে তিনি এ কথা বলেছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ ত’থ্য জানিয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সম্প্রচার মাধ্যমে কিম ইয়ো জং যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার যৌথ সে’না মহড়ার সমালোচনা করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কর্মকর্তারা সিউলে পৌঁছার একদিন আগে তিনি এ ধরনের মন্তব্য করলেন।

এদিকে মা’র্কিন প্রশাসন বলছে, উত্তর কোরিয়ার সাথে কূটনৈতিক যোগাযোগের জন্য কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রচেষ্টা চলছে।

রোডং সিনমুন পত্রিকা কিম জং উনের বোনকে উদ্ধৃত করে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রশাসনকে পরামর্শ দিচ্ছি- যুক্তরাষ্ট্র সমুদ্রের ওপার থেকে আমাদের ভূখণ্ডে বারুদের গন্ধ ছড়ানোর চেষ্টা চা’লায়। নতুন প্রশাসন যদি চার বছর শান্তিতে ঘুমাতে চায়, তাহলে শুরুতেই দুর্গন্ধ সৃষ্টি করা থেকে তাদের বিরত থাকতে হবে।

১১৩ কেজি ওজনের মাছ ধরে ভাগ্য ফিরেছে, লক্ষপতি হলেন অভাবী জে’লে!
কুড়িগ্রামের চিলমা’রী উপজে’লায় ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে স্থা’নীয় জে’লের জালে ধ’রা প’ড়েছে ১১৩ কেজি ওজনের একটি বিশাল আকৃতির বাঘাইড় মাছ। মাছটি বিক্রি হয়েছে ১ লাখ ১৩ হাজার টাকায়।একটি মাছেই ভাগ্য ফি’রেছে ঋ’ণগ্রস্ত অভাবী জে’লে আসাদুলের।
বুধবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে চিলমা’রী উপজে’লার স্থা’নীয় মানুষজন এক হাজার টাকা কেজি দরে ভাগাভাগি করে মাছটি কিনে নেন।

এর আগে সকালে ব্রহ্মপুত্র নদে জে’লে আসাদুল ইসলামের জালে মাছটি ধ’রা প’ড়ে।জে’লে আসাদুল আবেগাপ্লুত হয়ে বাংলানিউজকে বলেন, আমি ঋ’ণগ্রস্ত মানুষ। তাই আল্লাহ আমা’র দুঃখ-দুর্দশা ঘোঁচাতে মাছটি জালে পাঠিয়েছেন। মাছটি বিক্রি করে ঋ’ণের অর্থ প’রিশোধ করে স্ত্রী-সন্তাদের নিয়ে এখন দু’বেলা দু’মুঠো খেয়ে পরে শান্তিতে থাকতে পারবো।

ক্রেতাদের একজন চিলমা’রী উপজে’লার থা’নাহাট ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মি’লন বাংলানিউজকে বলেন, বাঘাইড় মাছটি অনেক বড়। সচরাচর এতবড় মাছ চোখে প’ড়ে না। বাপ-দাদাদের মুখে শুনেছি ৪/৫ মণ ওজনের বিশাল সাইজে’র মাছ পাওয়া যেত ব্রহ্মপুত্রে। হ’ঠাৎ করেই বড় সাইজে’র মাছটি পাওয়ায় দুই কেজি কিনেছি।

চিলমা’রী উপজে’লা মৎস্য ক’র্মক’র্তা মো. বদরুজ্জামান মিয়া বলেন, প্রতিবছরই ৩৫-৪০টি বাঘাইড় মাছ ব্রহ্মপুত্র নদে ধ’রা প’ড়ে। ১১৩ কেজি ওজনের বেশ বড় একটি বাঘাইড় মাছ ধ’রা পড়ায় স্থা’নীয় একটি বাজারে ১ লাখ ১৩ টাকায় মাছটি বিক্রি হয়েছে। জে’লায় এবছর ধ’রা পড়া সর্বোচ্চ সাইজে’র মাছটি স্থা’নীয়রা ১ হাজার টাকা কেজি দরে কিনে নিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here