দাফনের ৩ দিন পর লা’শ তুলে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর

0
140

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ আ’দালতের আদেশে কবর থেকে লা’শ উত্তোলনের পর শুক্রবার (৫ জুন) বিকেলে হবিগঞ্জের খোয়াই নদীতে উ’দ্ধার টিটন শীল জন্টু (৪০) নামে যুবকের ম’রদেহ ‘বিএসএফ’এর কাছে হস্তান্তর করেছে ‘বিজিবি’। ‘বিজিবি’-৫৫ ব্যাটালিয়ান কমান্ডার লে. কর্ণেল সামিউন্নবী চৌধুরী এ ত’থ্য নিশ্চিত করেছেন। এসময় চুনারুঘাট থানার ওসি শেখ নাজমুল হক উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হবিগঞ্জ সদর উপজে’লার লস্করপুর ইউনিয়নের খোয়াই নদী থেকে অ’জ্ঞাত ব্যক্তির ম’রদেহ উ’দ্ধার করে ম’র্গে প্রেরণ করে পু’লিশ। এ সময় তার প্যান্টের পকে’টে পাওয়া যায় ভারতীয় ১০ রূপির ১ একটি নোট ও একটি চাবির ছড়া। বুধবার সকালে ম’রদেহটি হবিগঞ্জ শহরের রাজনগর কবর স্থানে অ’জ্ঞাত হিসেবে দাফন করে আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলাম।

এদিকে, খোয়াই জে’লার সিনিয়র সাংবাদিক আশিষ চ’ক্রবর্তীর মাধ্যমে খবর পেয়ে টিটন শীলের পরিবার লা’শ শনাক্ত করে এবং খোয়াই পু’লিশকে জানায়। পরে ভারতীয় পু’লিশ ‘বিএসএফ’ এর মাধ্যমে হবিগঞ্জ থানায় যোগাযোগ করে এবং ছবি দিয়ে লা’শ শনাক্ত করে। এ নিয়ে ‘বিএসএফ-বিজিবি’র মধ্যে অনলাইন বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে নেতৃত্বে দেন বাল্লা ‘বিজিবি’ কমান্ডার মোঃ সেলিম আহমেদ ও ভারতের ত্রিপুরার সিংগিছড়া ‘বিএসএফ’ ক্যাম্পের কমান্ডার আত্রেবা শর্মা।

এ বি’ষয়ে বাল্লা ‘বিজিবি’ কমান্ডার নায়েক সুবেদার মোঃ সেলিম আহমেদ জানিয়েছেন, ‘বিজিবি’ ৫৫ ব্যা’টালিয়নের অধিনায়কের সি’দ্ধান্ত মোতাবেক আইনী প্রক্রিয়া শেষে লা’শ হস্তান্তর করা হয়।

খোয়াই জে’লার সিনিয়র সাংবাদিক আশীষ চ’ক্রবর্তী জানান, গত ২৯ মে রাতে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের খোয়াই থানার পশ্চিম সোনাতলা গ্রামের মৃ’ত যতি মোহন শীলের ছেলে টিটন শীল জন্টু বাড়ি ফেরার জন্য খোয়াই নদী পাড় হতে গিয়ে পানির স্রোতে ভেসে যায়। এরপর থেকে সে নি’খোঁজ ছিল।

হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মাসুক আলী জানান, ‘বিজিবি’র মাধ্যমে লা’শটি ভারতীয় নাগরিকের বলে শনাক্ত হয়েছে। আ’দালতের আদেশে আজ শুক্রবার (৪ জুন) বিকেলে কবর থেকে লা’শ উত্তোলন করে ‘বিজিবি’র সহযোগীতায় ভারতীয় পু’লিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জে’লা ম্যা’জিস্ট্রেট উম্মে ইসরাত জানান, পু’লিশের কাছ থেকে লা’শ উত্তোলনের চিঠি পাওয়ার পর সিনিয়র সহকারী কমিশনার মাসুদ রানাকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here