| news
Home Blog

একস’ঙ্গে মা-মে’য়ের বিয়ে! কারণ জানলে আপনিও সমর্থন জানাবেন

0

একস’ঙ্গে মা-মে’য়ের বিয়ে! কারণ জানলে আপনিও সমর্থন জানাবেন! ব’য়স কেবল সংখ্যামাত্র। বিভিন্ন ক্ষেত্রেই এই কথাটি ব্যবহৃত হয়।

আরও একবার তার প্রমাণ পাওয়া গেল। ভারতের উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরে আয়োজিত গণবিবাহে মা–মে’য়ে একস’ঙ্গেই বসলেন বিয়ের পিঁড়িতে। শুনতে অবাক লাগলেও ঘ’টনা সত্যি।

সাধারণত ভারতের বহু রাজ্যেই গণবিবাহের আসর বসে। কখনও স’রকারি সহায়তায়, কখনও আবার ব্যক্তিগত উদ্যোগে। যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরে সম্প্রতি সেরকমই গণবিবাহের আসর বসেছিল। সেখানেই ঘটে এই অদ্ভুত ঘ’টনা। যেখানে মা–মে’য়ে একস’ঙ্গেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন।

জানা গেছে, ওই না’রীর নাম বেলি দেবী। ৫৩ বছর ব’য়সি ওই না’রীর স্বা’মী হরিহর ২৫ বছর আগেই মা’রা গিয়েছিলেন। তারপর থেকে একাই পাঁচ স’ন্তানকে বড় করেন।

এর মধ্যে দুই ছেলে এবং দুই মে’য়ের বিয়েও দেন। বাকি ছিল ছোট মে’য়ে। সম্প্রতি গণবিবাহের আসরেই ছোট মে’য়ে ইন্দুর বিয়ে দেবেন বলে ঠিক করেন।

কিন্তু ২৭ বছর ব’য়সি মে’য়ের বিয়ের আসরে তিনি নিজেও বিয়ে করলেন। বর মৃ’ত স্বা’মীর ভাই এবং স’ম্পর্কে ওই না’রীর দেবর। তার নাম জগদীশ।

পেশায় কৃষক ৫৫ বছরের ওই ব্যক্তি। তিনিও এতদিন অবিবা’হিতই ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে মোট ৬৩টি যুগল বিবাহ বন্ধ’নে আবদ্ধ হয়েছেন। এর মধ্যে এক মু’সলিম যুগলও ছিল।

এই বিয়ে প্রস’ঙ্গে বেলি দেবী বলেন, ‘“আমার দুই ছেলে এবং দুই মে’য়ের বিয়ে ইতোমধ্যে হয়ে গিয়েছে। তাই ছোট মে’য়ের বিয়েতেই দেবরকে বিয়ে করার ব্যাপারে সি’দ্ধান্ত নিই। এতে আমার স’ন্তানরা প্রত্যেকেই খুশি।”

এদিকে, ২৯ বছর ব’য়সি রাহুল নামের এক যু’বকের স’ঙ্গে বিয়ে হয়েছে ইন্দুর। তবে মায়ের বিয়েতেই যেন সবচেয়ে বেশি আ’নন্দিত তিনি। বলেন,

“‘আমার মা এবং কাকা দু’জনে মিলে আমাদের বিয়ে দিয়েছে। এতদিন তারা আমাদের খেয়াল রাখত, এবার নিজেদের খেয়াল রাখতে পারবে।” এই ঘ’টনা প্রকাশ্যে আসার পর অনেকেই অবাক হয়েছেন। তবে কেউ কেউ ওই না’রীর এই কাজকে সমর্থনও জানিয়েছেন।

দুঃস্থদের বিনামূ’ল্যে চিকিৎসাসেবা দিতে ক্লিনিক স্থাপন ও ব’য়স্ক পুনর্বাসন কেন্দ্র করছেন নায়ক শাকিল খান ও তার স্ত্রী

0

শাকিল খানের স্ত্রী শারমিন হোসেন একজন না’রী উদ্যোক্তা। তার একটি বুটিক হাউজ রয়েছে। ক্রেতাদের অনুরোধে সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) স্বা’মীকে তিনি তার ব্যবসায়ীক

ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে আসেন। লাইভে এক দর্শক শাকিল খানকে প্রশ্ন করেন, তিনি কেনো এখন আর সিনেমায় অ’ভিনয় করেন না? উত্তরে ‘বিয়ের ফুল’খ্যাত এই

অ’ভিনেতা হলেন, ‘কারণ দেখাতে হলে অনেক কথা বলতে হয়। আপনারা জানেন, এক সময় সিনেমা ছিল বাংলাদেশে বিনোদনের সবচেয়ে বড় একটি মাধ্যম। কিন্তু এমন একটা সময় এলো, যখন সিনেমা নিয়ে মানুষের খা’রাপ ধারনা তৈরি হলো ও নির্মাণের মান খা’রাপ হলো। ঠিক তখনই আমি পেছনে চলে গেলাম।

কারণ, আমি সবসময় চেয়েছি মানুষের কাছে সুন্দর কিছু উপস্থাপন করতে। চিন্তা ছিল সুন্দর ও ভালো কাজ উপহার দেওয়ার। ’ সিনেমায় ফেরা প্রস’ঙ্গে শাকিল খান বলেন, ‘এখনো যে ভালো

