অপুর স’ঙ্গে এক বাসায় না থাকার কারন সাফ জানালেন শাকিব

0
20

গত ২৭ সেপ্টেম্বর ছিল ঢালিউডের ‘স্টার কিড’ হিসেবে পরিচিত শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের একমাত্র পুত্র আব্রাম খান জয়ের চতুর্থ জ’ন্ম’দিন। দিনটিকে ঘিরে এবার কোনও আয়োজন ছিল না।

কারণ, কিছুদিন আগেই মাকে হা’রান অপু বিশ্বাস। তাই ছেলেকে নিয়ে বগুড়ায় অবস্থান করছেন অপু। নানির মৃ’ত্যুতে জয়ের জ’ন্ম’দিনও এবার ছিল সাদামাটা। এমনকি বাবা শাকিব খানও এবার জ’ন্ম’দিনে ছেলেকে কাছে পাননি।

১০ বছর গো’পনে সংসার করার পর ২০১৮ সালে ছেলেকে কোলে নিয়ে গণমাধ্যমের সামনে আসেন অপু। ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকাই ছবির এ তারকা দম্পতির বাস্তবজীবনেও বিচ্ছেদ হয়।

অপুর স’ঙ্গে শাকিবের ছাড়াছাড়ি হলেও বাবার দায়িত্ব ঠিকই পালন করেন শাকিব। মাঝেমধ্যেই সুযোগ পেলে ছেলেকে দেখতে যান। কোলে নিয়ে আদর-সোহাগ করেন আদরের পুত্রকে।

কিন্তু অপুর স’ঙ্গে ডিভোর্সের কারণে বাপ-ছেলের এক ছাদের নিচে থাকা হয় না। ছেলের জ’ন্ম’দিনে সে কথা লিখেই সামাজিক মাধ্যমে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন শাকিব।

সেখানে শাকিব লিখেছিলেন- ‘আমার এই ছোট্ট জীবনে ভালোবাসা, সম্মান, সম্মাননা সবকিছু পেয়েছি। আলহাম’দুলিল্লাহ এখন পর্যন্ত আমার জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন তুমি। আমার ‘জয়’ বাবা। ইনশাআল্লাহ একদিন তুমি আমার চেয়েও সফল এবং অনেক ভালো একজন মানুষ হবে।

ছাড়িয়ে যাবে বাবার স্বপ্নের সকল সীমানাকেও। তোমার চলার পথে বাবা আমৃ’ত্যু ছায়া হয়ে পাশে থাকবে, যেমনটা এখনও আছে। এক চ’রম বাস্তবতার কারণে হয়তো তুমি আমি সবসময় এক ছাদের নিচে থাকতে পারছি না, কিন্তু আমরা ঠিকই আছি ভালোবাসা আর সুরক্ষার ছায়ায় ও মায়ায়। তোমাকে আমি সবসময় এবং আজীবন ভালোবাসি বাবা।’

এদিকে ছেলের জ’ন্ম’দিনে কোনও আয়োজন করতে না পারায় অপু বিশ্বাসও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন।

অপু লিখেছিলেন- “বাবা এবার তোমার জ’ন্ম’দিনের কোন আয়োজন-ই আমি করতে পারলাম না, তোমার দিদা তোমার পাশে নেই, আমরা আর কখনো তোমার দিদার দেখা পাবো না। আমি তোমার মা হিসেবে তোমাকে অনেক অনেক আশীর্বাদ করি, তোমার দিদার আশা পূরণ করে যেন আমি তোমাকে মানুষের মতো মানুষ করতে পারি।

আপনারা যারা যারা আমার জয়কে ভালবাসেন তারা সবাই জয়ের জন্য অনেক অনেক আশীর্বাদ করবেন, জয় যেন মানুষের মতো মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারে । এটাই হবে জয়ের জন্য এবারের জ’ন্ম’দিনের অমূ’ল্য উপহার ।
-অপু বিশ্বাস”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here