প’র্ন ছ’বি দেখে স’ঙ্গম করতে গিয়ে অনলাইনে খুঁজে পেলেন স্ত্রীর ভিডিওই

0
577

প’র্নোগ্রা’ফি অনেক সময় দাম্পত্য জীবনের হা’রিয়ে যা’ওয়া যৌ’ন সু’খ ফিরিয়ে দেয় ঠিকই, কিন্তু আবার বহু ক্ষেত্রে এর প্রভাবে সংসারে পড়ে বজ্রাঘাত।

তেমনই এক ঘ’টনা এবার উঠে এল শিরোনামে। পেশায় চিকিৎসক কলকাতার এক ম’হিলা যে কাণ্ড ঘটালেন, তাতে হতবাক তাঁর স্বা’মী! প’র্ন ছ’বি দেখে স’ঙ্গম ক’রতে গিয়ে অনলাইনে আ’পত্তিক’র অবস্থায় খুঁজে পেলেন স্ত্রীর ভিডিওই!

২০১৮ সালে কলকাতার ম’হিলার স’ঙ্গে উত্তরপ্রদেশের পাত্রের সম্বন্ধ করে বিয়ে হয়। দম্পতি বর্তমানে বেঙ্গালুরুর বাসিন্দা। বিয়ের আগেই ম’হিলা হবু স্বা’মীকে তাঁর পুরনো ভালবাসার কথা জানিয়েছিলেন। এও বলেছিলেন যে, সেই সম্প’র্কের ইতি হয়েছে। বিয়ের পর ভালই কাটছিল দাম্পত্য জীবন।

ভিডিওতে নিজের স্ত্রী’কেই অন্য পুরু’ষের স’ঙ্গে আ’পত্তিক’র অবস্থায় খুঁজে পান তিনি। অনলাইনে স্ত্রীয়ের এই কীর্তি দেখে তেলে বেগুনে জ্ব’লে ওঠেন ব্যক্তি। ড্যামেজ কন্ট্রোল

করতে স্ত্রী দাবি করেন, ভিডিওটিতে তাঁর স’ঙ্গে যাঁকে দেখা যাচ্ছে, তিনি ম’হিলার প্রাক্তন প্রে’মিক। এমনকী তিনি এও বলেন, এই ভিডিও দেখিয়ে তাঁকে ব্ল্যা’কমে’ল করারও চেষ্টা করছে সেই প্রে’মিক। প্রমাণ হিসেবেই ভিডিওটি তিনি সেভ করে রেখেছেন।

জানান, এক নয়, একাধিক পুরু’ষের স’ঙ্গে তিনি মি’লনে আ’বদ্ধ হয়েছেন। কিন্তু কীভাবে সেসব ভি’ডিও প’র্ন সা’ইটে গেল, তা তিনি জানেন না। তবে এবার আর স্ত্রী’কে ক্ষমা করতে পারেননি ব্যক্তি। আপাতত আলাদাই রয়েছেন তিনি। স্বা’মীকে ফিরে পাওয়ার জন্য কাউন্সেলিংয়ের সাহায্য নিয়েছেন ম’হিলা।

রাজধানীতে ব্যবসায়ীর বাসা থেকে চু’রি হওয়া ঘড়ির দাম শুনে অ’বাক চো’র!
রাজধানীর বারিধারায় এক ব্যবসায়ীর বাসা থেকে চু’রি হওয়া দুটি ঘড়ির দামই প্রায় পৌনে দুই কোটি টাকা। মোট তিনটি ঘড়ি চু’রি হয় ওই বাসা থেকে। এর মধ্যে একটি ঘড়ির দাম সোয়া কোটি টাকা, আরেকটি ৫০ লাখ।মঙ্গলবার রাতে পু’লিশ গুলশান ও ভাটারায় অ’ভিযান চা’লিয়ে এই চো’রের দলকে গ্রে’প্তার করেছে। তাদের কাছ থেকে গ্রিল কা’টার রেঞ্চ, দামি ঘড়ি দুটি ও ঘড়ি বিক্রির টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল উ’দ্ধার করেছে।

যাদের গ্রে’প্তার করা হয়েছে তারা হলেন-মিজানুর রহমান, উজ্জল মিয়া ও তাজুল ইস’লাম ওরফে লিটন। এরা পেশাদার চো’র বলে পু’লিশ জানিয়েছে।গুলশান থা’নার পু’লিশ জানায়, ৮ জুন গুলশানের বারিধারার পার্ক রোডের একজন ব্যবসায়ীরার বাসায় চু’রির ঘ’টনায় থা’নায় মা’মলা করা হয়।

বিভিন্ন ত’থ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে গুলশান থা’নার পু’লিশ মঙ্গলবার রাতে প্রথমে মিজানুর রহমান নামে একজনকে গ্রে’প্তার করে। পরে তার দেওয়া ত’থ্যের ভিত্তিতে ভাটারা থা’নার ফাঁ’সেরটেক বালুর মাঠ থেকে সহযোগী উজ্জল মিয়া ও তাজুল ইস’লাম ওরফে লিটনকে গ্রে’প্তার করা হয়।

গুলশান থা’নার ভা’রপ্রা’প্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মো. কাম’রুজ্জামান বুধবার বলেন, উ’দ্ধার করা এটি একটি বিদেশি ঘড়ির দাম সোয়া কোটি টাকা, আরেকটি ৫০ লাখ টাকা। আরেকটি সোনার ঘড়ি চো’রচ’ক্র গলিয়ে এক লাখ তিন হাজার টাকা বিক্রি করে দেয়। তাদের কাছ থেকে সেই টাকাও উ’দ্ধার করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here