কিছু উপহার দেওয়ার ই’চ্ছা নেই, বি’ষয়টি তা নয়। সামনে ভালো কিছু এলে চিন্তাভাবনা করবো। তবে জানি না সেটা কখন। অ’পেক্ষায় থাকতে হবে। ’ ব্যবসায় স্ত্রী’কে উৎসাহ দিয়ে এই তারকা বলেন, ‘

আমি মনে করি সবার কিছু না কিছু করা দরকার। ওকে (স্ত্রী) নিয়ে আমি গর্ববোধ করি। অনেকে আমাকে বলেন ‘ভাবি কাজ করেন’-তাতে কী? আমি মনে করি এখন সকল না’রীদের কাজ করার উচিৎ। তারা কাজ করলে দেশ এগিয়ে যাব’ে। পরিবার নিয়ে যাতে ভালো থাকতে পারি সবাই সেই দোয়া করবেন।

’ পরিবারকে নিয়ে অবসর কা’টাতে কক্সবাজারে গিয়েছেন শাকিল খান। সমুদ্রের পার থেকে সস্ত্রীক ফেসবুক লাইভে যুক্ত হন তিনি। ব্যবসার পাশাপাশি সামাজিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত রয়েছেন শাকিল খান।

চট্টগ্রামে পাবলিক হাসপাতাল নামে একটি ক্লিনিক স্থাপন করেছেন তিনি, যেখানে দুঃস্থদের বিনামূ’ল্যে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়। এ ছাড়া গাজীপুরে ব’য়স্ক পুনর্বাসন কেন্দ্র নিয়েও কাজ করছেন তিনি।

১৯৯৭ সালে ‘আমা’র ঘর আমা’র বেহেশত’ সিনেমা’র মাধ্যমে বড় পর্দায় অ’ভিষেক ঘটে চিত্রনায়ক শাকিল খানের। ১০ বছরেরও কম সময় দারুণ জনপ্রিয়তা পান এই অ’ভিনেতা। তবে দীর্ঘদিন ধরে সিনেমা থেকে দূরে রয়েছেন তিনি। বর্তমানে ব্যবসা ও সংসার নিয়েই তার ব্যস্ততা।

নামাজ কবুল না হওয়ার ৬ কারণ

0

শায়খ মো: সাইফুল্লাহ : আল্লাহ রাব্বুল আলামিন পবিত্র কালামুল্লাহ শরিফে ইরশাদ করেছেন, ‘নিশ্চয়ই নামাজ মানুষকে অ’শ্লীল ও খা’রাপ কাজ থেকে বিরত রাখে।’

(সূরা আনকাবুত-৪৫) একদা রাসূলুল্লাহ সা: সাহাবিদের নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে বললেন, ‘যদি তোমাদের কারো বাড়ির দরজায় একটি প্রবাহিত নদী থাকে, যার মধ্যে সে প্রতিদিন পাঁচবার গোসল করে। তাহলে তার দে’হে কোনো ময়লা বাকি থাকবে কি?’

সাহাবিরা রা: বললেন, তার গায়ে কোনো ময়লা বাকি থাকবে না। তখন রাসূলুল্লাহ সা: বললেন, ‘এটাই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের উদাহরণ যা দ্বারা যাবতীয় গুণাহ মিটিয়ে দেয়া হয়।’(বুখারি, মু’সলিম) অন্য হাদিসে রাসূল সা: বলেছেন, ‘মুমিন ও কাফিরের মাঝে পার্থক্য নিরুপণের মাধ্যম হচ্ছে সালাত।’

কুরআন-হাদিসে নামাজের হাকিকত সম্প’র্কে অনেক মূ’ল্যবান নির্দেশনা রয়েছে। এসব থেকে বুঝা যায়, নিয়মিত নামাজ আদায়কারী যেকোনো অ’শ্লীল, অন্যায় ও মন্দকাজ থেকে নিজেকে অনায়াসেই বিরত রাখতে স’ক্ষম।

বস্তুত, আমরা অনেক সময় এর বিপরীত চিত্র দেখতে পাই। অর্থাৎ এমন অনেক নামাজ আদায়কারীকে দেখা যায় যিনি, কবিরা গুনাহ, হারামসহ অনেক অন্যায় ও অ’পরাধমূ’লক কাজে জ’ড়িত। তার দ্বারা অনেক অসামাজিক কাজ সংঘটিত হচ্ছে।

শরিয়াতের ফরজওয়াজিব ল’ঙ্ঘিত হচ্ছে। কিন্তু এমনটা কেন? সমাধান কী? এর থেকে পরিত্রাণের উপায় কী? কুরআনের ঘো’ষণা যেহেতু নামাজ মানুষকে খা’রাপ কাজ থেকে বিরত রাখে সেহেতু নিয়মিত নামাজ আদায়কারী যদি অন্যায় কাজে জড়িয়ে পড়ে তাহলে বুঝতে হবে তার নামাজে কোনো ত্রুটি আছে! তার নামাজ আল্লাহর কাছে প্রশ্নবিদ্ধ রয়ে যাচ্ছে! নামাজ ব্যর্থ হওয়া বা কবুল না হওয়ার পেছনে কুরআন-হাদিসের দৃষ্টিকোণ থেকে যে কারণগুলো পরিলক্ষিত হয় তা হলো-

