যৌ’ন মি’লনের সময় হা’র্ট অ্যা’টাকে তরুণীর মৃ’ত্যু

0
426

বাসায় ফিরে মা’দকের নে’শায় বুঁদ থাকতো সে। উদ্দাম, অস্বাভাবিক যৌ’নজীবনেও অভ্যস্ত। এসবই যে কাল হয়ে দাঁড়াবে তা হয়তো কখনো কল্পনাও করতে পারেনি। জীবনের এমন উল্টো স্রোতে চলতে গিয়ে জীবনটাই হারাতে হলো ব্রিটেনে বসবাসরত ভারতীয় বংশোদ্ভূত ১৭ বছরের এক তরুণীর।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ওই তরুণীর নাম পূরবী গিরি। দেশটির একটি গণমাধ্যম বলছে, নিজের ঘরে প্রে’মিকের সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে আচমকা অবচেতন হয়ে পড়ে পূরবী। শ’রীর থেকে র’ক্তক্ষরণ হতে থাকে। সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উ’দ্ধারের পর তাকে ভর্তি করা হয় ব্রিটেনের এক নার্সিংহোমে। সেখানে তিন সপ্তাহ ধরে চিকিৎসাধীন থাকার পর মা’রা গেছে এই তরুণী।

অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী হওয়ায় স্কুল কর্তৃপক্ষ পূরবীর এই অভ্যাসের জন্য কিছু বলতো না বলে দাবি তার সহপাঠীদের। মা’দক নেয়ার কারণে বোর্ড পরীক্ষার আগে পূরবীর অবস্থা গু’রুতর খা’রাপ হয়েছিল। এর ফলে প্রায়ই স্কুলে অনুপস্থিত থাকত।

তবে বন্ধুদের এই মন্তব্য সমর্থন করেননি পূরবীর মা, স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. বিভা গিরি। মে’য়ের মৃ’ত্যুতে শোকগ্রস্ত মা বলেন, আমার সুন্দর, মেধাবী মে’য়ের মৃ’ত্যুতে পুরো পরিবার ভে’ঙে পড়েছি। কেউ কেউ না জেনে ওর নামে খা’রাপ অভ্যাসের অভিযোগ করছে। তবে এমন কিছুই করতো না পূরবী।

ব্রিটিশ পু’লিশ বলছে, বার্মিংহামের বাসিন্দা চিকিৎসক দম্পতির মে’য়ে পূরবী। তাদের বিলাসবহুল বাড়ির মূল্য প্রায় ১০ লাখ ইউরো। পদার্থ বিজ্ঞানে উচ্চতর ডিগ্রি নেয়ার শখ ছিল পূরবীর। স্কুল ছুটির দিন পূরবী ১৯ বছরের প্রে’মিককে বাড়িতে ডাকে। তার সঙ্গে শা’রীরিক স’ম্পর্ক হয়। আচমকা অবচেতন হয়ে পড়লে দ্রুত পূরবীর বাবা-মাকে ফোন করে ডাকে প্রে’মিক।

তবে প্রাথমিক জি’জ্ঞাসাবাদ শেষে প্রে’মিককে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এডওয়ার্ড স্কুলের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলছে, পূরবী ইনস্টাগ্রামে তার ডাকনামের জায়গায় লিখে রাখত, ‘পোকেন’।

কোকেন ও মারিজু’য়ানাকে একসঙ্গে অ’শ্লীল ভাষায় পোকেন বলে। নিজের মা’দক ব্যবহারের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে অন্যদের উ’ত্তেজিত করার চেষ্টা করতো পূরবী। জিহ্বায় মা’দক নিয়ে সেই ছবিও পোস্ট করতো।

তার এক বন্ধু বলছে, মেধাবী ছাত্রী হলেও পূরবী খুব অ্যাডভেঞ্চারার্স ছিল। টেনিস খেলতে ভালোবাসতো পূরবীর স্মৃ’তির উদ্দেশে টেনিস কোর্টে একটি বেঞ্চ তার নামে উৎসর্গ করেছে বার্মিংহামের এডওয়ার্ড স্কুল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here