Home Blog

প্রবাসীর স্ত্রী’কে ‘ধ’র্ষণ’ করে ভিডিওধারণ, যুবলীগ নেতা গ্রে’ফতার

0

নোয়াখালীর চাটখিল উপজে’লার নোয়াখলা ইউনিয়নে এক প্রবাসীর স্ত্রী’কে (২৯) ঘরে ঢুকে ধ’র্ষণ ও বিবস্ত্র করে ধ’র্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণ করার অ’ভিযোগে মুজিবুল রহমান শরীফ (৩২) নামে একজনকে গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ।

বুধবার (২১ অক্টোবর) ভোর ৫টার দিকে এ ঘ’টনা ঘটে। এরপর দুপুরে নি’র্যাতিতা গৃ’হবধূর অ’ভিযোগের ভিত্তিতে পু’লিশ অ’ভিযান চা’লিয়ে শরীফকে গ্রে’প্তার করে।

গ্রে’প্তারকৃত শরীফ একই এলাকার ওয়াতির বাড়ীর রফিকুল ইসলাম খোকনের ছেলে। শরীফ চাটখিল উপজে’লার নোয়াখলা ইউনিয়ন যুবলীগের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সভাপতি।

অ’ভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ওই না’রী তার শ্বশুর বাড়ীতে দু’ছেলে-মে’য়ে নিয়ে নিজ কক্ষে ঘুমিয়েছিলেন। বুধবার ভোরে শরীফ তার ঘরে ঢুকে তার হাত-মুখ চে’পে ধরে অ’স্ত্র দেখিয়ে হ’ত্যার হু’মকি দিয়ে গৃ’হবধূকে বিবস্ত্র করে।

এ সময় নি’র্যাতিতার ছেলে (৪) ও মে’য়ের (১০) ঘুম ভেঙ্গে গেলে শরীফ তাদেরকেও হ’ত্যার হু’মকি দিয়ে ঘরের অন্য একটি কক্ষে নিয়ে আ’টকে রাখে। এরপর ওই না’রীকে বিবস্ত্র করে ধ’র্ষণ করে শরীফ।

ধ’র্ষণের সময় তার মুখাবয়বে ও শ’রীরের বিভিন্ন স্থানে আ’ঘাত করে। ধ’র্ষণের পর নি’র্যাতিতা না’রীকে বিবস্ত্র ও উ’লঙ্গ করে নিজের ব্যবহৃত মোবাইল দিয়ে ছবি ও ভিডিও চিত্র ধারণ করে নিয়ে যায় শরীফ। ঘ’টনায় দুপুরে নি’র্যাতিতা তার দু’জন নিকট আত্মীয়কে নিয়ে চাটখিল থানায় অ’ভিযোগ দা’য়ের করেন।

চাটখিল থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ারুল ইসলাম ঘ’টনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গৃ’হবধূর অ’ভিযোগের ভিত্তিতে শরীফকে গ্রে’প্তার করা হয়েছে।

ওই গৃ’হবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ও ২২ ধারায় জবানব’ন্দী রেকর্ডের জন্য আ’দালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রে’প্তারকৃত শরীফের বি’রুদ্ধে চাটখিল থানায় অ’স্ত্র, ডাকাতির প্রস্তুতি, মা’রামারিসহ বিভিন্ন স’ন্ত্রাসী কার্যকলাপের ঘ’টনায় ৮টি মা’মলা রয়েছে।

দারুণ সু’খবর কম দামে HERO আনল নতুন স্কুটার

0

নয়াদিল্লি: লকডাউনের জের ও ক’রোনার প্রভাবে চড়চড় করে চড়েছে দু’চাকার গাড়ির দর। বহু মানুষ পাবলিক ট্রান্সপোর্ট এড়াতে নিজদের বাইক-স্কুটিকেই অন্যতম মাধ্যম হিসেবে বেছে নিচ্ছেন। এবার উত্সবে গ্রাহকদের জন্য হিরো নিয়ে এসেছে একটি নতুন স্কুটার প্লিজার প্লাস প্ল্যাটিনাম। দিল্লির শোরুমে এর দাম রয়েছে ৬০,৯৫০ টাকা। এই নতুন স্কুটারটি ১১০ সিসি এয়ার কুলড, এর ইঞ্জিনটি ৪ স্ট্রোক সিঙ্গল সিলিন্ডার

ওএইচসি যুক্ত। ইঞ্জিনটি এইট বিএইচপি শ’ক্তি দেয়, স’ঙ্গে ৮.৭ nm এর পিক টর্ক জেনারেট করে।হিরো মোটোকর্প জানাচ্ছে, এই স্কুটারের ডুজাইন আরও উন্নত করা হয়েছে। এরফলে স্কুটারের পোর্টফোলিও আসলে আরও শ’ক্তিশালী হবে।এছাড়া হিরোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে,

