মা হলো ধ’র্ষণের শি’কার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী!

0
16

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজে’লার বুড়িমারী ইউনিয়নের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীটি (১২) অবশেষে পুত্রস’ন্তান জ’ন্ম দিয়েছে। ওই ছাত্রীটি স্বাভাবিকভাবে স’ন্তান প্রসবে ঝুঁ’কি থাকায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে অ’স্ত্রোপচার করার পরামর্শ দেন।

মে’য়েটি গত সোমবার (৫ অক্টোবর) রংপুরের বেস’রকারি রোজ ক্লিনিকে অ’স্ত্রোপচারের মাধ্যমে একটি পুত্রস’ন্তান জ’ন্ম দেয়। পরিবার অতিদরিদ্র হওয়ায় বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাঈদ নেওয়াজ নিশাত ওই প্রসূতি মায়ের যাবতীয় ব্যয় বহন করেন। ধ’র্ষণের শি’কার হয়ে ওই চতুর্থ শ্রেণির শি’শুটি আরেকটি শি’শুর জ’ন্ম দেওয়ায় এলাকাজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, বুড়িমারী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের তহিদুল ইসলামের ছেলে ওয়াজেদ আলী (৩৫) চতুর্থ শ্রেণির ওই শি’শুটিকে একাধিকবার ফুঁসলিয়ে ধ’র্ষণ করেন। এ ঘ’টনায় মে’য়েটির (ছাত্রীর) বাবা বা’দী হয়ে গত ২৬ জুলাই পাটগ্রাম থানায় না’রী ও শি’শু নি’র্যাতন দ’মন আইনে ওয়াজেদ আলীকে আ’সামি করে একটি মা’মলা দা’য়ের করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা ও মা’মলার বিবরণ সূত্রে জানা গেছে, বুড়িমারী ইউনিয়নের ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের ইসলামপুর এলাকার একটি স’রকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীর (১২) দিনমজুর বাবা-মা পাথর ভাঙার মেশিনে কাজ করতেন। বাড়িতে অন্য কেউ না থাকার সুযোগে প্রতিবেশী একই ইউনিয়নের দুই স’ন্তানের জনক ওয়াজেদ আলী দীর্ঘদিন ধরে ফুসলিয়ে ও বিভিন্ন ভ’য়-ভীতি দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধ’র্ষণ করেন। এতে মে’য়েটি অ’ন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে।

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত জানান, ধ’র্ষিতা মে’য়েটি মা হয়েছে জেনেছি। আমাদের পক্ষ থেকে আ’সামি গ্রে’প্তারের সর্বোচ্চ চেষ্টা অ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here