স্বা’মী পরিত্যক্তা না’রীকে গণধ’র্ষণ, আ’টক ৪

0
69

স্বা’মী পরিত্যক্তা না’রীকে গণধ’র্ষণের পর রেললাইনের ও’পরে ফে’লে রেখে গিয়েছিল ধ’র্ষকরা। এক পথচারী দেখতে পেয়ে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পু’লিশে খবর দেন। এরপর পু’লিশ ওই না’রীকে উ’দ্ধার এবং ধ’র্ষণে জ’ড়িত থাকার অভিযোগে চারজনকে আ’টক করেছে। বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) যশোরের ঝিকরগাছায় রাতে এ ধ’র্ষণের ঘ’টনা ঘটে। পরে শুক্রবার (৭ আগস্ট) সকালে ঘ’টনায় জ’ড়িত চারজনকে আ’টক করা হয়। আ’টকদের বিকেলে আ’দালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

আ’টকরা হলেন- ঝিকরগাছা উপজে’লার পুরন্দপুর গ্রামের মৃ’ত সাইফুল ইসলামের ছেলে আব্দুল জলিল (২৩), একই গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে জাকির হোসেন (২০), আব্দুল গাজীর ছেলে আলম হোসেন (৩০) ও ফজর আলীর ছেলে হাসানুর রহমান (২০)।

ঝিকরগাছা থানা পু’লিশের ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে পুরন্দপুর গ্রামের স্বা’মী পরিত্যক্তা ওই না’রী রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকজন তাকে ধরে নিয়ে যায়। তাকে রাস্তার পাশে আব্দুর রাজ্জাকের ঘাসের ক্ষেতে নিয়ে পালাক্রমে ধ’র্ষণের পর রেললাইনের ও’পর ফে’লে রেখে যায় তারা। অ’চেতন অবস্থায় এক পথচারী ওই না’রীকে দেখতে পেয়ে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন। ফোনের সূত্র ধরে সেখান থেকে ভি’কটিমকে উ’দ্ধার করা হয়। পরে জ্ঞান ফিরলে তিনি ধ’র্ষণে জ’ড়িত দুজনের পরিচয় জানান। শুক্রবার সকালে বিভিন্ন স্থান থেকে চারজনকে আ’টক করা হয়।

ওসি আরও জানান, আ’টকরা ধ’র্ষণে জ’ড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। তারা সবাই মাছ ধরার জাল টানার কাজ করেন।স্বী’কারোক্তিমূ’লক জবানব’ন্দি গ্রহণে বিকেলে তাদেরকে আ’দালতে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি ওই না’রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here