এই গাড়িতে মিলছে একাধিক সুবিধা। যেমন স্মার্ট সেন্সর প্রযুক্তি রয়েছে এই গাড়িতে। যারমধ্যে রয়েছে মোবাইল চার্জিং পোর্ট, সাইড স্ট্যান্ড ইন্ডিকেটর, লো ফুয়েল ইন্ডিকেটর, এলইডি বুট ল্যাম্প, স্পোর্টি টেইল ল্যাম্প, রেট্রো হেডল্যাম্প এবং এলোয় হুইল।এই স্কুটারটিতে রয়েছে টিউবলেস টায়ার। স্কুটারের গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স ১৫৫ মিমি। স্কুটারটিতে একটি বৈদ্যুতিন এবং কিক স্টার্ট সিস্টেম রয়েছে। এটির ট্যাঙ্কে একবারে

৪.৮ লিটার তেল ধরে।প্লেজার + প্ল্যাটিনামের মাইলেজ যথেষ্ট ভালো। সেই স’ঙ্গে নতুন ডিজাইনের স’ঙ্গে এটি দেখতেও যথেষ্ট আ’কর্ষণীয়। তাই যদি কেউ এই পুজো’র মুহূর্তে স্কুটার কিনতে চান, তবে এটি অবশ্যই হতে পারে আপনার পছন্দসই।

আরও পড়ুন=নভেম্বরেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না খোলার ইঙ্গিত দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বুধবার (২১ অক্টোবর) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ ইঙ্গিত দেন।মন্ত্রী বলেন, যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হয়েছে তা-ও বন্ধের পথে। সামনে শীত। শীতকাল নিয়ে দুঃচিন্তা আছে। তবে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে পরামর্শক কমিটির স’ঙ্গে আলাপ করবো।ক’রোনাভা’ইরাসেের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত বন্ধ আছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

এই গরমে বিদ্যুৎ বিল কমানোর দারুণ ৭ কৌশল

0

এই গরমে বিদ্যুৎ বিল কমানোর দারুণ ৭ কৌশল গরমের সময় বেড়ে যায় বিদ্যুৎ বিল। কারণ এ সময় বিদ্যুৎ খরচ অন্য সময়ে চেয়ে বেশি হয়।বাতি, ফ্রিজ, কম্পিউটার, ওয়াশিং মেশিন, ওভেন, ব্লেন্ডার, আয়রন ব্যবহারসহ আরও অনেক কাজে বিদ্যুৎ খরচ হয়।মাস শেষে বিদ্যুতের

বিল এলে অনেকের মাথা ন’ষ্ট। শুধু বিদ্যুতের বিল বাঁচাতে হবে এমন নয়, বিদ্যুৎ সংরক্ষণ করতে হবে।কিছু নিয়ম মেনে চললে এই বিলের খরচ কমানো যায়। আসুন জেনে নিই গরমে বিদ্যুৎ বিল কমানোর সাত কৌশল- ১. মোবাইল চার্জার থেকে খোলার পর অবশ্যই সুইচ বন্ধ করুন। ২. এসি রিমোট দিয়ে বন্ধ করার পর সুইচ বন্ধ করুন।

৩. ব্যবহার করুন সিএফএল বা এলইডি লাইট। এসব লাইটের আলোয় ফিলামেন্টের তুলনায় সার্কিট ব্যবহার হওয়ায় বিদ্যুতের খরচ কমে। ৪. যে কোনো বৈদ্যুতিক যন্ত্র কেনার সময় স্টার রেটিংয়ে ভরসা রাখু’ন। কোনো যন্ত্রের স্টার রেটিং বেশি হলে তার ইউনিট বাঁচানোর ক্ষ’মতাও

ততোধিক। ৫. পুরনো তার, পুরনো যন্ত্র ব্যবহারে বিদ্যুৎ বিল বাড়ে। তাই ১০-১৫ বছরের পুরনো যন্ত্র বা তার ব্যবহার না। আধুনিক যন্ত্র ব্যবহার করুন। ৬. ঘন ঘন এসি চালু ও বন্ধ করবেন না।

চা’লিয়ে কিছুক্ষণ পর বন্ধ করাই নিয়ম। এসি মেশিন রোদ-বৃষ্টির হাত থেকে বাঁচাতে ঢেকে রাখলে তাতে মেশিন খা’রাপ হয় তাড়াতাড়ি। ৭. দিনে এক ঘণ্টা করে বন্ধ রাখু’ন ফ্রিজ। এতে যন্ত্রও বিশ্রাম পাবে, বিদ্যুৎও বাঁচবে। ত’থ্যসূত্র: আ’নন্দবাজার পত্রিকা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা, বিস্তারিত জেনে নিন

0

সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপা’চার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান।সভা সূত্র জানায়, প্রতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা ২০০ নম্বর হলেও এবার পূর্ণমান থাকবে ১০০।

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক থেকে রেজাল্টের উপর ৮০ নম্বর থাকলেও সেটি কমিয়ে ২০ নম্বর করা হয়েছে। আর এমসিকিউ নম্বর ৭৫ থেকে ৩০ করা হয়েছে। এছাড়া লিখিত পরীক্ষার নম্বর থাকবে ৫০।

