যে কারণে বাংলাদেশ ছাড়লেন তৌকীর-বিপাশা

0
80

বাংলাদেশের মায়া ছাড়ছেন অভিনয়শিল্পী দম্পতি তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াত। স্থায়ীভাবে বসবাস করার প্রস্তুতির জন্য স’ন্তানদের নিয়ে তারা এরই মধ্যে মা’র্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে গেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হওয়ার পরিকল্পনা অবশ্য তৌকীর-বিপাশা দম্পতি নিয়েছেন আরও আগেই। সেই লক্ষ্যে বিপাশা হায়াত গত মার্চে ক’রোনাভা’ইরাসেের প্র’কোপ শুরুর আগেই যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। দুজনেই বলছেন, মূ’লত স’ন্তানদের লেখাপড়ার স্বার্থেই তারা দেশ ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হওয়ার চূড়ান্ত সি’দ্ধান্ত নিয়েছেন।

অন্যদিকে ক’রোনার প্র’কোপ একটু কমার পর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লাইট চালু হলে গত সেপ্টেম্বরে দুই স’ন্তানকে নিয়ে তৌকীর আহমেদ বিপাশার স’ঙ্গে যোগ দেন। তারা বর্তমানে নিউ ইয়র্কে থাকছেন। এই দম্পতির দুই স’ন্তান— মেয়ে আরিশা আহমেদ ও ছেলে আরীব আহমেদ।

তৌকীর আহমেদ বলেন, ‘ছেলেমে’য়েদের পড়ালেখার কারণেই আমরা যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছি। এখন ওদের স্কুলে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করবো। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে থাকার জন্য যেসব শর্ত আছে, সেগুলো পূরণ করার চেষ্টা করবো।’

এই অভিনেতা বলেন, ‘অল্প সময়ের মধ্যেই আবার আমি দেশে চলে আসবো। যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ যাওয়া-আসার মধ্যেই থাকবো। তবে বিপাশা স’ন্তানদের স’ঙ্গে সেখানেই স্থায়ী হবেন।’

আশির দশকের শেষের দিকে তৌকীর আহমেদের অভিনয় জীবনের শুরু হয়। নাটক ও চলচ্চিত্র দুই মাধ্যমেই তিনি অভিনয় করেন। পরবর্তীতে লন্ডনের রয়্যাল কোর্ট থিয়েটার থেকে মঞ্চ নাটক পরিচালনার প্রশিক্ষণ গ্রহণ এবং নিউইয়র্ক ফিল্ম একাডেমি থেকে চলচ্চিত্রে ডিপ্লোমা করে তিনি নাট্য ও চলচ্চিত্র পরিচালনা শুরু করেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যু’দ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘জয়যাত্রা’ পরিচালনা করে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।

তৌকির ১৯৯৯ সালের ২৩ জুলাই জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিপাশা হায়াতকে বিয়ে করেন। গাজীপুরের শ্রীপুরে প্রায় ১০ বিঘা জমির ও’পর তৌকির- বিপাশা দম্পতি গড়ে তোলেন ‘নক্ষ’ত্রবাড়ি রিসোর্ট ও কনফারেন্স সেন্টার’।

১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ জ’ন্ম নেওয়া বিপাশা হায়াত টিভি অভিনেতা আবুল হায়াতের কন্যা। তার ছোট বোন নাতাশা হায়াতও একজন টিভি অভিনেত্রী। নব্বইয়ের দশকে জনপ্রিয় অনেক টিভি নাটকে অভিনয়ই তাকে বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান অভিনেত্রী হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করে। মঞ্চনাটকেও তিনি সমানভাবে সফল ছিলেন, কিন্তু বিয়ের পর মঞ্চনাটকে অভিনয় ছেড়ে দেন। বিপাশা হায়াত আ’গুনের পরশমণি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্যে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here