নিজেকে পু’ড়িয়ে ‘স্বা’মীকে ভালোবাসার প্র’মাণ’ দিলেন অ’ন্তঃস’ত্ত্বা স্ত্রী!

0
69

‘তুই আমাকে কতটুকু ভালোবাসিস তার প্র’মাণ দিতে পারবি? তাহলি নিজের গা’য় কেরোসিন ঢেলে আ’গুন ধ’রায় দেতো কিরকম পারিস?’ স্বা’মী প্রদীপের এমন চ্যালেঞ্জের পর ভালোবাসার প্র’মাণ দিতে নিজের গা’য়ে আ’গুন ধ’রিয়ে দেন ৫ মাসের অস্তঃস’ত্ত্বা গৃহবধূ পুতুল রাণী।

ভালোবাসার প্র’মাণ দিতে পুতুল গা’য়ে আ’গুন ধ’রালেও সে আ’গুন নেভানোর চে’ষ্টা করেনি ভালোবেসে বিয়ে করা স্বা’মী প্রদীপ। ভালোবাসার এ আ’গুনে পু’ড়েই বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎ’সাধীন অ’বস্থায় মৃ’ত্যু হয় পুতুল রাণীর।

এ ত’থ্য বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জানান পুতুলের কাকা সঞ্জয় কুমার। তিনি বলেন, ‘মৃ’ত্যুর আগে পুতুল এ কথাগুলো তাকে বলে গেছে’। তিনি এ ঘ’টনার বি’চার দা’বি করে বলেন, ‘তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝ’গড়া-মা’রামা’রি হতো।

গতরাতেও তাদের মধ্যে ঝ’গড়া হয়।তারপর প্রদীপের ভালোবাসার প্র’মাণ দিতে আমার ভাইয়ের মে’য়ে এ ঘ’টনা ঘ’টায়। অথচ গায়ে আ’গুন ধ’রানোর পর প্রদীপ তাকে বাঁ’চানোর চে’ষ্টা ক’রেনি। আমি এর বি’চার চাই। এ ঘ’টনায় ঝিকরগাছা থা’নায় আমি অ’ভিযোগ দিয়েছি’।

যশোরের ঝিকরগাছা উপজে’লার কাউরিয়া দাসপাড়ায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টায় আ’গুনে দ’গ্ধ হয় পুতুল রানী (১৬) নামে ৫ মাসের অ’ন্তঃস’ত্ত্বা। এ ঘ’টনায় তার স্বা’মী প্রদীপও (২০) দ’গ্ধ হয়েছে।

প্রথমে প্রতিবেশীরা তাদের উ’দ্ধার করে ঝিকরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।পরে পু’লিশ খ’বর পেয়ে তাদের যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

দ’গ্ধ পুতুল রাণীর অ’বস্থা গু’রুতর হওয়ায় চিকিৎ’সকরা তাকে ঢাকায় রেফার করে। তবে তার স্বজনরা তাকে নিয়ে যান খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

সেখানে তার মৃ’ত্যু হয়। প্রদীপের বি’রুদ্ধে পু’ড়িয়ে হ’ত্যার অ’ভিযোগ তো’লায় পু’লিশ তাকে আ’টক দেখিয়েছে। প্রদীপ পু’লিশ প্র’হরায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎ’সাধীন।

যশোর সদর হাসপাতালের চিকিৎ’সক ডা. আহম্মে’দ তারেক শামস চৌধুরী জানান, রাত ৩টার দিকে দ’গ্ধ দম্পতিকে হাসপাতালে আনা হয়।পুতুলের অ’বস্থা গু’রুতর হওয়ায় রাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার করা হয়।

এ ছাড়া আ’হত প্রদীপের দুই হাত, চোয়াল ও মাথার চুল পু’ড়ে গেছে। তাকে সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎ’সা দেওয়া হচ্ছে। এদিকে, হাসপাতালে চিকিৎ’সাধীন প্রদীপ জানান, পারিবারিক বি’ষয় নিয়ে পুতুলের সাথে ঝ’গড়া হয়।

একপর্যায়ে পুতুল ঘরের বাইরে যেতে চাইলে তিনি বা’ধা দেন এবং দরজা আ’টকে শুয়ে পড়েন। পুতুল ক্ষি’প্ত হয়ে পাশের ঘরে গিয়ে নিজের শ’রীরে কেরোসিন ঢেলে আ’গুন লাগিয়ে দেয়। তিনি আ’গুন নেভানোর চে’ষ্টা করেন। এতে তার দুই হাত পু’ড়ে যায়। পরে প্রতিবেশীরা তাদের উ’দ্ধার করে হাসপাতাল ভর্তি করে।

প্রদীপ আরো জানান, তিনি পুতুলকে খুব ভালোবাসেন। একবছর আগে ই’সলাম ধ’র্ম ত্যা’গ করে সনাতন ধ’র্ম গ্রহণ করে তিনি পুতুলকে বিয়ে করেছিলেন, আ’ল-আমিন ত্যা’গ করে গ্রহণ করেছিলেন প্রদীপ নাম।

পুতুলের গা’য়ে আ’গুন ধ’রিয়ে দেওয়ার বি’ষয়ে প্রতিবেশীদের অ’ভিযোগ মি’থ্যা দা’বি করেন তিনি।পেশায় সুইপার প্রদীপ ঝিকরগাছা রেলস্টেশন এলাকার মৃ’ত আলী আহম্ম’দের ছেলে।

ঝিকরগাছা থা’নার ওসি আব্দুর রাজ্জাক সাংবাদিকদের বলেন, আমরা তো শুধু ছেলের বক্তব্য শুনেছি। সে দা’বি ক’রেছে তার স্ত্রী নিজে গা’য়ে আ’গুন দিয়েছে। মে’য়ের বক্তব্য পেলে বি’ষয়টি পরিষ্কার হবে। প্রদীপকে আ’টক দেখিয়ে পু’লিশ পাহারায় চিকিৎ’সা দেওয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here