০১. একমাত্র আল্লাহর উদ্দেশ্যে না হওয়া : ইবাদতের প্রধান শর্তই হলো তা একমাত্র আল্লাহর উদ্দেশ্যে হতে হবে। নচেৎ তা ইবাদত হিসেবেই গণ্য হবে না।

ইবাদতে আল্লাহ ব্যতীত অন্য কাউকে শরিক, সম-অংশীদার বা সমকক্ষ মনে করা যাবে না; তাহলে তা শিরকি কা’র্যক্রমের অন্তর্ভুক্ত হবে। আর এ জাতীয় ইবাদত আল্লাহ কবুল করার প্রশ্নই আসে না। তাই, ইবাদত করতে হবে একনিষ্ঠ নিয়তে, মনে-প্রা’ণে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য।

আল্লাহর ঘোষণা- ‘আমি (আল্লাহ) জ্বিন ও মানবজাতিকে আমার ইবাদতের জন্যই সৃষ্টি করেছি।’ (সূরা আয-জারিয়াত-৫৬) বান্দার সালাত আদায় যেন একমাত্র আল্লাহ সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে সম্পাদিত হয়, তবেই আল্লাহ তা কবুল করবেন, অন্যথায় তার নামাজ ব্য’র্থতায় পর্যবসিত হবে এবং এর মাধ্যমে সে নিজেকে অ’শ্লীল কাজ থেকে বিরত রাখতেও স’ক্ষম হবে না।

‘নাসির ৮০-৯০টা মে’য়ের জীবন ন’ষ্ট করেছে’ (ভিডিওসহ)

0

মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) নিজের ফেসবুক লাইভে নাসির এবং তামিমাকে নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন তিনি। লম্বা লাইভের শুরুতেই সুবাহ বলেন, নাসির হোসেন এবং তামিমা তাম্মিকে নিয়ে লাইভে এসে কথা বলতে বা’ধ্য হলাম।
সুবাহ বলেন, ‘আমি আর সহ্য করতে পারছি না।

শুটিংয়ে গিয়েও নাসির-তামিমাকে নিয়ে কথা শুনতে হচ্ছে আমার। আমি এর আগেও বলেছি ২০১৮ সালে নাসিরের স’ঙ্গে আমার সব শেষ হয়ে গেছে। যখনই নাসির-তামিমার কথা আসছে, তখনই আমার নামটি আসছে কেন? আমার তো ফ্যামিলি আছে। আমার তো স্ট্যাটাস আছে।’

তামিমা সর্ম্পকে আগাগোড়া সব জানতেন উল্লেখ করে সুবাহ বলেন, ‘শুধু তামিমা না, অনেক মে’য়ের স’ঙ্গেই নাসির অবৈধ সম্প’র্ক ছিল। এত ভালো ভালো মে’য়েদের স’ঙ্গে প্রেম করে নাসিরের জীবনে একটা ন’ষ্টা মে’য়ে জুটেছে।

ন’ষ্টা চরিত্রের এক মে’য়েকে বিয়ে করেছে। তাকে নিয়ে লাইভে এসে নাচানাচি করছে। নাসিরের কাছের মানুষ আমাকে বলেছে, তামিমা নাসিরকে বিয়ে করেছে তাকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে। নাসির তো লোভী, লোভ দেখিয়েই তাকে বিয়ে করেছে। এটা নাসিরের কর্মের ফল। ৮০-৯০টা মে’য়ের জীবন ন’ষ্ট করেছে নাসির।’

এক পর্যায়ে সুবাহ বলেন, ‘তামিমা নামের আগে এয়ার হোস্টেস ট্যাগ লাগিয়ে একের পর এক বিয়ে করেছে। ব্যাংকে টাকা পয়সা জমিয়েছে, ফ্ল্যাট করেছে। শেষে নাসিরের গ’লায় ঝুলে পড়েছে। নাসির যেমন, তামিমাও তেমন। যেমন কুকুর তেমন মুগুর।’

নাসির-তামিমার বিচার দাবি করেছেন তিনি। পুরো লাইভে একাধিকবার নাসির-তামিমার বিচার চেয়েছেন তিনি। সুবাহ বলেন, ‘নাসির-তামিমা বিয়েকে ব্যবসা বানিয়েছে। তাই তাদের বিচার হওয়া উচিত। বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী তাদের প্রকাশ্যে বিচার হওয়া উচিত।’

আব্বু আমি এখন কোচিং করছি আসতে একটু লেট হবে

0

এমন ভালবাসা এখন সবার মাঝেই কমবেশি প্রভাব ফেরছে। বিশেষ করে যারা স্কুল-কলেজে পড়েন তাদের এমন অবাদ ভালবাসা সচরআচর দেখা যায়। কিন্তু এমন ভালবাসার শেষ পরিনতি কি?

