গতকাল যেখানে ছবি তুলেছিলেন, আজ সেখানেই লা’শ হলেন!

0
105

চন্দ্রিমা উদ্যানের সড়কে রত্না নামের পর্বতারোহীকে পিষে ফেলল এক ভক্সওয়াগন। খুবই কাকতালীয় বি’ষয় যে বৃহস্পতিবার রতনা তার ফেসবুক পেইজে চন্দ্রিমা উদ্যানের সামনে তোলা একটি ছবি পোস্ট করেন।

ছবিতে দেখা দেখা যায় সাইকেল চা’লানোর পর সেটি তোলা হয়েছে। অথচ আজ একই স্থানে পড়ে থাকলে তার নিথর দে’হ। গতকাল লিখেছিলেন, ‘গুড ম’র্নিং’ অথচ আজ তার ছবি গণমাধ্যম ব্যবহার করছে মৃ’ত্যুর খবরে।

রতনা এই সড়কে প্রতিনিয়ত সাইকেল চালাতেন। এটা তার বিভিন্ন পোস্টের মাধ্যমে বোঝা যায়। যিনি পাহাড়কে জয় করলেন তিনি হেরে গেলেন একটি গাড়ির কাছে। তাঁকে এমনভাবে ক্রিসেন্ট লেকের পাশের রাস্তায় পিষে ফেলা হলো তা ম’র্মা’ন্তিক।

শুক্রবার সকাল ১১ টার এই ঘ’টনা দেশের পর্বরাহোহীদের মনকে বি’ষাদে পরিণত করলো। যদিও প্রত্যক্ষদর্শীদের মত একটি ভক্সওয়াগন রত্নাকে সাইড নিয়ে সাইকেল সমেত তার ও’পর গাড়ি তুলে দেয়, তবে পু’লিশ বি’ষয়টি নিশ্চিত করেনি।

রেশমা নাহার রতনা পেশাগত জীবনে তিনি স্কুল শিক্ষক ছিলেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি পর্বতারোহণসহ বিভিন্ন এডভেঞ্চার কার্যক্রমে যু’ক্ত ছিলেন। গত বছর নেহেরু ইন্সটিটিউট অফ মাউন্টেনিয়ারিং থেকে উচ্চতর পর্বতারোহণ কোর্স সম্পন্ন করেন এবং তার কিছুদিন পরই লাদাখে দুটো ছয় হাজারি মিটার পর্বত আরোহণ করেন।

রতনা দৌঁড়াতে ভালোবাসতেন। প্রচুর বইপড়তেন। খুব অল্প ব’য়সেই একটি বে’পরোয়া গাড়ি রতনার জীবনপ্রদীপ নিভিয়ে দিয়ে গেল। যা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না তার শুভাকাঙ্ক্ষী পর্বতারোহীরারা।

রতনার মৃ’ত্যুর বি’ষয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কিছু কিছু ত’থ্য পাওয়া যাচ্ছে। রেজওয়ান রোমিন নামের এক ব্যক্তি অল্টিচিউড হান্টার নামে পর্বতারোহীদের ফেসবুক গ্রুপে বলছেন, ‘ঐ দুর্ঘ’টনার সময় আমা’র এক পরিচিত ভাই উপস্হিত ছিলেন….. উনার ভাষ্যমতে ওভা’রটেকিং করার সময় একটা ভক্মি উনাকে ধাক্কা দেয়। ঐ গাড়ীটা ওভা’র টেকিংয়ের সময় পুরাই ডান সাইডে ছিল রাস্তার। আপুর যাবার কোনও রাস্তাই দেয় নাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here