সবমিলিয়ে ১০০ নম্বরের উপর ভর্তিচ্ছুদের মেধাক্রম তৈরি করা হবে।বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপা’চার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন,

ক’রোনার কারণে এবার পরীক্ষা কেন্দ্র বিভাগ-ভিত্তিক করার সি’দ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। সেক্ষেত্রে বিভাগের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর স’ঙ্গে কথা বলে ভেন্যু ও সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের মাধ্যমে পরীক্ষা নেয়া হবে।

সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও সাবেক প্রধান ত’থ্য কমিশনার অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেন, ভর্তি পরীক্ষার কোনো বিকল্প নেই। স্বা’স্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আমরা লিখিত পরীক্ষার উপর বেশি গুরুত্ব দেবো।

সে আমার স’ঙ্গে বিশ্বা’সঘা’তকতা করেছে : প্রভা

0

আ’লোচিত মডেল-অ’ভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভা। অ’ভিনয় গুণে দর্শক হৃদয়ে শ’ক্ত জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। মাঝে ব্যক্তিগত কারণেও সমালোচনার মুখে পড়েতে হয়েছে তাকে।

নিন্দুকের কথায় কান না দিয়ে নিয়মিত মিডিয়ায় কাজ করে যাচ্ছেন এই অ’ভিনেত্রী।

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহবন্ধ’নে আবদ্ধ হলেও বেশি দিন টিকেনি তার সংসার। ব্যক্তিগত জীবন ও ক্যারিয়ার নিয়ে সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমে কথা বলেছেন প্রভা।

এ সময় জানতে চাওয়া হয় আবারো বিয়ে করবেন কিনা? জবাবে প্রভা বলেন, ‘বিয়ে নিয়ে এই মুহূর্তে কোনো পরিকল্পনা নেই। বিয়ে আমা’র কাছে ট্রমা হয়ে গেছে। আমা’র মনে হয়েছে, জীবনস’ঙ্গী পছন্দে ভু’ল করেছি। সঠিক ভেবে যাকে বিশ্বা’স করেছি, সে আমা’র স’ঙ্গে বিশ্বা’সঘা’তকতা করেছে।

আমা’র আশপাশের সবাই কিন্তু জানেন, স’ম্পর্কের ব্যাপারে আমি শতভাগ বিশ্বস্ত থাকি। আপাতত বিয়ে করছি না। এটা ঠিক, প্রে’মে পড়ে যাই, কিন্তু বিয়েতে ভ’য় পাই।’

প্রভা অ’ভিনীত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘পারফর্মা’র’ বেস’রকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভিতে প্রচার হবে। এটি পরিচালনা করেছেন তাসমিয়াহ্ আফরিন মৌ। জনপ্রিয় একজন অ’ভিনেত্রীকে নিয়ে চলচ্চিত্রটির গল্প গড়ে উঠেছে।

অ’ভিনয় জীবনে অসংখ্য চরিত্রে অ’ভিনয় করেছেন তিনি। একবার নি’ষিদ্ধ পল্লীতে শুটিং করতে যান এই অ’ভিনেত্রী। সেখানে মঞ্জুরী নামে এক প’তিতার স’ঙ্গে তার পরিচয় হয়

মঞ্জুরী ওই অ’ভিনেত্রীকে চ্যালেঞ্জ করেন—বাস্তবে সে তার (মঞ্জুরীর) চরিত্র করতে পারবে না। মঞ্জুরীর চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেন অ’ভিনেত্রী। তারপর নানা ঘ’টনার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যায় গল্প।

স্বল্পদৈর্ঘ্য এ চলচ্চিত্রে অ’ভিনেত্রীর চরিত্রটি রূপায়ন করেছেন প্রভা। মঞ্জুরী চরিত্রে দেখা যাবে মৌটুসী বিশ্বা’সকে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অ’ভিনয় করেছেন শাহাদাৎ হোসেন।

প্রীতি জিনতার উদ্দেশে দেয়া সালমান খানের সেই টুইট ভাইরাল!

0

ভারতের আলোচিত অভিনেত্রী প্রীতি জিনতার উদ্দেশে দেয়া সালমান খানের একটি টুইট ভাইরাল হয়েছে। ওই টুইটটি ৬ বছর আগে দেয়া। ভারতের তুমুল জনপ্রিয় অভিনেতা সালমান খান ২০১৪ সালে প্রীতি জিনতার কিংস ইলাভেন পাঞ্জাবকে নিয়ে একটি টুইট করেছিলেন। এক টুইটবার্তায় তিনি প্রশ্ন করেছিলেন, ‘প্রীতি জিনতার কি টিম জিতল?’