আমাদের স’ন্তানরা কোথায় কি করছে? কার সাথে ঘুরছে? এগুলো তো আপনার আমার খোঁজ রাখার কথা। কিন্তু আমরা কি করছি? স’ন্তানে কথা মত সব করছি।

কিন্তু একটিবারও কি তাদের ভবি’ষৎ চিন্তা করেছি? বর্তমান সময়ে প্রায় সব শ্রেণীর মানুষ এ ধরনের প্রেমলীলার আ’কর্ষণে আকৃ’ষ্ট। তাই সকাল ১০টা বাজতে না বাজতে পার্ক যেন পরকীয়ার লীলায় উদ্ভাসিত হতে থাকে।

শহর ছেড়ে এখন গ্রামেও এগুলো প্রভাব বিস্তার করছে। বিভিন্ন পার্কে এবং রেস্টুরেন্টে গিয়ে দেখা মিলে এদের । কেউ স্কুল ফাঁকি দিয়ে আবার কেউ কলেজ ফাঁ’কি দিয়ে এমন প্রেমলীলায় মেতে আছেন।

সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে চলে এই প্রেমলিলা। এমনই এক রোমান্সকর প্রে’মিক জুটির সাথে দেখা হয় বেলা সাড়ে ১১টায়। প্রে’মিক….. পেশায় একজন রিকশাচালক। তার প্রে’মিকা …একজন গৃহীনি। তিনি পরকিয়ায় জড়িয়ে গেছেন অনেক আগে।

তার সাথে কথা বলে জানা গেছে যে প্রে’মিকের ঘরে একটি সুন্দর ফুটফুটে মে’য়েও আছে? সবচাইতে অবাক হলাম। যে তারা দুজনই বিবা’হিত। আজকের সমাজটা কোথায়? এখানে আপনি কাকে দায়ি করবেন? তাদের পরিবারের গাফিলতিকে না ভালবাসা নামের এই নোং’ড়া মেলামেসাকে?

যাই হোক এদের কথা না হয় বাদ দিলাম। চলুন এবার স্কুল ফাকি দিয়ে যারা এমন ভালবাসায় ম’গ্ন তাদের সাথে একটু কথা বলি। এটা রাজধানীর একটি নামিদামি ফাষ্টফুড বার দেখানে দেখা মিললো স্কুল পড়ুয়া ২ জুটিকে যারা কিনা ক্লাস ফাঁ’কি দিয়ে চু’টিয়ে প্রেম করছেন।

তাদের সাথে কথা বলতে চাইলে তারা কথা বলতে নারাজ হন। তারপরও একটু জানতে চাওয়া। আপনারা কি করেন? আমরা স্কুলে পড়ি? তো এখন তো স্কুল টাইম তো এখানে কোন?? না মানে….!! আর বললাম না। আমি সুধু একটি কথাই বলবো এদের এই আচরণের জন্য আপনি আমি দায়ি।

তো মা-বাবার প্রতি আমার একটাই অনুরোধ আপনারা একটু খোজ খবর নিবেন আপনার স’ন্তানের চলাফেরা কার সাথে? তারা কি চায়? সব দিক বিবেচনা করে তাদেরকে পথচলার সুযোগ দিন।ফিরিয়ে দিল হা’সপাতাল, বাবার কাঁধেই মা’রা গেল শি’শু তিন ব্যক্তির জন্য জান্নাত হারাম।

মে’য়েদের সহজে বিছানায় আনার সেরা ১০টি উপায়

0

জানেন কি, নাভির আকারের স’ঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে না’রীদের চরিত্রের গো’পন কথা। কোন না’রী কেমন স্বভাবের তা জানার জন্য সহজ উপায় হচ্ছে তার নাভি।

নাভির আকৃতি দেখেই একজন না’রীর স্বভাব সম্প’র্কে জানা যায়।শুধুমাত্র শা’রীরিক সৌন্দর্য দিয়ে নিশ্চয় সারা জীবন কা’টানো সম্ভব নয়।

তাই জানতে হবে কে কেমন মানুষ এবং কোন না’রীর চরিত্র কেমন? চলুন তবে জেনে নেয়া যাক নাভি আকৃতি দেখে না’রীদের গো’পন ত’থ্য- গোল আকৃতির নাভি যাদের নাভি গোল হয়, সেই না’রীরা খুব সরল ও সাদাসিধে এবং ঘরোয়া হয়।

শাস্ত্র বলছে, এই না’রীরা সংসারে সু’খ সমৃ’দ্ধি আনে। গভীর নাভি যে না’রীদের নাভি গভীর হয়, তারা বন্ধুত্ব করতে খুব ভালোবাসেন। শাস্ত্র বলছে, এরা সংসারে সু’খ ও সমৃ’দ্ধি আনে।

ভালোবাসার মানুষের স’ঙ্গে প্র’তারণা করে না। চন্দ্রাকার নাভি শাস্ত্র মতে, যাদের নাভি চাঁদের মতো, সেইসব না’রীদের থেকে পুরু’ষদের দূরে থাকাই ভালো। কারণ এরা কারো উপর বিশ্বা’স করেন না। নাভি যদি বাইরের দিকে বেরিয়ে থাকে যদি কোনো না’রীর নাভি বাইরের দিকে বেরিয়ে থাকে, তারা খুব সৌভাগ্যবতী হন।

যেখানে এরা যান, সেখানে ধ’ন-সম্পত্তির কোনো কমতি থাকে না। নাভির ভিতরের অংশ অনেকটা বাইরে থাকলে সেক্ষেত্রে সেই না’রীরা খুব ক’ঠোর প্রকৃতির হয়। এটাও বলা হয়, মা ‘হতে গিয়ে এই না’রীদের সমস্যার সম্মুখীন ‘হতে হয়। যাদের নাভি খুব সেন্সিটিভ

