পরকীয়া প্রে’মিকের সাথে পালালেন ৩ স’ন্তানের জননী

0
149

সিলেটের বিশ্বনাথে স্বা’মীর বাড়িতে তিন স’ন্তান রেখে পরকীয়া প্রে’মিকের সাথে পা’লিয়ে যাওয়ার প্রায় পাঁচ মাস পর প্রে’মিকসহ গৃহবধূকে গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ।তারা হলেন-

বিশ্বনাথ উপজে’লার লামাকাজী ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী লাকী বেগম (২৮) ও মৌলভীবাজার জে’লার সদর থানার শেরপুর গ্রামের সাবু মিয়ার ছেলে সাজু মিয়া (৩০)।

পু’লিশ জানায়, ২০০৬ সালে বিশ্বনাথ উপজে’লার সোনাপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের (৪৮) সাথে লাকী বেগমের বিয়ে হয়।

তাদের সংসারে তিনটি স’ন্তান রয়েছে। জীবিকার তাগিদে ২০১৮ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাড়ি জমান নজরুল। পরে মোবাইল ফোনে দুই স’ন্তানের জনক সাবু মিয়ার সাথে পরিচয় হয় লাকী বেগমের। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প’রকীয়া প্রেমের সম্প’র্ক গড়ে উঠে।

প্রেমের টানে বাড়িতে তিন স’ন্তানকে রেখে স্বা’মীর দেয়া ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ পাঁচ লাখ টাকা নিয়ে চলতি বছরের ২৫ মে প্রে’মিক সাজুর হাত ধরে বাড়ি থেকে পা’লিয়ে যান লাকী বেগম।

এরপর থেকে সাজু মিয়ার বাড়িতে তার সাথে সংসার করতে থাকেন লাকী বেগম।এদিকে, সম্প্রতি প্রবাস থেকে দেশে ফিরে সাজু ও লাকীর

বি’রুদ্ধে মা’মলা করেন নজরুল ইসলাম। পরে সোমবার রাতে পু’লিশ তাদের গ্রে’প্তার করে।বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম মুসা জানান, গ্রে’প্তার সাজু মিয়া ও লাকী বেগমকে মঙ্গলবার আ’দালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন=ভোলায় ইলিশ শি’কারের নি’ষেধাজ্ঞার ২২ দিনে ৬০৬ জন জে’লেকে আ’টক করেছে মৎস্য বিভাগ,

নির্বাহী ম্যা’জিস্ট্রেট, কোস্টগার্ড, নৌপু’লিশ, পু’লিশ ও র‌্যা’ব সদস্যরা।ভ্রাম্যমাণ আ’দালতের মাধ্যমে এদের ৩৮৫ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কা’রাদ’ণ্ড ও ২২১ জনকে ১০ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আ’দালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যা’জিস্ট্রেট, সাত উপজে’লার নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)।অ’ভিযানে এক হাজার ৮১ কেজি মা ইলিশ ও

ছয় লাখ ২১ হাজার মিটার জাল জ’ব্দ করা হয়েছে বলে ভোলা জে’লা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম আজহারুল ইসলাম নিশ্চিত করেন।তিনি জানান, নি’ষেধাজ্ঞার সময় জে’লেদের কাছ থেকে জ’ব্দকৃত নৌকা, ট্রলার ও স্পিডবোট পাঁচ লাখ ৫৪ হাজার টাকায় নিলাম দেয়া হয়।এছাড়াও নি’ষেধাজ্ঞার সময় মা ইলিশ ডিম ছেড়েছে এবং অ’ভিযান সফল হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।উল্লেখ্য,

ইলিশের প্রজনন মৌসুম হওয়ায় ভোলার সাত উপজে’লার মেঘনা-তেঁতুলিয়াসহ বিভিন্ন নদীতে গত ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত ইলিশ শি’কার, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণের ও’পর নি’ষেধাজ্ঞা জারি করে স’রকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here