মুম্বাইয়ের বি’রুদ্ধে ঐতিহাসিক জয়ের পর সালমানকে পাঞ্জাব জবাব- অবশেষে জিতল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। আইপিএলের ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ম্যাচের তকমা ইতিমধ্যেই পেয়ে গিয়েছে রোববারের পাঞ্জাব বনাম মুম্বাই ম্যাচ।

বলিউড তারকা সালমান খানের ৬ বছর আগের ওই টুইট গত কয়েকদিন ধরেই ঘোরাফেরা করছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। আইপিএলের এবারের আসরে বিরাট বাহিনীকে হা’রিয়ে পাঞ্জাবের দ্বিতীয় জয়ের পর সালমানের সেই টুইট ভাইরাল হয়ে যায়। বৃহস্পতিবার রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরকে হা’রিয়ে এ আসরের দ্বিতীয় জয় নিশ্চিত করে কে এল রাহুলের নেতৃত্বাধীন দল।

২০১৪ সালের সেই টুইটে সালমান খান প্রশ্ন করেছিলেন ‘জিন্টার টিম কি জিতে গেছে?’ ব্যাপক পরিমাণে শেয়ার হতে থাকে এই টুইট। কারণ এই মরসুমে শুরু থেকেই হার পিছু ছাড়ছিল না সালমান খানের প্রিয় বন্ধু তথা কো-স্টার প্রীতি জিনতার মালিকানাধীন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব দলের।

একাধিক ম্যাচে জয়ের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়েও ম্যাচ হেরেছেন রাহুল, গেইলরা। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বি’রুদ্ধে জেতা ম্যাচ হেরে গিয়েছে পাঞ্জাব। আসরের প্রথম ম্যাচেই দিল্লির বি’রুদ্ধে সুপার ওভারে ম্যাচ হারতে হয়েছিল। তবে সেসব এখন অতীত- পাঞ্জাব ভক্তরা আপতত মজে রয়েছে রবিবাসরীয় রাতের ঐতিহাসিক জয়ে। যেখানে পয়েন্ট তালিকায় একদম উপরের দিকে থাকা মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে জোড়া সুপার ওভারে হা’রিয়ে জয় ছি’নিয়ে নিয়েছে কেএল রাহুলের দল।

এরপর রবিবার রাতে সালমান খানের সেই ভাইরাল টুইটের জবাব দেওয়া হয় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের অফিসিয়্যাল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে, তাঁরা সম্মতিসূচক জবাব দিয়ে বলে- ‘হ্যাঁ’।

কিংস ইলেভেনের ম্যাচ দু’র্বল হৃদয়ের মানুষদের জন্য নয়- তা ওইদিন প্রমাণ করল পাঞ্জাব। নির্ধারিত ২০ ওভারে ম্যাচ টাই হয়। পরে সুপার ওভারও টাই হয়। দ্বিতীয় সুপার ওভারে ঐতিহাসিক জয় পায় প্রীতি জিনতার দল।

গো’পনে অনলাইনে যে ১০ টি জিনিস বেশি সার্চ করে মে’য়েরা

0

না’রীরা গো’পনে গো’পনে গুগলে যে ১০টি জিনিস সবচেয়ে বেশি সার্চ করেন? জানলে ভাবনায় পড়ে যেতে পারেন যে কেউ। গুগলে না’রীদের সবচেয়ে বেশি সার্চকৃত ১০টি সৌন্দর্য্য বি’ষয়ক প্রশ্নের উত্তর।

১০. বলিরেখামুক্ত ত্বক পাওয়া যাবে কীভাবে : প্রথম থেকেই ত্বকের যত্ন শুরু করুন। ৩০ বছর হওয়ার স’ঙ্গে স’ঙ্গেই ত্বকের বাড়তি যত্ন নিতে হবে। কিন্তু আপনি যদি বলিরেখা পড়ার জন্য অপেক্ষা করেন এবং এরপর তা থেকে মুক্ত হতে চান তাহলে ভু’ল করবেন।

বলিরেখার প্রথম লক্ষণ হলো কপালে ভাজপড়া। ওয়েবে ত্বকের বলিরেখা দূর করার ঘরোয়া দাওয়াই সম্প’র্কিত নানা লেখা আছে। সেসব পড়ে পড়ে ত্বকের যত্ন করুন ধৈ’র্য্য ধরে।

৯. স্মোকি আই মেকআপ করা সম্ভব কীভাবে : স্মোকি আই মেকআপ করার পদ্ধতি বি’ষয়ে ইন্টারনেটে প্রচুর সংখ্যক লেখা রয়েছে। যে কোনো একটি পদ্ধতি বাছাই করে সে মতো কাজ করুন। তবে কখনোই দুটো পদ্ধতি সমন্বয় করতে যাবেন না তাহলে কিন্তু বি’পদ আছে। এতে চোখের ক্ষ’তি হতে পারে। আর যেসব কসমেটিকস কেবল চক্ষুবিজ্ঞান এর পদ্ধতি পরিক্ষীত কেবল সেসবই ব্যবহার করুন।

৮. চোখের নিচের ফোলাভাব দূর করব কীভাবে : শসা ও আলুর ফালি এবং আইস বা ঘুমের রুটিন বদলে আপনি আইব্যাগ বা চোখের ফোলাভাব থেকে মুক্ত হতে পারেন। তবে কর্কশ কিছু ব্যবহার করবেন না। কারণ তা আপনার চোখের দৃষ্টির ক্ষ’তি করতে পারে। আর তাতেও যদি আইব্যাগ দূর না হয় তাহলে একজন ত্বক বিশেষজ্ঞর স’ঙ্গে যোগাযোগ করুন।