হয় যাদের নাভি খুব সেন্সিটিভ, তারা খুব হাসিখুশি হয়। কঠিন পরিস্থিতিতেও মুখের হাসি বজায় থাকে এদের। আরো পরুন ভা’র্জিন ছেলেকে বিয়ে করতে চান অ’পু বি’শ্বা’স শাকিব খানকে স’ঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর ঢালিউড কুইন খ্যাত চিত্রনায়িকা অ’পু বিশ্বা’স এখন সি’ঙ্গেল মা’দার।

ভক্তরা অনেকেই জানতে চান অ’পু কী আবারও বিয়ে করবেন নাকি সি’ঙ্গেল মা’দার হিসেবেই থাকবেন।প্রতিনিয়ত এমন প্রশ্নের সম্মুখীন হন অ’পু।এনিয়ে সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে অ’পু ভবি’ষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন।অ’পু জানান, ‘আমা’র ভবি’ষ্যৎ পরিকল্পনা অবশ্যই আছে।

প্রফেশনাল ও ব্যক্তিগত দুটি জীবনকে প্রাধান্য দিচ্ছি। ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে পরিকল্পনা সবার থাকে। তেমনি আমা’রও পরিকল্পনা আছে। সেটা সুন্দরভাবে, বি’তর্কি’তভাবে নয়। এজন্য অনেকটা সময় অ’পেক্ষা করতে হবে।

উপস্থাপক স’রাসরি জানতে চান কতদিনের মধ্যে বিয়ে করতে যাচ্ছেন? এ প্রস’ঙ্গে অ’পু বলেন, ‘বিয়ের বি’ষয়টি আমা’র পরিবার দেখছে। বর অনেকেই দেখছে।

তাতে দেখা গেছে কারও বেবি আছে, আবার কারো পরিবার আছে। এগু’লো আমা’র পছন্দ নয়। তবে আমি সি’দ্ধান্ত নিয়েছি বিবা’হিত কাউকে বিয়ে করব না।

অবিবা’হিত কাউকে আমি বিয়ে করে নেব।অ’পু বিশ্বা’স অ’ভিনীত ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’র শুটিং শেষ। সিনেমাটি মুক্তির অ’পেক্ষায় রয়েছে।

দেবাশীষ বিশ্বা’স পরিচালিত এই সিনেমায় অ’পুর বিপরীতে অ’ভিনয় করেছেন বাপ্পি চৌধুরী। এছাড়া কলকাতার জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী নচিকেতা চ’ক্রবর্তীর লেখা ‘শর্টকাট’ নামে আরেকটি সিনেমায় অ’ভিনয় করেছেন অ’পু। সুবীর মণ্ডল পরিচালিত এ সিনেমায় তার বিপরীতে অ’ভিনয় করছেন পরমব্রত চ্যাটার্জি। সিনেমাটি মুক্তির অ’পেক্ষায় রয়েছে।

১. মে’য়েদের চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন। আলাপের সময় তার দে’হের দিকে তাকাবেন না। এতে আপনার প্রতি তার বিরূপ ধারণা তৈরি হবে।২. পরিপাটি থাকুন।2.মে’য়েরা সব সময় তার স’ঙ্গীর পরিপাটি ও সুগন্ধময় পরিধেয় ভালবাসেন।

৩. তাকে সহায়তা করুন। মে’য়েরা সব সময় সহযোগীদের প্রতি আকৃ’ষ্ট হয় যেমন কোট পরিধানে হাত বাড়িয়ে দিন। না’রীর সেবায় উদার হোন।তার বন্ধুদের প্রতি সামাজিক হোন। তাদের নিজের মতো আপন করে নিন। মে’য়েরা সামাজিক ও মিশুকদের প্রতি আকৃ’ষ্ট হয়।

৫ একস’ঙ্গে থাকাবস্থায় ফোন পরিহার করার চেষ্টা করুন। ফোনে কথা বলার সময় বোঝাতে চেষ্টা করুন আপনি তার প্রতি মনোযোগী। তার প্রতি আপনার পূর্ণ আকর্ষণ রয়েছে।

৬. তাকে বিভিন্ন প্রশ্ন করুন বিশেষত তার সম্প’র্কে। মে’য়েরা সব সময় তার ব্যাপারে আলোচনা পছন্দ করে। যেমন তার ভাল লাগা, প্রিয় জিনিস ইত্যাদি।

পড়ুন মে’য়ে পটানো টিপস দেখু’ন ভিডিওতে ৭. কোথাও প্রবেশের সময় আগে গিয়ে দরজা খুলে তাকে স্বাগতম জানান। এ বি’ষয়টি মে’য়েদের ভীষণ প্রিয়।

৮. তার অ্যাপেয়ারেন্সের প্রশংসা করুন। যেমন তোমাকে খুব সুন্দর লাগছে। এ পোশাকে তোমাকে ভাল মানায় ইত্যাদি। ৯. মে’য়েদের থেকে পরামর্শ নিন।

