এবার সুশান্তের জন্য তরুণীর আত্মহ’ত্যা

0
77

বলিউড হিরো সুশান্তের আত্মহ’ত্যার ঘ’টনায় স্তব্ধ গোটা ভারত। বলিউডের এই প্রা’ণোচ্ছ্বল অভিনেতার মৃ’ত্যু মেনে নিতে পারেননি অনেকেই। শো’কাহত তার ভক্তরাও।

অভিনেতার এই মৃ’ত্যু সইতে না পেরে ও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে হতাশায় তার মতোই আত্মহ’ত্যা করলেন ভারতের এক তরুণী। ভারতের হুগলি জে’লার উত্তরপাড়ায় এ ঘ’টনা ঘটেছে । বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) দুপুরে তিনি ফাঁ’স লাগিয়ে আত্মহ’ত্যা করেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, উত্তরপাড়ার ঘড়িবাড়ি আবাসনে থাকতেন ৩২ বছরের ওই তরুণী। নাম অরুন্ধতী দাস। আইটি সেক্টরে চাকরি করতেন তিনি। লকডাউনে চাকরিও চলে গিয়েছিল। তা নিয়ে মা’নসিক হতাশায়ও ভুগছিলেন।

গত ১৪ জুন সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহ’ত্যার খবর পান তিনি। গত ১৬ জুন সুশান্তকে নিয়ে একটি পোস্টে লেখেন, ‘তুমি রবে নীরবে’। অভিনেতার মৃ’ত্যু তাকে ভেতর থেকে নাড়া দিয়ে গিয়েছিল। বৃহস্পতিবার বাড়িতে মাংস রান্না করে অরুন্ধতী গোসল করতে যান।

কিন্তু অনেকটা সময় কে’টে গেলেও তিনি বাথরুম থেকে বের হননি। ডাকাডাকি করেও কোনো লাভ হয়নি। দরজা ভে’ঙে দেখা যায় গোসলখানায় ফাঁ’স লাগিয়ে ঝুলছেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে তাকে উত্তরপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তাকে বাঁচানো যায়নি।

কেন অরুন্ধতী আত্মঘা’তী হলেন, তা জানতে ত’দন্ত শুরু করেছে পু’লিশ। শো’কাহত গোটা পরিবার। শ্রীরামপুর ওয়ালশ হাসপাতালে ওই তরুণীর ম’য়নাত’দন্ত হবে।

এদিকে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ’ত্যুর কারণ খুঁজতে উঠে পড়ে লেগেছে মুম্বাই পু’লিশ। একের এক ত’থ্য সংগ্রহ করছে বান্দ্রা থানা পু’লিশ। এবার ত’দন্তের সার্থে থানায় ডাকা হলো সুশান্তের ‘প্রে’মিকা’ রিয়া চ’ক্রবর্তীকে। সুশান্তের মৃ’ত্যু স’ম্পর্কে জি’জ্ঞাসাবাদ করার জন্যই ডাকা হয়েছে তাকে। এর আগে সুশান্তের বাবা, দুই বোন ও প্রিয় বন্ধুর বয়ান রেকর্ড করা হয়। এমনই ত’থ্য দিয়েছে সংবাদ সংস্থা পিটিআই।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) সকালে রিয়া সাদা পোশাক, অবিন্যস্ত চুল, মুখে মাস্ক পরে থানায় পৌঁছাতেই সেখানে ক্যামেরাব’ন্দি হন।

অন্যদিকে গতকাল অভিনেতার ঘনিষ্ঠ বন্ধু পরিচালক মুকেশ ছাবড়াকে থানায় ডেকে জি’জ্ঞাসাবাদ পু’লিশ। মুকেশ পু’লিশকে জানান, প্রথম থেকেই সুশান্ত অন্তর্মুখী স্বভাবের ছিলেন। তবে প্রযোজনা সংস্থাগুলোর সঙ্গে তার কোনো ঝামেলা চলছে কিনা তা সুশান্ত তাকে জানাননি বলে দাবি করেছেন মুকেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here