৭. চুলে কয়দিন পরপর শ্যাম্পু করবো : শ্যাম্পু তখনই করা উচিত যখন চুল ও মাথার ত্বকে ময়লা জমে। তবে একটা নির্দিষ্ট সময় পরপর শ্যাম্পু করালে চুল ভালো থাকে। আর চুলের যত্নে শ্যাম্পু করার পাশাপাশি তেল, কন্ডিশানার, ভলুমাইজার এবং অন্যান্য জিনিসও ব্যবহার করতে হবে। অনেকে প্রতিদিনই শ্যাম্পু করার কথা শুনে আঁতকে ওঠেন। কিন্তু আপনার চুলে যদি প্রতিদিনই কদাকার হয়ে ওঠে তাহলে প্রতিদিনই শ্যাম্পু করাতে হবে। এতে কোনো ক্ষ’তি হবে না।

৬. দে’হের অবাঞ্ছিত লোম অপসারণে নিরাপদ উপায় কোনটি : দে’হের লোম অপসারণের আছে একাধিক উপায়। আপনি কোন উপায়টি ব্যবহার করবেন তা নির্ভর করছে আপনার ত্বকের ধরন এবং লোম গজানোর তীব্রতার ও’পর। চোখের ভ্রুর জন্য থ্রেডিং এবং টোয়েকিং ভালো কাজ করে। হাত বা পায়ের জন্য ওয়াক্সিং সবচেয়ে ভালো পদ্ধতি। আর আপনি যদি লেজার হেয়াল রিমুভাল পদ্ধতি ব্যবহার করতে চান তাহলে অভিজ্ঞ কোনো কসমেটিক সার্জনের স’ঙ্গে যোগাযোগ করুন।

৫. কনসিলার প্রয়োগ করতে হয় কীভাবে : কোনো না’রীই একদিনে কনসিলার প্রয়োগ করা শিখে যান না। এছাড়া কোন ধরনের কনসিলার ব্যবহার করছেন তাও একটি বিবেচ্য বি’ষয়। সব না’রীই কনসিলার ব্যবহার করেন না। যাদের ত্বকে কোনো মার্ক বা দাগ আছে তাদেরকে অবশ্যই কনসিলার কিনতে হবে। কনসিলার কেনার আগে ক্রস চেক করে নিন সেটি আপনার ত্বকের টোনের স’ঙ্গে মানানসই কিনা এবং আপনার উদ্দেশ্য পুরণ করতে পারবে কিনা। কনসিলারের নানা ধরন আছে। ফলে কেনার আগে গবে’ষণা করে নিতে হবে।

মে’য়েরা

৪. ট্যাটু কি ত্বকের জন্য ক্ষ’তিকর : সবার জন্য যে ট্যাটু ক্ষ’তিকর এমন নয়। তবে যারা স্থায়ী ট্যাটু এঁকেছেন তাদের অনেকেই অ’ভিযোগ করেছেন, এর ফলে তাদের ত্বকের স’মস্যা বেড়েছে। অর্থাৎ ট্যাটুতে ঝুঁ’কি আছে। সুতরাং আপনি যদি পুরোপুরি নিরাপদ থাকতে চান তাহলে ট্যাটু না করানোই ভালো। আর যদি ট্যাটু করাতেই হয় তাহলে ভালো কোনো পার্লার এবং ভালো কোনো শিল্পীকে দিয়ে তা করান।

৩. চুল কীভাবে দ্রু’ত গজানো যায় : সারাদিন চুলের স’ঙ্গে নিষ্ঠুর সব আচরণ করে দিনশেষে এসে চুল কীভাবে দ্রু’ত গজানো সম্ভব তা নিয়ে গুগলে সার্চ করার কোনো মানে হয় না। চুল দ্রু’ত গজাতে চাইলে চুলকে ভালো যথেষ্ট পরিমাণে পুষ্টি সরবরাহ করতে হবে এবং প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে রক্ষা করতে হবে। আর চুল দ্রু’ত গজানোর কোনো পদ্ধতি ব্যবহার করার সময় আপনাকে ধৈ’র্য্য ধরে অপেক্ষা করতে হবে। একদিনেই এর কোনো সমাধান সম্ভব নয়। অনেকে আবার এসময় চুল ছাটা বন্ধ করে দেন। কিন্তু সময় মতো চুল ছাটা হলে তা চুলের বৃ’দ্ধিতে বরং আরো সহায়ক হয়।

২. ফর্সা ত্বক পাব কীভাবে : না’রীরা প্রায়ই ত্বক ফর্সা করার জন্য প্রচুর পরিমাণে কসমেটিকস কেনেন। যেমন, পাউডার, ফাউন্ডেশন এবং আরো নানা ধরনের প্রসাধ’নী কেনেন। কিন্তু ত্বক ফর্সা হওয়ার জন্য স্বা’স্থ্যকর জীবন যাপনই মূ’ল চাবিকাঠি। এজন্য প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে, ফল ও জুস খেতে হবে, ভারসাম্যপূর্ণ খাদ্যাভ্যাস মেনে চলতে হবে এবং শ’রীর চর্চা করতে হবে। এর পাশাপাশি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ামুক্ত ঘরোয়া দাওয়াই ব্যবহার করা যেতে পারে।