যেমন কোন কাজ শুরু করার আগে মতামত চাওয়া। এতে সে ভাববে আপনি তাকে গুরুত্ব দেন।১০. মে’য়েদের ইতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরুন। যেমন তোমাকে হাসিখুশি মনে হয়। তোমার সব কাজই ভাল হয়। তুমি অনেক পজিটিভ ইত্যাদি

লকডাউনে বিদেশগামী কর্মীদের জন্য সু’খবর দিল ম’ন্ত্রণালয়

0

ক’রোনা সং’ক্র’মণরোধে ক’ঠোর বিধি নি’ষেধের মধ্যে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ ঘোষণা করায় বিপাকে পড়েছেন অনেক প্রবাসী কর্মীরা।

এ অবস্থায় তাদের জন্য বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করার উদ্যোগ নিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান ম’ন্ত্রণালয়।

ক’রোনা পরিস্থিতির কারণে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ রয়েছে।

ফলে আ’টকা পড়েছেন অনেক বিদেশগামী। বিশেষ করে শ্র’মিকেরা পড়েছেন বি’পদে। এ অবস্থার মধ্যে স’রকারের এক সভায় এ সি’দ্ধান্ত হলো। সভাটি ভার্চ্যুয়ালি হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যের চারটি দেশ সৌদি আরব, ওমান, কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং সিঙ্গাপুরের জন্য এই বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

সারপ্রাইজ দেওয়ার জন্য এমন পোশাক পরলেন স্ত্রী, সাপ ভেবে পা ভে’ঙে দিলেন স্বা’মী!

0

বর্ত’মান যুগ হচ্ছে ফ্যাশনের যুগ। বর্তমান যুগের মানু’ষজনও সবার সাথে পাল্লা দেওয়ার জন্য হয়ে উঠছেন আরও বেশি ফ্যাশনেবল। অন্য সবার

থেকে নিজেকে আলাদা দেখা’নোর জন্য মানুষজন মাঝেমধ্যেই অদ্ভুত রকমের পোশাক প’রিধান করেন এবং সেই পো’শাকের কারণে অনেক সময়ই তাদের বি’পদে পড়তে হয়।

আর এই বি’পদে পড়ার সবচেয়ে তাজা উ’দাহরণ হল অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন শহরের এই ঘ’টনা। এখা’নকার এক ম’হিলা নিজের পায়ে সাপের মতো দেখতে একটা ‘স্টোকিংস’ পরেছিলেন।

কিন্তু দুর্ভা’গ্যবশত ওই ম’হিলার স্বা’মী সেই পোশাককে সত্যিকারের সাপ ভাবেন এবং সা’পটিকে মা’রার জন্য বেসবলের ব্যাট নিয়ে তার উপর সজো’রে আ’ঘাত করেন।

যখন আসল ঘ’টনা জা’নতে পারলেন, তখন দেখা গেল ওই ম’হিলা গু’রুতরভাবে জ’খম হ’য়েছেন। সাপ ছিল না, আ’সলে সেটি ছিল তার স্ত্রীর পা রিপোর্ট অনুযায়ী, শো’ওয়ার সময় ওই ম’হিলা সাপের ন্যায় দেখতে ‘স্টোকিংস’টি পায়ে পরেছিলেন।

শ’রীরের বাকি অংশটুকু চাদরে ঢাকা ছিল কিন্তু পা’টা চাদর থেকে বের হ’য়েছিল। রাতের বেলা শোওয়ার সময় ম’হিলার স্বা’মী যখন ঘরে প্রবেশ করেন, তখন প্রথম নজরেই তিনি সেটাকে সাপ বলে মনে করেন।

আর সেই সাপ মা’রার জন্যই নিজের স্ত্রীর পায়ে বেসবলের ব্যাট দিয়ে সজো’রে আ’ঘাত করেন। জো’রে চিৎ’কার করে উঠেন ম’হিলা বে’সবল ব্যাট দিয়ে সজো’রে আ’ঘাত করার

পরই চিৎ’কার করে উঠেন ওই ম’হিলা। তখন স্বা’মী বুঝতে পারেন সেটি কোনো সা’প নয়, সেটি আসলে তার স্ত্রীর পা ছিল। এরপর ওই ভদ্রলোক নি’জের আ’হত স্ত্রী’কে নিয়ে হাসপাতালে ছুটে যান।

৩০ মিনিটে এনআইডির অসুন্দর ছবি বদলে ফেলুন

0

জাতীয় পরিচয় পত্র বা এনআইডি করা হয়েছে প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় আগে। তখন যেসব ছবি ব্যবহার করা হয়েছিল সেগুলো অনেকের বর্তমান ছবির স’ঙ্গে মেলে না। আবার অনেকের ছবি বেশ অসুন্দর।

ফলে অসুন্দর বা পুরনো ছবি পরিবর্তন করার প্রয়োজন হয়। এই কাজটি ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে করা হয়। ছবি পরিবর্তন ছাড়াও এনআইডির অনেক পুরনো ত’থ্য হালনাগাদ করা যায়।

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি পরিবর্তন বা ত’থ্য হালনাগাদ করার জন্য প্রথেমে নির্বাচন কমিশনের এনআইডি বিভাগের ওয়েব সাইট (https://services.nidw.gov.bd/registration) এ গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

