আসামে বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে স’রকারি মাদরাসাগুলো, আসামেই প্র’তিবাদ শুরু

0
59

ভারতের আসাম রাজ্যের রাজ্য স’রকার সকল মাদরাসা বন্ধ করে দেয়ার সি’দ্ধান্ত নিয়েছে। বৃহস্পতিবার আসামের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা ঘোষণা দিয়ে বলেন, রাজ্য স’রকার আসামের সমস্ত স’রকারি মাদরাসা বন্ধ করে দেবে। কারণ, জনসাধারণের অর্থ দিয়ে ধর্মীয় শিক্ষা দেয়ার বি’ষয়টি গ্রহণযোগ্য নয়। তিনি জানান, আগামী মাসে এই সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। মাদরাসা বন্ধ করা হলেও স’রকারি ‘টোল’গুলো (হিন্দু ধর্ম শিক্ষা দেয়ার প্রতিষ্ঠান) বন্ধ করার বি’ষয়ে কিছু জানানো হয়নি। -টিওআই।

গত ফেব্রয়ারিতে শর্মা ঘোষণা দিয়েছিলেন যে, স’রকার কেবলমাত্র স’রকার পরিচালিত মাদরাসাগুলো নয়, স’রকারি ‘টোল’ বন্ধ করার পরিকল্পনাও করেছে। তারপরে তিনি এই সি’দ্ধান্তকে ন্যায্য দাবি করে বলেন, ধর্ম নিরপেক্ষ দেশে স’রকারি তহবিল দিয়ে ধর্মীয় শিক্ষা দেয়া যায় না। তবে বৃহস্পতিবার শর্মা বলেন, কোনও তাৎপর্যপূর্ণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে স’রকারি অর্থায়নে কাজ করতে দেয়া হবে না। আমরা এই বি’ষয়ে নভেম্বর মাসে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করব। তবে বেস’রকারিভাবে চালিত মাদরাসাগুলো সম্প’র্কে আমাদের কিছু বলার নেই। তিনি বলেন,

স’রকারি টোলের বি’ষয়টি আলাদা। টোলগুলোর বি’ষয়ে অ’ভিযোগ রয়েছে এগুলো স্বচ্ছ নয়। এই বক্তব্যের পরপরই, এআইইউডিএফ সুপ্রিমো এবং লোকসভার সাংসদ বদরুদ্দীন আজমল বলেন, বিজেপি নেতৃত্বাধীন রাজ্য স’রকার যদি স’রকার পরিচালিত মাদরাসাগুলো বন্ধ করে দেয় তবে তার দল আগামী বছরের শুরুর দিকে বিধানসভা নির্বাচনে ক্ষ’মতায় আসার পরে সেগুলো আবার খুলে দেবে।

তিনি বলেন, আপনি মাদরাসা বন্ধ করতে পারবেন না। বর্তমান স’রকার যদি এগুলো জো’র করে বন্ধ করে দেয়, তবে আমরা ক্ষ’মতায় আসার পরে, ৫০-৬০ বছরের পুরানো এই মাদরাসাগুলো পুনরায় চালু করার বি’ষয়ে মন্ত্রিসভায় সি’দ্ধান্ত নেব।

প্রস’ঙ্গত, আসামে ৬১৪ টি স’রকারি ও প্রায় ৯০০ টি বেস’রকারি মাদরাসা রয়েছে। যার প্রায় সবই জমিয়ত উলামা দ্বারা পরিচালিত হয়, অথচ প্রায় ১০০ টি স’রকারি সংস্কৃত টোল এবং ৫০০ এর বেশি বেস’রকারি বিদ্যালয় রয়েছে। রাজ্য মাদরাসাগুলোতে স’রকার বার্ষিক প্রায় তিন কোটি থেকে চার কোটি রুপি এবং সংস্কৃত টোলগুলোতে বছরে প্রায় এক কোটি রুপি ব্যয় করে।

দু’বছর আগে, রাজ্য স’রকার দুটি নি’য়ন্ত্রণকারী বোর্ড – রাজ্য মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড এবং আসাম সংস্কৃত বোর্ডকে বাতিল করে দেয়। এরপরে, মাদরাসাগুলোকে আসামের মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড (শেবা) এবং সংস্কৃত টোলগুলোকে কুমার ভাস্কর ভার্মা সংস্কৃত ও প্রাচীন বিদ্যা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আনা হয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here