১. ত্বকের ধরন নির্ণয় করব কীভাবে : এর সবচেয়ে ভালো বিজ্ঞানসম্মত উপায় হলো একটি মেডিকেল স্কিন টেস্ট করানো। ঘরে বসেও প্রাথমিক পদ্ধতিতে ব্লটিং পেপার ব্যবহার করেও স্কিন টেস্ট করানো যায়। ব্লটিং পেপারটি আপনার ত্বকের বিভিন্ন এলাকায় লাগিয়ে দিন। এরপর তা তুলে আলোতে দেখু’ন। এতে যদি প্রচুর পরিমাণ তেল থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনার ত্বকের ধরন হলো তৈলাক্ত। আর যদি কম তেল থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনার ত্বক হলো শুষ্ক ত্বক। তবে আপনার গালের তুলনায় যদি নাক একটু বেশি তৈলাক্ত হয় তাহলে বিস্মিতি হওয়ার কিছু নেই।

স্কিন টেস্টের সর্বশেষ ঘরোয়া পদ্ধতিটি হলো মুখ পরিষ্কার করে একঘন্টা পর তা পর্যবেক্ষণ করুন। একঘন্টাও পরও যদি আপনার মুখে তেল এবং মেদ থেকে ক্ষরিত রস থাকে তাহলে আপনার ত্বক হলো তৈলাক্ত ত্বক। কিন্তু যদি কোনো পরিবর্তন না দেখা যায় তাহলে বুঝতে হবে আপনার ত্বক হলো শুষ্ক ত্বক। আর আপনার নাক এবং কপাল যদি কিছুটা চকচকে হয়ে ওঠে তাহলে আপনার ত্বক স্বাভাবিক ধরনের।

১০ অঞ্চলে আজ ঝড়বৃষ্টি হতে পারে,দেখে নিন কোন কোন জে’লা

0

দেশের ১০ অঞ্চলে আজ ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। সেসব অঞ্চলের নদীবন্দরকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলেছে। বুধবার (২১ অক্টোবর) সকালে আবহাওয়া অধিদফতর এ ত’থ্য জানিয়েছে।আজ ভোর ৫টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী,

কুমিল্লা, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও সিলেট অঞ্চলের ও’পর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়ো/দমকা হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এ দিকে ঢাকায় আজ ভোর ৬টার আগের ২৪ ঘণ্টায় ৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সময়ে ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আকাশ আংশিক মেঘলাসহ অস্থায়ীভাবে মেঘলা থাকতে পারে। বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। পূর্ব/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার বেগে বাতাস বয়ে যেতে পারে। দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিপর্তিত থাকতে পারে।

মোটরসাইকেল চালকদের জন্য সু’খবর!

0

পরিবহনের ক্ষেত্রে তৃতীয় পক্ষের ঝুঁ’কি বীমা তুলে দিয়েছে স’রকার। ফলে এখন থেকে বীমা ছাড়াই মোটরসাইকেলসহ সব ধরনের যানবাহন চা’লানো যাবে। পরিবহনের ক্ষেত্রে তৃতীয় পক্ষের ঝুঁ’কি বীমা তুলে দেয়ার কারণে দেশে ব্যবসা করা সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলোর আয়ে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

তারা বলছেন, বাংলাদেশে মোটরসাইকেলের যে বীমা করা হয় তার প্রায় সবটাই তৃতীয় পক্ষের বীমা। গণপরিবহনের বীমা করা হয় তৃতীয় পক্ষের। প্রাইভেটকারের কিছু বীমা প্রথম পক্ষের করা হলেও বেশিরভাগ করা হয় তৃতীয় পক্ষের। সুতরাং তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দেয়ার কারণে মোটর বীমা থেকে সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলো যে আয় হতো তার প্রায় পুরোটাই হারাতে হবে।

সংশ্লিষ্টরা আরও বলছেন, বছরে সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলো যে প্রিমিয়াম আয় করে তার ১০ শতাংশই আসে মোটর বীমা থেকে। এর মধ্যে বড় অংশই আসে মোটরসাইকেল থেকে। এর প্রায় সম্পূর্ণ অংশ তৃতীয় পক্ষের হওয়ায় এসব বীমার পক্ষে কোম্পানিগুলোর দাবি পরিশোধ’নের পরিমাণও বেশ কম। ফলে মোটর বীমার প্রায় সম্পূর্ণ অংশই কোম্পানিগুলোর আয় হয়। এখন তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দেয়ায় কোম্পানিগুলো এই প্রিমিয়াম আয় হারাবে।