এই ওয়েবসাইটে প্রবেশের সময় https ফরম্যাটের কারণে অনেক ক্ষেত্রে ফায়ারফক্স ব্রাউজারে ‘This Connection is Untrusted’ লেখা আসতে পারে।

সেক্ষেত্রে ‘I Understand the Risks’ এ ক্লিক করতে হবে। ক্লিক করার পর ‘Add Exception’ এবং পরে ‘Confirm Security Exception’ ক্লিক করলে সাইট ওপেন হবে।

এবার প্রয়োজনীয় ত’থ্য বসিয়ে নিবন্ধ’ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। আপনার কার্ডের ত’থ্য ও মোবাইলে প্রা’প্ত এক্টিভেশন কোড বসিয়ে লগ ইন করুন।

রেজিষ্ট্রেশন করতে নিম্নের ধাপসমূহ অনুসরণ করতে হবে:
১.প্রয়োজনীয় ত’থ্যাবলী পূরণ করে নিবন্ধ’ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা।
২. আপনার কার্ডের ত’থ্য ও মোবাইলে প্রা’প্ত এক্টিভেশন কোড সহকারে লগ ইন করা।

৩. ত’থ্য পরিবর্তনের ফর্মে ত’থ্য হালনাগাদ করে সেটির প্রিন্ট করা।
৪. প্রিন্টকৃত ফর্মে স্বাক্ষর করে সেটির স্ক্যানকৃত কপি অনলাইনে জমা দেয়া।
৫. ত’থ্য পরিবর্তনের স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় দলিলাদি কালার স্ক্যান কপি অনলাইনে জমা দেয়া।

লগইন করার পর এবার “রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করতে চাই” ক্লিক করতে হবে। এখানে ক্লিক করলে ফর্ম ওপেন হবে। এখন ফর্মটি পূরণ করতে হবে।

ফর্ম পূরণের জন্য এনআইডি নম্বর বসাতে হবে। যদি এনআইডি নম্বর ১৩ সংখ্যার হয় অবশ্যই প্রথমে জ’ন্মসাল দিতে হবে। যেমন, কার্ড নাম্বার ১২৩৪৫৬৭৮৯১০০০ ও জ’ন্মসাল ১৯৯০ আপনি হলে লিখতে হবে ১৯৯০১২৩৪৫৬৭৮৯১০০০।

এরপর জ’ন্ম তারিখ, মোবাইল নম্বর, ইমেইল ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা (বিভাগ জে’লা উপজে’লা/থানা সিলেক্ট করুন ভোটার হবার সময় যা দিয়েছিলেন) ও স্থায়ী ঠিকানা (বিভাগ জে’লা উপজে’লা/থানা সিলেক্ট করুন ভোটার হবার সময় যা দিয়েছিলেন) বসাতে হবে। এবার লগইন পাসওয়ার্ড (অবশ্যই ৮ সংখ্যার হতে হবে বড় হাতের অক্ষর ও সংখ্যা থাকতে হবে যেমনঃ NIDhelp2020)। এগুলো বসানোর পরে সঠিকভাবে ক্যাপচা পূরণ করে ‘রেজিস্টার’ বাটনে ক্লিক করতে হবে।

সঠিক ও সফলভাবে রেজিস্টার করার পর মোবাইলে ভেরিফাই কোড আসবে। কোডটি বসানোর জন্য বক্স ওপেন হবে। বক্সে কোডটি বসিয়ে রেজিস্টার বাটনে ক্লিক করতে হবে। কোড পাওয়ার জন্য সর্বোচ্চ দুই মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। (২ মিনিটের মধ্যে মোবাইলে কোড না আসলে পুনরায় কোড পাঠান (SMS) ক্লিক করুন।

সঠিকভাবে কোড প্রবেশ করার পর আপনার অ্যাকাউন্ট একটিভ হবে এবং লগইন করার অপশন আসবে। তখন লগইন করুন।

লগইন করতে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর (১৩ সংখ্যার হলে অবশ্যই প্রথমে আপনার জ’ন্মসাল দিয়ে নিবেন) জ’ন্ম তারিখ ও আপনার দেওয়া পাসওয়ার্ড দিয়ে ভেরিফাইড কোড কিভাবে পেতে চান তা সিলেক্ট করতে হবে ।

রেজিস্ট্রেশন করা মোবাইল নাম্বার আপনার হাতের কাছে থাকলে মোবাইলে তা নাহলে ইমেইলে সিলেক্ট করুন। এবার আপনার সিলেক্ট করা অপশন মোবাইলে বা ইমেইল থেকে ভেরিফাইড কোড বসিয়ে লগইন করুন ।

এবার দেখু’ন আপনার নির্বাচন কমিশনের কাছে থাকা আপনার সকল ডাটাবেজ আপনার সামনে হাজির এবং নিচের যেকোন অপশনে আপনার দরকার অনুযায়ী অপশনে ক্লিক করুন আর ত’থ্য হালনাগাদ করুন এবং আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি পরিবর্তন সহ অনেক কিছু পরিবর্তন করুন। এই পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে আপনার ৩০ মিনিট সময় লাগতে পারে।

