ক’রোনা ঠে’কাতে হ’স্তমৈ’থুন করার পরামর্শ নিউইয়র্কের স্বাস্থ্য দফতরের

0
415

সারা বিশ্বে ক’রোনা ম’হামা’রীর আকার নিয়েছে। ক’রোনা ভাই’রাস দিনে দিনে ছড়িয়ে পড়ছে , ক’রোনা ভাই’রাসের মারণ থাবা বিশ্বের বহু মানুষের প্রা’ণ কেড়ে নিয়েছে।

বাইরের দেশগু’লিতে ইতিমধ্যে মৃ’ত্যু মিছিল দেখে নিয়েছে মানুষ। বিশেষ করে ইতালিতে ভ’য়াবহতা সবচেয়ে বেশি। দশ হাজার মানুষ এর মধ্যে মা’রা গেছে ইতালিতে। এছাড়াও স্পেন জার্মান, আমেরিকায় একই অবস্থা।

সারা বিশ্ব বি’পর্যস্ত ক’রোনা নিয়ে । সারা বিশ্বে ক’রোনা রুখতে লকডাউন জারি করা হয়েছে , লকডাউনে আমেরিকা স্পেন জার্মানের সাথে ভারতও রয়েছে।

এখনও পর্যন্ত সারা বিশ্বে আ’ক্রান্তের সংখ্যা ৭ লক্ষ ২৩ হাজারে দাঁড়িয়েছে, এর মধ্যে মৃ’ত্যু হয়েছে ৩৪ হাজারের মত। দিনে দিনে বেড়েই চলেছে ক’রোনা আ’ক্রান্তের সংখ্যা। বিশ্বের কোনো না প্রান্তে প্রতিদিনই কেউ না কেউ আ’ক্রান্ত হচ্ছে। ক’রোনা নিয়ে উ’দ্বি’গ্ন সারা বিশ্ব।

আ’ক্রান্তের সংখ্যার বিচারে মা’র্কিন যুক্তরাস্ট্র সবার উপরে এখনও পর্যন্ত। সেখানে এখনও পর্যন্ত আ’ক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪২ হাজার ৬৩৭ জন। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আ’ক্রান্তের সংখ্যা। আমেরিকায় এখনও পর্যন্ত মৃ’তের সংখ্যা ২ হাজার ৪৮৫ জন। পরিস্থিতি ক্রমশ ভ’য়াবহ হচ্ছে মা’র্কিন যুক্তরাস্ট্রে।

ক’রোনা ঠে’কাতে অভিনব পদ্ধতিতে প্রচার করা হচ্ছে মা’র্কিন যুক্তরাস্ট্রে। স’রকারী ও বেস’রকারী উপায় সচেতনতা মুলক প্রচার করা হচ্ছে আমেরিকায়।

এমনই একটা প্রচার নজর কে’ড়েছে নেটদুনিয়ায়। সম্প্রতি দ্য নিউইয়র্ক সিটি ডিপার্টমেন্ট অব হেলথ অ্যান্ড মেন্টাল হাইজিন এর পক্ষ থেকে টুইট করা হয়েছে তাদের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে।

এই টুইটে বলা হয়েছে ক’রোনা সং’ক্র’মণ ঠে’কাতে যৌ’নস’ঙ্গ’ম বা যৌ’ন সংস্পর্শ করতে বারণ করা হয়েছে। যৌ’ন স’ঙ্গ’মের পরিবর্তে হ’স্তমৈ’থুন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে টুইটে।

টুইটে লেখা হয়েছে ‘আপনার সুরক্ষিত যৌ’নস’ঙ্গী হল আপনার হাত, হ’স্তমৈ’থুনে ছড়াবে নাএছাড়াও স্বাস্থ্য দফতর থেকে আলি’ঙ্গন থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে।

এদিকে ২ দিন পরই ক’রোনা নিয়ে সু’খবর পাচ্ছে বাংলাদেশ চলতি মাসের ১১ তারিখ ক’রোনাভা’ইরাসে নিয়ে বাংলাদেশের জন্য সু’খবর আসছে বলে

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জানিয়েছেন ঢাকা

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল।

তিনি লিখেছেন- গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে ফোন করেছিলাম একটা কাজে।

তিনি দিলেন বিরাট এক সুসংবাদ। জাতিকে তিনি ক’রোনা শনাক্তকরণ কিট উপহার দিতে যাচ্ছেন ১১ এপ্রিল।

এ জন্য স্বাস্থ্য ম’ন্ত্রণালয়ের সামান্য সহযোগিতা লাগবে। তা পেলে তিনি আশাবা’দী,

১১ এপ্রিল থেকে দেশে উৎপাদিত কিটে স্বল্পমূ’ল্যে শনাক্ত করা যাবে ক’রোনাভা’ইরাসে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ বিভিন্ন গাইডলাইনে ক’রোনা প্রতিরোধে সবচেয়ে কার্যকর উপায় হিসেবে

ক’রোনাবাহী মানুষকে চিহ্নিত করে আলাদা রাখার কথা বলা হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়া আর তাইওয়ানের মতো দেশ এটি করেই ক’রোনার বি-রু-দ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পেরেছে।

ক’রোনাবাহী মানুষকে আলাদা রাখতে হলে প্রথমে তার দে’হে ক’রোনাভা’ইরাসে আছে কি না শনাক্ত করতে হয়।

এর কোনো বিকল্প নেই। অথচ বাংলাদেশে শুরু থেকে রয়েছে শনাক্তকরণ কিটের মা-রাত্মক স্বল্পতা।

পৃথিবীর উন্নত অনেক দেশেও কম মাত্রায় হলেও এ সং’কট রয়েছে।

ফলে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পক্ষ থেকে ক’রোনা শনাক্তকরণ কিট বের

করার ফমুর্লার সংবাদটি মাসখানেক আগে প্রকাশ করা মাত্র তা দেশে বিদেশে আলোড়ন তোলে।

ডা. জাফরুল্লাহ ও কিটের ফমুর্লা আবি’ষ্কারকারী দলের প্রধান ডা. বিজন কুমার শীলকে নিয়ে সংবাদ ছাপা হতে থাকে প্রায় প্রতিদিন।

ডা. জাফরুল্লাহ আমার সাথে আলাপে ফর্মুলাটি বাস্তবায়ন করে কিট উৎপাদনের কাজে

স’রকারের বিভিন্ন অকুণ্ঠ সহযোগিতার কথা বললেন। তিনি বিশেষভাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী,

এনবিআর-এর চেয়ারম্যান এবং চীনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সহযোগিতার কথা জানালেন।

তিনি মনে করেন, এখন শুধু স’রকারের স্বাস্থ্য ম’ন্ত্রণালয়ের একটু সহযোগিতা দরকার।

সহযোগিতা দরকার বাংলাদেশি মানুষের র-ক্তে এই কিট দিয়ে ক’রোনা শনাক্তকরনের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য অনুমতির।

সেটি দ্রু’ততার সাথে পেলে ১১ এপ্রিলে তিনি দিবেন সুসংবাদটি।

আমরা এ সুসংবাদের অপেক্ষায় থাকলাম।

(ফেসবুক থেকে)সূত্র:বাংলাদেশ জার্নাল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here