মোটর বীমার প্রিমিয়াম আয় হা’রানোর কারণ হিসেবে তারা বলছেন, তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দেয়ার কারণে এখন প্রথম পক্ষের বীমা থাকছে। আর প্রথম পক্ষের বীমা বা’ধ্যতামূ’লক নয়। অপরদিকে প্রথম পক্ষের বীমার প্রিমিয়াম হার অত্যন্ত বেশি। ফলে স্বাভাবিকভাবেই মোটরযানের মালিকরা বীমা করা থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবেন।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মোটরযান অধ্যাদেশ ১৯৮৩ এর ধারা ১০৯ অনুযায়ী তৃতীয় পক্ষের ঝুঁ’কি বীমা বা’ধ্যতামূ’লক ছিল এবং এর অধীনে ১৫৫ ধারায় দ’ণ্ডের বিধানও ছিল। তবে নতুন সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮-তে তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দেয়া হয়েছে।

আইনের এ বি’ষয় তুলে ধরে সম্প্রতি বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) জানিয়েছে, তৃতীয় পক্ষের ঝুঁ’কি বীমা না থাকলে সংশ্লিষ্ট মোটরযান বা মোটরযানের মালিকের বি’রুদ্ধে মা’মলা করার কোনো সুযোগ নেই। বিআরটিএ’র এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি পু’লিশ মহাপরিদর্শক, সব মেট্রোপলিটন পু’লিশ কমিশনার, হাইওয়ে পু’লিশপ্রধানসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠানো হয়েছে।বীমা কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, মোটরযানের বীমা করতে হলে নিবন্ধিত হওয়া বা’ধ্যতামূ’লক। অর্থাৎ যে মোটরযানগুলোর বীমা করা হয় তার সবই নিবন্ধিত। ২০১৮ সালে মোটরযান বীমা করে দেশে ব্যবসা করা সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলো ৩৮২ কোটি ১৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার প্রিমিয়াম আয় করে, যা কোম্পানিগুলোর মোট প্রিমিয়াম আয়ের ৯ দশমিক ১৪ শতাংশ। বছরটিতে সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলো মোট প্রিমিয়াম আয় করে চার হাজার ১৭৯ কোটি ২২ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

অবশ্য একটা সময় মোটরযান বীমা থেকে সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলো প্রায় সাড়ে ১২ শতাংশ প্রিমিয়াম আয় করতো। তবে ২০১৭ ও ২০১৮ সালে সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলোর প্রিমিয়াম আয়ে মোটরযান বীমার হার ১০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে।এদিকে বিআরটিএ সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে দেশে নিবন্ধিত মোটরযান আছে ৪৫ লাখ ২৩ হাজার ৬০০টি। এর মধ্যে মোটরসাইকেল ৩০ লাখ ৩২ হাজার ৫৫৯টি। চলতি বছরে (আগস্ট পর্যন্ত) এক লাখ ৭৯ হাজার ১৪০টি মোটরসাইকেলসহ নতুন মোটরযান নিবন্ধিত হয়েছে মোট দুই লাখ ২১ হাজার ৯৯০টি। বিআরটিএ’র নতুন নির্দেশনার আগে এসব নিবন্ধিত মোটরযানের জন্য তৃতীয় পক্ষের ঝুঁ’কি বীমা বা’ধ্যতামূ’লক ছিল। এখন এসব মোটরযানের জন্য কোনো বীমাই বা’ধ্যতামূ’লক নয়।

যোগাযোগ করা হলে বিআরটিএ’র পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং) মো. লোকমান হোসেন মোল্লা জাগো নিউজকে বলেন, আইনে তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দেয়া হয়েছে। এখন শুধু প্রথম পক্ষের বীমা আছে। প্রথম পক্ষের বীমা সব দেশেই অপশনাল (ঐচ্ছিক)। অর্থাৎ এটি বা’ধ্যতামূ’লক নয়। সুতরাং মালিক চাইলে তার পরিবহনের বীমা করতে পারেন, না করলেও স’মস্যা নেই।

যোগাযোগ করা হলে সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্সের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. জাহিদ আনোয়ার খান জাগো নিউজকে বলেন, আমরা সর্বশেষ প্রধানমন্ত্রীর স’ঙ্গে যে বৈঠক করেছিলাম সেখানেও বলা হয়েছিল, তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দিয়ে কম্প্রিহেনসিভ (ব্যাপক) বীমা বা’ধ্যতামূ’লক করার। কিন্তু এখন আইনে পরিবহন বীমার ক্ষেত্রে তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দিলেও কম্প্রিহেনসিভ বীমা বা’ধ্যতামূ’লক করা হয়নি। সুতরাং পরিবহনের ক্ষেত্রে এখন বীমা করা বা’ধ্যতামূ’লক নয়।

তিনি বলেন, তৃতীয় পক্ষের বীমা তুলে দেয়ার কারণে এখন সাধারণ বীমা কোম্পানিগুলোর আয়ে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। কারণ বাংলাদেশে যে মোটর বীমা হয় তার প্রায় সম্পূর্ণ অংশ তৃতীয় পক্ষের বীমা। স্বল্প প্রিমিয়াম দিয়ে তৃতীয় পক্ষের বীমা করা যেত। অপরদিকে প্রথম পক্ষের বীমা করতে মো’টা অঙ্কের প্রিমিয়াম দিতে হয়। সুতরাং পরিবহনের ক্ষেত্রে বীমা বা’ধ্যতামূ’লক না থাকায় গ্রাহকরা এখন বীমা করতে উৎসাহী হবেন না।

পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের উপদেষ্টা কিউ এ এফ এম সিরাজুল ইসলাম এ বি’ষয়ে জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের দেশে মোটরসাইকেলের যে বীমা হয় তার প্রায় সম্পূর্ণ অংশ তৃতীয় পক্ষের। প্রাইভেটকার, বাস, মিনিবাস, ট্রাকসহ অন্যান্য পরিবহনের বেশিরভাগ বীমা তৃতীয় পক্ষের। কম্প্রিহেনসিভ বা প্রথম পক্ষের বীমা খুবই কম। এর কারণ হলো কম্প্রিহেনসিভ বীমার প্রিমিয়াম হার অত্যন্ত বেশি। আমি মনে করি, কম্প্রিহেনসিভ বীমার প্রিমিয়াম হার কমানো উচিত।

তিনি বলেন, আমার যে গাড়ি আছে, তার তৃতীয় পক্ষের বীমা আগে সাড়ে ৫০০ টাকার মধ্যে হয়ে যেত। এখন সেই গাড়ির কম্প্রিহেনসিভ বীমা করতে ৪২ হাজার টাকার মতো লেগেছে। এত টাকা দিয়ে কে বীমা করবে?একইভাবে একটি মোটরসাইকেলের তৃতীয় পক্ষের বীমা করতে ২২৫ টাকা লাগে। কম্প্রিহেনসিভ বীমা করতে এক লাখ টাকা দামের মোটরসাইকেলের ক্ষেত্রে লাগবে আড়াই হাজার টাকার মতো। মোটরসাইকেলের দাম বেশি হলে বীমার প্রিমিয়াম হারও বেশি হবে—বলেন এই সাধারণ বীমা বিশেষজ্ঞ।নতুন সড়ক পরিবহন আইনে বীমার বি’ষয়ে কী আছে

মোটরযানের বীমার বি’ষয়ে নতুন আইনের ধারা ৬০ এর উপধারা (১) (২) ও (৩)-এ বিভিন্ন ত’থ্য তুলে ধরা হয়েছে। এই তিন উপধারায় বলা হয়েছে->>> যে কোনো মোটরযানের মালিক বা প্রতিষ্ঠান ই’চ্ছা করলে তার মালিকানাধীন যে কোনো মোটরযানের জন্য যে সংখ্যক যাত্রী পরিবহনের জন্য নির্দিষ্ট করা, তাদের জীবন ও সম্পদের বীমা করতে পারবে >>> মোটরযানের মালিক বা প্রতিষ্ঠানের অধীন পরিচালিত মোটরযানের জন্য যথানিয়মে বীমা করবেন এবং মোটরযানের ক্ষ’তি বা ন’ষ্ট হওয়ার বি’ষয়টি বীমার আওতাভুক্ত থাকবে। বীমাকারী ক্ষ’তিপূরণ পাওয়ার অধিকারী হবেন।>>> মোটরযান দু’র্ঘ’টনায় পতিত হলে বা ন’ষ্ট হলে ওই মোটরযানের জন্য ধারা ৫৩ এর অধীন গঠিত আর্থিক সহায়তা তহবিল হতে কোনো ক্ষ’তিপূরণ দাবি করা যাবে না।

প্রবাসীদের জন্য সু’খবর: ২৮ অক্টোবর ইতালি যাবে বিমানের বিশেষ ফ্লাইট

0

প্রবাসীদের চা’হিদার কথা বিবেচনা করে আগামী ২৮ অক্টোবর ঢাকা থেকে ইতালির রোমে একটি বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

মঙ্গলবার এ ত’থ্য নিশ্চিত করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

বিমান জানায়, বাংলাদেশস্থ ইতালি দূ’তাবাসের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ঢাকা থেকে রোম এ ফ্লাইট পরিচালনার জন্য রেজিস্ট্রেশন শুরু করেছে। আগামী ২৮ অক্টোবর ফ্লাইটটি রোমে যাবে। যাত্রীদের টিকিট বুকিং ও সংগ্রহের জন্য বিমান সেলস কাউন্টারে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

এছাড়াও টিকিট কেনার আগে ইতালি যাত্রার ক’রোনা সংক্রান্ত শর্ত/নির্দেশনা বিমানের ওয়েবসাইট থেকে দেখে নিতে বলেছে বিমান।

বর্তমানে বাংলাদেশিরা তার্কিশ এয়ারলাইনস, এমিরেটস এবং কাতার এয়ারওয়েজের মাধ্যমে ট্রানজিট ফ্লাইটে ইতালি যাচ্ছেন।

কো’ভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর সম্প্রতি ইতালি স’রকার দেশটিতে বাংলাদেশি প্রবেশে দেশটির জারি করা নি’ষেধাজ্ঞা শিথিল করে।