রাশিয়ার টিকার নাম ‘স্পুৎনিক ৫’ দিলো যে কারণে

0
116

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়া কো’ভিড-১৯ রো’গের টিকার অনুমোদন দিয়েছে। টিকার নাম রাখা হয়েছে ‘স্পুৎনিক ৫’।

রুশ সংবাদ সংস্থা তাস জানাচ্ছে, ছয় দশক পার হয়েছে। আরও হিসেব মেলালে হয় ৬৩ বছর আগে ১৯৫৭ সালের ৪ অক্টোবর বিশ্বে মহাকাশে প্রথম পাড়ি দিয়েছিল সোভিয়েত কৃত্রিম উপগ্রহ ‘স্পুৎনিক-১’। মহাকাশযানের সেই সাফল্যের প্রতি সম্মান জানিয়ে রাশিয়ার আবি’ষ্কৃত ক’রোনাভা’ইরাসেের টিকার নাম রাখা হয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সোভিয়েত যুগকে যেন ভু’লতে পারছে না রাশিয়া। সে সময় সোভিয়েত রাশিয়ার স’ঙ্গে আমেরিকার লড়াই ছিল মহাকাশ নিয়ে। আর এবারের লড়াইটা ক’রোনাভা’ইরাসেের টিকা উদ্ভাবন নিয়ে।

টিকা অনুমোদনের আগে রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের (আর’ডিআইএফ) প্রধান ক্রিমিল দিমিত্রিভ বলেছিলেন, স্পুটনিকের মহাকাশ যাত্রা দেখে বিশ্ব চমকে গিয়েছিল। আমেরিকানরা যেমন অবাক হয়েছিল। এবারেও একই ঘ’টনা ঘটবে। ক’রোনাভা’ইরাসেের ভ্যাকসিন তৈরিতে বিশ্ববাসী অবাক হয়ে রাশিয়ার সাফল্য দেখবে।

রাশিয়ার প্রে’সিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন,রাশিয়াই প্রথম ক’রোনার টিকা তৈরি করেছে। এ টিকা স্থায়ী বা টেকসই প্রতিরোধী সক্ষ’মতা দেখাতে স’ক্ষম।

রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরশেঙ্কো বলেছেন, অনুমোদন পাওয়া এ কো’ভিড ভ্যাকসিন খুবই কার্যকর ও নিরাপদ।

এদিকে, ২০ দেশের কাছ থেকে টিকা সরবরাহের অনুরোধ পেয়েছে রাশিয়া। মঙ্গলবার রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের (আর’ডিআইএফ) প্রধান ক্রিমিল দিমিত্রিভ এ ত’থ্য জানিয়েছেন।

প্রস’ঙ্গত, মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) বিশ্বে প্রথম নতুন ক’রোনাভা’ইরাসেের জন্য প্রথম টিকা নিবন্ধ’ন করেছে রাশিয়া। গামালিয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট ও রুশ প্রতিরক্ষা ম’ন্ত্রণালয় যৌথভাবে এই টিকার উন্নয়ন করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here