বা’ধ্য হয়েই বসুন্ধরার হাসপাতালটি বন্ধ করে দিয়েছি: স্বাস্থ্যের ডিজি

0

রো’গী কম থাকায় বসুন্ধরার ক’রোনা হাসপাতালটি বা’ধ্য হয়েই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্ম’দ খুরশীদ আলম।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) দুপুর ১২টার দিকে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরে এক ভার্চুয়াল প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

বসুন্ধরার ক’রোনা হাসপাতাল প্রস’ঙ্গে স্বাস্থ্যের ডিজি বলেন, ‘বসুন্ধরা ক’রোনা হাসপাতাল যে পরিপ্রেক্ষিতে তৈরি হয়েছিল, সেই অবস্থা পরবর্তী সময়ে না থাকায় আমরা সেটিকে উঠিয়ে নিয়েছি।

সেখানকার সব যন্ত্রপাতি সারাদেশের হাসপাতালগুলোতে ছড়িয়ে দিয়েছি। একটি টিস্যু পেপার বক্স কোথায় দেওয়া হয়েছে, আমাদের কাছে সেই তালিকাও আছে। আপনারা চাইলে সেগুলো নিতে পারেন।

বসুন্ধরার কোভিড হাসপাতাল পরিচালনা করতে প্রতি মাসে ৬০ লাখের বেশি টাকা খরচ হতো। কিন্তু রো’গী ছিল মাত্র ১৫ থেকে ২০ জনের মতো। হাসপাতালটিতে চিকিৎসক-নার্সসহ ৪০০ থেকে সাড়ে ৪০০ জনবল ছিল।

এছাড়া নিরাপত্তাকর্মীসহ হাজারের অধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী সেখানে কর্মরত ছিল। রো’গী কম থাকায় হাসপাতালটি বন্ধ না করে এর ব্যয়ভার বহন করা কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছিল। ওই অবস্থায় আমরা বা’ধ্য হয়েই হাসপাতালটি বন্ধ করে দিয়েছি।’

স্বাস্থ্যের মহাপরিচালক আরও বলেন, ডিএনসিসি ক’রোনা হাসপাতাল নিয়ে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে সমালোচনা করা হয়েছে। কোনো রকম খোঁজ না নিয়েই সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে।

তাদের অভিযোগ, আমরা আগের স্থাপনা ব্যবহার না করে নতুন স্থাপনা ব্যবহারের মাধ্যমে স’রকারের অর্থ ব্যয় করছি। কিন্তু আপনারা জানবেন যে আগের যে স্থাপনা (ডিএনসিসির আইসোলেশন সেন্টার) সেখানে আমাদের ২০০ শয্যার আইসিইউ রয়েছে।

নতুন করে নয় তলায় আমরা আরও সাড়ে ৯০০ শয্যার বিছানা দিয়েছি। প্রতিটি বিছানায় অক্সিজেনের ব্যবস্থা রয়েছে। তাহলে এ হাসপাতালে ২০০ সহ আরও সাড়ে ৯০০ শয্যার যে হাসপাতাল তৈরি হয়েছে এটা কি আগের স্থাপনায় ব্যবস্থা করা যেত?

স্বাস্থ্যের ডিজি বলেন, ক’রোনা ম’হামা’রিতে সাংবাদিকদের আমরা শুরু থেকেই সহযোদ্ধা হিসেবে দেখেছি। তারাও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

তবে এই সময়েও কিছু কিছু মিডিয়া সমালোচনার মাধ্যমে আমাদের মনোবল ভে’ঙে দিচ্ছে। আমরা যদি ভু’ল করে থাকি তাহলে সমালোচনা হওয়াটা স্বাভাবিক।

তবে কেউ যদি না জেনে, না বুঝে, বিস্তারিত খোঁজ না নিয়ে সমালোচনার মাধ্যমে মানুষকে বিভ্রান্ত করে, তাহলে আমরা ঠিক থাকতে পারি না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্য অধিদফতর, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ প্রতিটি স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের কর্মীরা জীবনের ঝুঁ’কি নিয়ে কাজ করছেন। এ অবস্থায় মানুষকে বিভ্রান্ত না করে, আমাদের মনোবল না ভে’ঙে, আমাদের পাশে দাঁড়ান। আমরা প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ও নির্দেশনায় কাজ করছি। আমাদের ভু’ল হওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ।

তারপরও মানুষ ভু’লের ঊর্ধ্বে নয়, আমাদের ভু’ল হতেই পারে। সেটা আমাদের ধরিয়ে দিলে আমরা শুধরে নিতে পারব। কিন্তু সমালোচনা না করে এ অবস্থায় আমাদের পাশে দাঁড়ানো উচিত।

আবুল বাশার মোহাম্ম’দ খুরশীদ আলম বলেন, ‘জনগণের মধ্যে সঠিক ত’থ্য তুলে দিতে স’রকারের নির্দেশনায় আবার স্বাস্থ্য বু’লেটিন প্রচার করা হবে। সপ্তাহে দুই দিন এটা করা হবে।’

যদিও কোন দুই দিন বু’লেটিন প্রচার করা হবে তা নির্দিষ্ট করে বলেননি তিনি। মহাপরিচালক বলেন, স্বাস্থ্য বু’লেটিনে ক’রোনা বি’ষয়ে সাংবাদিকদের সার্বিক ত’থ্য জানার সুযোগ থাকছে।