বিশাল বড় সু’খবর পেলো পোশাক খাত

0
81

ক’রোনা পরিস্থিতিতে শিল্প-কারখানার শ্র’মিকদের মজুরি পরিশোধের জন্য গত ২৫ মার্চ ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বড় রফতানি খাত পোশাক শিল্পের উদ্যোক্তারা স’রকার ঘোষিত এই বিশেষ ঋ’ণ সুবিধা ব্যবহার করে শ্র’মিকদের এপ্রিল, মে ও জুনের মজুরি পরিশোধ করেছেন। এবার জুলাই, আগস্ট ও সেপ্টেম্বরের মজুরি পরিশোধের জন্য আরো সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকার ঋ’ণ সুবিধা পেতে যাচ্ছে পোশাক খাত। যদিও এ বি’ষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসেনি এখনো।

বৃহষ্পতিবার ২০২০-২১ অর্থবছরের রফতানি লক্ষ্য ঘোষণা উপলক্ষে বাণিজ্য ম’ন্ত্রণালয় আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সভায় পোশাক খাতের প্রতিনিধিরা শ্র’মিকদের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরের মজুরি পরিশোধের জন্য আবারো ঋ’ণ সুবিধা ঘোষণার আহ্বান জানান।

তাদের এ আহ্বানের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর বেস’রকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান স’রকার ঘোষিত প্রণোদনার ৩০ হাজার কোটি টাকার তহবিল থেকে পোশাক শিল্প মালিকদের পুনরায় ঋ’ণ সুবিধা দেয়ার বি’ষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের স’ঙ্গে আলোচনার প্রতিশ্রুতি দেন।

ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সহসভাপতি ও পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান সভায় উপস্থিত ছিলেন ।

প্রণোদনা প্যাকেজ থেকে পুনরায় ঋ’ণ সুবিধার ব্যাপারে তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশ ব্যাংকে কথা বলে একটা সার্কুলার করার ব্যবস্থা করতে বলেছি, যাতে তহবিল থেকে অর্থ নিয়ে আমরা আগামী ৩ মাস বেতন-ভাতা দিতে পারি।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৫ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ থেকে অর্থ নেয়ার পর আরো আড়াই হাজার কোটি টাকা প্রয়োজন হয়েছিল, যা স’রকার ঘোষিত অন্য আরেকটি ৩০ হাজার কোটি টাকার তহবিল থেকে দেয়া হয়েছিল।

তহবিলটি থেকে আবারো অর্থ নিয়ে আগামী ৩ মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধের ব্যবস্থা হবে এমন আশা ব্যক্ত করে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, এবার সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকা প্রয়োজন হতে পারে।

আরেক দফা ঋ’ণ সুবিধা দিতে আমরা এরই মধ্যে অর্থমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছি। এই চিঠির সূত্র ধরেই বেস’রকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের স’ঙ্গে কথা বলতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা যেহেতু বলেছেন এবং বাণিজ্যমন্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন, কাজেই আমরা আশা করছি যে তারা একটা ব্যবস্থা করবেন। একজন উদ্যোক্তা হা’রিয়ে গেলে নতুন উদ্যোক্তা পাওয়া খুব সহজ না। কাজেই এ সুবিধা পাওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here