সিগারেটের প্যাকে’টে ই’য়া’বা দিয়ে ফাঁ’সানোর সময় হাতেনাতে ধরা পু’লিশের এএসআই!

0
56

সোর্সের মাধ্যমে ৫ পিস ই’য়া’বা ধ’রিয়ে দিয়ে বাংলাদেশ টোব্যাকো কোম্পানির (বিটিসি) এক কর্মচারীকে গ্রে’ফ’তারের চে’ষ্টা করার সময় জনতার হাতে আ’টক হয়েছেন পু’লিশের এক এএসআই। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রংপুর নগরীর ধাপ চেকপোস্ট এলাকায় এ ঘ’টনা ঘটে। পরে পু’লিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘ’টনাস্থলে এসে আ’টক পু’লিশ কর্মকর্তাকে উ’দ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। রংপুর মেট্রোপলিটন পু’লিশের অতিরিক্ত উপ পু’লিশ কমিশনার (অ’পরাধ) শহিদুল্লা কাওছার বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পু’লিশ, এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রংপুর নগরীর ধাপ চেক পোস্টের কাছে ডেলিশিয়া হোটেলে বাংলাদেশ টোব্যাকো কোম্পানির মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একটি সভা চলছিল। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে আরিফুল ইসলাম রকি নামে চাকরিচ্যুত এক কর্মচারী সভায় উপস্থিত বিটিসির সুপারভাইজার রাজুকে মোবাইল ফোনে বাইরে আসতে বলে।

রাজু বাইরে আসার পরই রকি রাজুর হাতে একটি সি’গারে’টের প্যাকেট দেয়। স’ঙ্গে স’ঙ্গে রংপুর মেট্রোপলিটন পু’লিশের এএসআই আবু সায়েম বিটিসির কর্মচারী রাজুকে ধরে ফে’লে এবং তাকে ই’য়া’বা রাখার দায়ে গ্রে’ফতার করা হলো বলে জানান।

ঘ’টনা জানাজানি হলে সভায় উপস্থিত থাকা বিটিসির কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আশেপাশের লোকজন ঘ’টনাস্থলে এসে পু’লিশের এএসআই আবু সায়েমকে ঘিরে ধরে ইয়াবা দিয়ে ফাঁ’সানোর অভি’যোগ এনে বি’ক্ষো’ভ করে। এ সময় বি’ক্ষু’ব্ধ জনতা ওই পু’লিশ কর্মকর্তাকে গ্রে’ফতার করার দাবি জানায়। এক পর্যায়ে ওই পু’লিশ কর্মকর্তাকে হোটেল ডেলিশিয়ার ভে’তরে নিয়ে গিয়ে আ’টকে রাখে।

খবর পেয়ে মেট্রোপলিটন পু’লিশের অতিরিক্ত উপ-পু’লিশ কমিশনার শহিদুল্লা কাওছারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘ’টনাস্থলে আসেন। তারা পুরো ঘ’টনা শুনে ত’দন্ত করে দায়ীদের বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আ’শ্বাস দিয়ে জনতার হাতে আ’টক পু’লিশ কর্মকর্তা আবু সায়েমকে উ’দ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

উপ-পু’লিশ কমিশনার শহিদুল্লা কাওছার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পুরো বি’ষয়টি আমরা ত’দন্ত করে দেখছি। ত’দন্তে কেউ দায়ী হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here